লুকিং ফর কমেডি ইন দ্য মুসলিম ওয়ার্ল্ড

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
লুকিং ফর কমেডি ইন দ্য মুসলিম ওয়ার্ল্ড
লুকিং ফর কমেডি ইন দ্য মুসলিম ওয়ার্ল্ড চলচ্চিত্রের পোস্টার.jpg
প্রচারণামূলক পোস্টার
পরিচালকঅ্যালবার্ট ব্রুকস
প্রযোজকস্টিভ বিং
হার্ব নানাস
জোঅ্যান পেরিটানো
রচয়িতাঅ্যালবার্ট ব্রুকস
শ্রেষ্ঠাংশেপেনি মার্শাল
ভিক্টোরিয়া বুরস
পল জেরোম
অ্যালবার্ট ব্রুকস
শীতল শেথ
এমা লকহার্ট
অ্যামি রায়ান
সুরকারমাইকেল গিয়াচিনো
চিত্রগ্রাহকটমাস ই. একরম্যান
সম্পাদকঅনিতা ব্রান্ডট-বার্গোয়েন
প্রযোজনা
কোম্পানি
পরিবেশকওয়ার্নার ইন্ডিপেন্ডেন্ট পিকচার্স
মুক্তি
  • ১৫ ডিসেম্বর ২০০৫ (2005-12-15)
দৈর্ঘ্য৯৮ মিনিট
দেশমার্কিন যুক্তরাষ্ট্র
ভাষাইংরেজি
নির্মাণব্যয়$১০,০০০,০০০

লুকিং ফর কমেডি ইন দ্য মুসলিম ওয়ার্ল্ড ২০০৫ সালের একটি চলচ্চিত্র যা পরিচালনা করেছেন অ্যালবার্ট ব্রুকস।[১] চলচ্চিত্রটি দুবাই আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসবে প্রদর্শিত হয়েছিল।

সংক্ষিপ্তসার[সম্পাদনা]

আলবার্ট ব্রুকস, একজন ইহুদি-মার্কিন কৌতুক অভিনেতা, যাকে মার্কিন সরকার ভারত এবং পাকিস্তান ভ্রমণ করে "কি মুসলমানদের খুশি করে" তা খুঁজে বের করতে বলেছিল। এখানে ব্রুকসের আগের চলচ্চিত্রগুলির উল্লেখ করা হয়, যার মধ্যে রয়েছে ফাইন্ডিং নিমো, লস্ট ইন আমেরিকা এবং ডিফেন্ডিং ইওর লাইফ।

ভারতে পৌঁছানোর পর, ব্রুকস ভারতীয়দের সাক্ষাৎকার নেওয়া শুরু করেন এবং সরকারের তার কাছ থেকে প্রত্যাশিত ৫০০ পৃষ্ঠার প্রবন্ধের জন্য উপাদান সংগ্রহ শুরু করেন। তাকে দুজন এজেন্ট মায়া এবং শীতল শেথ নামে একজন ভারতীয় মহিলা সাহায্য করে, যাকে তার সহকারী হিসাবে নিয়োগ করা হয়েছিল। (যারা আসলে খুব কম সাহায্য করে)

ব্রুকসের সাক্ষাৎকার এবং একটি ব্যর্থ স্ট্যান্ড-আপ পারফরম্যান্স ভারত সরকারের দৃষ্টি আকর্ষণ করতে শুরু করে, যারা ভয় পায় যে তিনি কোনও ধরণের গুপ্তচর। ভিসা না পেয়ে ব্রুকস অবৈধভাবে চার ঘন্টার জন্য পাকিস্তানে প্রবেশ করেন বেশ কয়েকজন নতুন পাকিস্তানি কৌতুক অভিনেতার সাক্ষাৎকার নিতে, ভারত সরকার আরও আতঙ্কিত হয়ে পড়ে, সীমান্তে নিয়ন্ত্রণ বাড়ায়। এই পদক্ষেপ পাকিস্তানের বিপদের কারণ হয়ে দাঁড়ায়, যারা তাদের নিজস্ব নিরাপত্তা ব্যবস্থা নিয়ে প্রতিক্রিয়া জানায়।

দেশগুলোর মধ্যে উত্তেজনা বাড়ার সাথে সাথে মার্কিন সরকার ব্রুকসকে দেশ ছেড়ে আমেরিকায় ফিরে যাওয়ার আদেশ দেয়। পরে পাকিস্তান এবং ভারতের মধ্যে উত্তেজনা সমাধান করা হয় যখন তারা জানতে পারে যে সবকিছু ব্রুকসের দোষ ছিল। এটাও জানা যায় যে মায়া প্রতিবেদনটি যা লেখা হয়েছিল তা ওয়াশিংটনে প্রেরণ করেছিলেন, কিন্তু এটি কোন স্বীকৃতিও পায়নি।

শ্রেষ্ঠাংশে[সম্পাদনা]

  • স্ব-চরিত্রে অ্যালবার্ট ব্রুকস
  • এমিলি চরিত্রে অ্যামি রায়ান
  • মায়ার চরিত্রে শীতল শেঠ
  • স্ব-চরিত্রে ফ্রেড ডাল্টন থমসন
  • স্ব-চরিত্রে প্যানি মার্শাল
  • পাকিস্তানি কমেডিয়ান চরিত্রে মার্কো খান

অভ্যর্থনা[সম্পাদনা]

চলচ্চিত্রটি সমালোচকদের থেকে মিশ্র সমালোচনা পেয়েছে। রটেন টম্যাটোসে এটি ১০৮ টি পর্যালোচনার ভিত্তিতে ৪২% পজিটিভ অনুমোদন রেটিং পেয়েছে।[২] এটি সীমিত আকারে প্রকাশিত হয়েছে (কেবল ১৬১ টি প্রেক্ষাগৃহে)।[৩]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]