লিয়েন্ডার পেজ

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
সরাসরি যাও: পরিভ্রমণ, অনুসন্ধান
লিয়েন্ডার পেজ
Paes WM13-009 (9495560679).jpg
দেশ  ভারত
বাসস্থান মুম্বাই, মহারাষ্ট্র
জন্মস্থান (১৯৭৩-০৬-১৭) জুন ১৭, ১৯৭৩ (বয়স ৪৩)
কলকাতা,পশ্চিমবঙ্গ, ভারত
উচ্চতা ১.৭৮ মি (৫ ফু ১০ ইঞ্চি)
পেশাদারীর সময় ১৯৯১
খেলার ধরণ ডানহাতি
পুরস্কারের মূল্যমান $৭,৫৯৭,৫৩৪
একক
খেলোয়াড়ী  রেকর্ড ৯৯-৯৮
শিরোপা
সর্বোচ্চ র‌্যাঙ্কিং ৭৩ নং (২৪ আগষ্ট, ১৯৯৮)
গ্র্যান্ড স্ল্যাম এককের ফলাফল
অস্ট্রেলিয়ান ওপেন দ্বিতীয় রাউন্ড (১৯৯৭, ২০০০)
ফ্রেঞ্চ ওপেন দ্বিতীয় রাউন্ড (১৯৯৭)
উইম্বলেডন দ্বিতীয় রাউন্ড (২০০১)
ইউএস ওপেন তৃতীয় রাউন্ড (১৯৯৭)
অন্যান্য প্রতিযোগিতা
অলিম্পিক গেমস Bronze medal.svg ব্রোঞ্জ (১৯৯৬)
দ্বৈত
খেলোয়াড়ী  রেকর্ড ৬৫৫–৩৪০
শিরোপা ৫৫
সর্বোচ্চ র‌্যাঙ্কিং ১নং (২১শে জুন, ১৯৯৯)
বর্তমান র‌্যাঙ্কিং ২৯ নং (৩১শে আগস্ট, ২০১৫)
গ্র্যান্ড স্ল্যাম দ্বৈতের ফলাফল
অস্ট্রেলিয়ান ওপেন জয় (২০১২)
ফ্রেঞ্চ ওপেন জয় (১৯৯৯, ২০০১, ২০০৯)
উইম্বলেডন জয় (১৯৯৯)
ইউএস ওপেন জয় (২০০৬, ২০০৯, ২০১৩)
অন্যান্য দ্বৈত প্রতিযোগিতা
Tour Finals F (1997, 1999, 2000, 2005)
অলিম্পিক গেমস চতুর্থ (২০০৪)
মিশ্র দ্বৈত
Career titles
গ্র্যান্ড স্ল্যাম মিশ্র দ্বৈতের ফলাফল
অস্ট্রেলিয়ান ওপেন জয়' (২০০৩, ২০১০ ২০১৫
ফ্রেঞ্চ ওপেন ফাইনাল (২০০৫)
উইম্বলেডন জয় (১৯৯৯, ২০০৩, ২০১০ ২০১৫)
ইউএস ওপেন জয় (২০০৮২০১৫)
Other Mixed Doubles tournaments
Olympic Games কোয়ার্টার ফাইনাল (২০১২)

সর্বশেষ হালনাগাদকরণ: ৯ই সেপ্টেম্বর, ২০১৩

Signature of Leander Paes.svg
লিয়েন্ডার পেজের স্বাক্ষর

লিয়েন্ডার পেজ (পুরো নাম লিয়েন্ডার আর্দ্রিয়ান পেজ)(জন্ম জুন ১৭, ১৯৭৩) একজন ভারতীয় টেনিস খেলোয়াড়। তাঁর জন্ম কলকাতা ১৯৭৩ সালের ১৭ ই জুন। বড় হয়েছেন কলকাতায় । মা জেনিফার পেজ ছিলেন নামকরা বাস্কেটবল খেলোয়াড় ১৯৮০ এশীয় বাস্কেটবল লড়াইতে ভারতীয় দলের নেতৃত্ব দেন । বাবা ভাস পেজ হকি খেলোয়াড় ব্রোঞ্জপদক জয়ী ১৯৭২ মিউনিখ অলিম্পিক দলের সদস্য। লিয়েন্ডার পেইজ তাঁর মায়ের দিক থেকে বাঙালি কবি মাইকেল মধুসূদন দত্তের বংশধর।

১৯৮৫ এ লিয়েন্ডার মাদ্রাজের ব্রিটানিয়া টেনিস আকাডেমীতে যোগ দেন । ১৯৯১লিয়েন্ডার পেজ প্রথম জয় লাভ করেন ইউএস ওপেন ও জুনিয়ার উইম্বলেডন। তিনি পেশাদার হিসেবে ১৯৯১ সালে আত্নপ্রকাশ করেন । একই বছর ১৯৯২ সালে তিনি রমেশ কৃষ্ণনর সাথে বার্সেলোণা অলিম্পিকের দ্বৈত প্রতিযোগীতায় কোয়ার্টার ফাইনালে পৌছান। আটলান্টা অলিম্পিকে ১৯৯৬ সালে ফার্নান্দ মেলিজেনিকে পরাজিত করে ব্রোঞ্জ পদক লাভ করেন। একই বছর তিনি ওয়ার্ল্ড জুনিয়ার র্যাংকিং-এ প্রথম হন । এ উইম্বলডন জুনিয়ার খেতাব জয় তাকে আন্তর্জাতিক পরিচিতি প্রদান করে। দ্রুত তিনি জুনয়ার বিশ্বতালিকার শীর্ষস্থান লাভ করেন। আটলান্টা অলিম্পিকে ১৯৯৬ সালে ব্রোঞ্জ পদক লাভ করেন। মহেশ ভূপতির সাথে জুটি বেঁধে বিশ্ব ডাবলস টেনিসে দীর্ঘসময় প্রথম স্থানটি ধরে রাখেন। ১৯৯৯ সালে তারা সবকটি লড়ায়ের ফাইনালে যান। ভারতের অন্যতম অনন্য ক্রীড়াব্যক্তিত্ব হিসাবে তাকে প্রদান করা হয় দেশের সর্বসেরা ক্রীড়া সম্মান রাজীব গান্ধী খেল রত্ন ( ১৯৯৬-১৯৯৭ বর্ষ )। ২০০১পদ্মশ্রীতে ভূষিত হয়েছেন।

গ্র্যান্ড স্লাম খেতাব[সম্পাদনা]

  • পুরুষদের ডাবলস বিভাগে
    • ফরাসি ওপেন ১৯৯৯
    • উইম্বলডন ১৯৯৯
    • ফরাসি ওপেন ২০০১
  • মিশ্র ডাবলস বিভাগে
    • উইম্বলডন ১৯৯৯
    • অস্ট্রেলিয়া ওপেন ২০০৩
    • উইম্বলডন ২০০৩
    • উইম্বলডন ২০১০

এছাড়া তিনি ১৯৯৯ এ ইউ এস ওপেনে পুরুষদের ডাবলস বিভাগে ফাইনালে পৌঁছান।