রাফাহ

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
Rafah
অন্যান্য প্রতিলিপি
 • আরবিرَفَح
 • হিব্রুרָפִיחַ
স্থানাঙ্ক: ৩১°১৭′১৯″ উত্তর ৩৪°১৫′০৭″ পূর্ব / ৩১.২৮৮৬১° উত্তর ৩৪.২৫১৯৪° পূর্ব / 31.28861; 34.25194স্থানাঙ্ক: ৩১°১৭′১৯″ উত্তর ৩৪°১৫′০৭″ পূর্ব / ৩১.২৮৮৬১° উত্তর ৩৪.২৫১৯৪° পূর্ব / 31.28861; 34.25194
ফিলিস্তিন ভূখণ্ড77/78
গভর্নোরেটRafah
সরকার
 • ধরনশহর
 • Head of MunicipalitySa'ad Zoarub
জনসংখ্যা (2014)[১]
 • অধিক্ষেত্র১,৫২,৯৫০

রাফাহ (আরবি: رفح‎‎) হল ফিলিস্তিনের একটি শহর ও শরনার্থী শিবির, যা গাজা ভূখণ্ডের দক্ষিণ দিকে গাজা শহর হতে ৩০ কিলোমিটার (১৯ মাইল) দক্ষিণে অবস্থিত। এটি প্রশাসনিক জেলা রাফাহ গভর্নরেটের রাজধানীও বটে। ২০১৪ সালে রাফাহর জনসংখ্যা ছিল ১৫২৯৫০ জন, যার অধিকাংশই হল ফিলিস্তিনি শরনার্থী। রাফাহ ক্যাম্প ও তাল আস সুলতান ক্যাম্প দুটি আলাদা জায়গা অবস্থিত।

১৯৮২ সালে ইসরায়েল যখন সিনাই ত্যাগ করে তখন রাফাহ দুভাগে বিভক্ত হয়: একটি গাজান অংশ অপরটি মিশরীয় অংশ। শহরের প্রধান প্রধান অংশ ইসরায়েল ও মিশর দ্বারা ধ্বংস হয়েছে এবং গঠিত হয়েছে বিস্তর বাফার জোন। মিশর ও ফিলিস্তিনের মধ্যে বর্ডার ক্রসিং পয়েন্ট হল রাফাহ বর্ডার ক্রসিং। গাজা ভূখণ্ডের একমাত্র বিমানবন্দর ইয়াসির আরাফাত আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর এ শহরের দক্ষিণে নিকটেই ছিল যা ১৯৯৮ থেকে ২০০১ পর্যন্ত চালু ছিল, ইসরায়েলি বাহিনীর বোমা হামলায় বন্ধ হয়ে যায়।

জনসংখ্যা[সম্পাদনা]

১৯২২ সালে রাফাহর জনসংখ্যা ছিল ৫৯৯ জন, যা ১৯৪৫ বৃদ্ধি পেয়ে দ্বারায় ২২২০ জনে। ১৯৮২ সালে এর সর্বমোট জনসংখ্যা ছিল প্রায় ১০,৮০০ জন।

ফিলিস্তিন কেন্দ্রীয় পরিসংখ্যান ব্যুরোর (পিসিবিএস) পরিসংখ্যান অনুযায়ী ১৯৯৭ সালে রাফাহ শহরের (শরনার্থী শিবির সহ) জনসংখ্যা ছিল ৯১,১৮১ জন, যার সাথে তাল আস সুলতানের ১৭,১৪১ জনও তালিকাভুক্ত। এ জনসংখ্যার প্রায় ৮০.৩% ভাগই ছিল শরনার্থী। ১৯৯৭ সালের পরিসংখ্যান অনুযায়ী রাফাহর (রাফাহ ক্যাম্প সহ) নারী পুরুষ অনুপাত ছিল ৫০.৫% পুরুষ এবং ৪৯.৫% নারী।

২০০৬ সালের পিসিবিএস-এর হিসাব মতে রাফাহ শহরের জনসংখ্যা হল ৭১,০০৩ জন, এতে রাফাহ ক্যাম্প ও তাল আস সুলতান ক্যাম্প পৃথকভভাবে গননা করা হয়েছে, যাদের জনসংখ্যা হল যথাক্রমে ৫৯,৯৮৩ জন এবং ২৪,৪১৮ জন।

ইতিহাস[সম্পাদনা]

১৯৮৪ সালে আরব ইসরায়েল যুদ্ধের পর এখানে শরনার্থী শিবির স্থাপন করা হয়েছিল। ১৯৫৬ সালের যুদ্ধে রাফাহ হত্যাকাণ্ডের সময় ইসরায়েলি বাহিনী ১১১ জন নিরিহ মানুষকে হত্যা করে যার মধ্যে ১০৩ জনই শরনার্থী ছিল এবং যাতে জড়িত ছিল ইসরায়েল, ব্রিটেন, ফ্রান্স, মিশর। জাতিসংঘ এ হত্যাকাণ্ডের পার্শ্ববর্তী পরিস্থিতি নির্ধারণ ও নিয়ন্ত্রণে অক্ষম ছিল।[২][৩]

১৯৬৭ সালে ছয়দিনের যুদ্ধ চলাকালে ইসরায়েলের বাহিনী সম্পূর্ণ গাজা ভূখন্ডসহ সিনাই উপদ্বীপ দখল করে নেয়। সে সময় রাফাহর জনসংখ্যা ছিল ৫৫,০০০ জন এবং তাদের মধ্যে মাত্র ১১,০০০ জন নিজস্ব গৃহে বসবাস করত।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. Palestinian Central Bureau of Statistics
  2. "Archived copy"। ২০১৩-১১-০৪ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০১৩-০৮-২৪ 
  3. http://cosmos.ucc.ie/cs1064/jabowen/IPSC/php/place.php?plid=210

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]