মুহাম্মদ ওয়াকার উদ্দিন কাদেরী

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে

মুহাম্মদ ওয়াকারউদ্দিন কাদেরী (১৯১৫-১৯৯৩) দক্ষিণ এশিয়ার সুন্নি বেরলভী আন্দোলনের সাথে যুক্ত একজন ইসলামী পণ্ডিত ছিলেন। ওয়াকার-উল-ফাতাওয়া নামক গ্রন্থের তিনটি খন্ডে তার ফাতাওয়া (রায়সমূহ) সংকলিত হয়েছে। তিনি ভারত, বাংলাদেশ এবং পরবর্তীকালে পাকিস্তানের ইসলামী প্রতিষ্ঠানগুলোতে শিক্ষাদান এবং পরিচালনা করেছিলেন। তিনি জিয়া-উল-হকের আমলে মুফতি-ই-আজম পাকিস্তান উপাধি লাভ করেন।[১][২]

জন্ম ও পরিবার[সম্পাদনা]

তিনি ১৯১৫ সালের ১ জানুয়ারি (১৪ সফর ১৩৩৩ হিজরী) একটি আলেম পরিবারে জন্মগ্রহণ করেন। তারা ভারতের উত্তর প্রদেশ জেলার পিলিভিটের খামারিয়া গ্রামে আরেন গোষ্ঠীর মধ্যবিত্ত-জমিদার ছিল। [৩] তার বাবা হামেদ উদ্দীন কুরআন মুখস্থ করেছিলেন।[৪] তার মা ইমতিয়াজুন নিসা ছিলেন পিলিভিট জেলা পান্দি গ্রামের হাজী নিসার আহমদের মেয়ে।

শিক্ষা ও ক্যারিয়ার[সম্পাদনা]

তিনি প্রাথমিক শিক্ষা ও প্রশিক্ষণ তার পৈতৃক গ্রাম খামারিয়া থেকে নেন। তারপরে পিলিভিটের মাদ্রাসা-এ-আস্তানা-এ-শেরিয়া এবং পরে বেরেলীর দরগাহ আলা হযরতের মানজার-ই-ইসলামে পড়ালেখা করেন। এরপরে, তিনি আমজাদ আলী আজমীর সাথে দাওরায়ে-ই-হাদিস সম্পন্ন করতে আলীগড়ের গ্রাম দাদনে যান।[৫]

১৯৩৭ সালে হাকিম আমজাদ আলী হাদিস সমাপ্তির জন্য তাকে ডিগ্রি প্রদান করেন। ১৯৪৫ সালে তিনি জেলা পিলিভিট কারঘাইনা গ্রামের আনোয়ারুল হকের কন্যা মোহাতারমা জামিলা বেগমের সাথে বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হন। অনুষদ বিষয়ক উপ-রাষ্ট্রপতি পদে নিয়োগের সময় মুফতি আজম-এ-হিন্দ মোস্তফা রেজা খান তাকে প্রশংসাপত্র প্রদান করেন।[৬]

প্রাতিষ্ঠানিক অবদান[সম্পাদনা]

তিনি মাদ্রাসা মাজার-ই-ইসলামে শিক্ষক হিসাবে নিযুক্ত হন এবং পরে মানজার-ই-ইসলামে শিক্ষকতার দায়িত্বে ও ব্যবস্থাপক হিসাবে পদোন্নতি পান। তিনি বিতর্ককারীদের প্যানেলের মধ্যে ছিলেন ছিলেন যারা অন্য মতাদর্শের চিন্তাবিদদের সাথে অবিচ্ছিন্নভাবে বিতর্ক করতেন। বেরেলী জেলার তান্ডা গ্রামে একজন আহলে হাদীস পণ্ডিতের সাথে বিতর্ক তার জীবনকালের বিখ্যাত যেখানে তাকে মুফতি আজম-এ-হিন্দ মোস্তফা রেজা খান পুরষ্কৃত করেছিলেন। [৭] তিনি অল ইন্ডিয়া সুন্নি সম্মেলনের কার্যক্রমে অংশ নিয়েছিলেন। তিনি ১৯৫৪ সাল পর্যন্ত এখানে পাঠদান ও আলেম প্রস্তুত করেন, বাংলার (বর্তমান বাংলাদেশ) চট্টগ্রামের জামেয়া আহমদিয়া সুন্নিয়া আলিয়া মাদ্রাসায় চলে আসেন। ১৯৭১ সাল অবধি পূর্ব পাকিস্তানের বাসিন্দারা মাওলানা ওয়াকারুদ্দিনের সেবায় উপকৃত হন। পূর্ব পাকিস্তানে বিশৃঙ্খলা ও সামরিক যুদ্ধের কারণে তিনি একাত্তরে পশ্চিম পাকিস্তানের দিকে অগ্রসর হওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন। কঠিন সময়ের মুখোমুখি হওয়ার পরে, তিনি ১৯৭১ সালের ২৩শে মার্চ তার পরিবারের সদস্য এবং ঘনিষ্ঠ সহযোগী সহ করাচির জাহাজে উঠতে পেরেছিলেন।[৮]

পাকিস্তানে জীবন[সম্পাদনা]

তিনি ১৯৭১ সালে দারুল উলুম আমজাদিয়ায় শিক্ষা ও শেখানোর প্রধান হিসাবে যোগদান করেন। আইনশাস্ত্র কেন্দ্রের জন্যও তিনি দায়বদ্ধ ছিলেন। ইসলামী অধ্যয়নের এই শাখায় তার অবদানকে তার সময়ের আলেমরা স্বীকার করেছেন।[৭]

আধ্যাত্মিক অনুমতি ও উত্তরসূরিত্ব[সম্পাদনা]

তিনি হামিদ রেজা খান কাদেরীর কাছ থেকে আনুগত্যের শপথ (বায়াত) গ্রহণ করেছিলেন। মোস্তফা রেজা খান কাদেরী তাকে আধ্যাত্মিক সহকারী প্রতিনিধিত্ব (খিলাফত) হিসাবে ভূষিত করেছিলেন।[২][৯][১০]

বই[সম্পাদনা]

  • ওয়াকার-উল-ফাতাওয়া
  • জাকাত কি আহমিয়াত
  • মাসাইল এ এতিকাফ

শিক্ষক[সম্পাদনা]

কাদেরীর শিক্ষকদের মধ্যে অন্তর্ভুক্ত:[১১]

স্বীকৃতি[সম্পাদনা]

তাকে মুফতি-এ-আজম পাকিস্তান উপাধিতে ভূষিত করা হয়েছিল। জেনারেল জিয়া উল হকের শাসনামলে পাকিস্তান সরকার তাকে মারকাজি রুয়েত-এ-হিলাল কমিটির সদস্য হিসাবে মনোনীত করেছিল। তিনি পাকিস্তানি সংবিধানে “মুসলিম” শব্দটির সংজ্ঞা দিয়েছিলেন।[৭]

মৃত্যু[সম্পাদনা]

তিনি ১৯৯৩ সালের ১৯ সেপ্টেম্বর (২০ রবিউল আউয়াল ১৪১৩ হিজরী) মৃত্যুবরণ করেন। তাকে পাকিস্তানের করাচির দারুল উলুম আমজাদিয়ায় শায়িত করা হয়।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. Life of Waqar-e-Millat,Page 3
  2. "Muhammad Ilyas Attar Qadiri"The Muslim 500 
  3. "Mufti Muhammad Waqaruddin"www.ziaetaiba.com [স্থায়ীভাবে অকার্যকর সংযোগ]
  4. Life of Waqar-e-Millat,Page 4
  5. Anware-e-Ulema-e-Ahle Sunnat, Sindh 1008
  6. Asad, Mohammad Rehan and Jilani, Shams (2017), The Arain Diaspora in the Rohilkhand region of India: A historical perspective: General History of Arain tribe of Punjab & Sindh with socio cultural background of the diaspora in Rohilkhand, India.
  7. Asad, Mohammad Rehan and Jilani, Shams (2017)
  8. Authors Introduction, 1997, Waqarul Fatawa, Vol I, Mufti Azam Pakistan, Hadhart Allama Mufti Mohammad Waqaruddin Qadri Razvi, Printed by Bazme Waqaruddin.
  9. ^ Ta'ruf e Ameer e Ahle Sunnat - Shouq e 'Ilm e Deen (Urdu), al Madina tul 'Ilmiyyah.
  10. "Maulana Ilyas Qadri | The Halal Life | Biography Series"The Halal Life 
  11. Asad and Jilani, 2017

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]