বানৌজা দূর্বার

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
ইতিহাস
বাংলাদেশ
শ্রেণী এবং ধরন: টাইপ ০২৪-শ্রেণী ক্ষেপণাস্ত্রবাহী জাহাজ
নাম: বানৌজা দূর্বাব
নির্মাতা: উহু শিপইয়ার্ড
কমিশন লাভ: ৬ এপ্রিল ১৯৮৩
ডিকমিশন: ৩০ মার্চ ২০১৭
কার্যসময়: ১৯৮৩ - ২০১৭
নিয়তি: ভেঙ্গে ফেলা
অবস্থা: অবসরে পাঠানো
সাধারণ বৈশিষ্ট্য
ওজন: 79 tons
দৈর্ঘ্য: ৭৯ মি (২৫৯ ফু)
প্রস্থ: ২৭ মি (৮৯ ফু)
ড্রাফট: ১.৮ মি (৫.৯ ফু)
ইনস্টল ক্ষমতা: 4 x Chinese L-12V-180 diesel engines; ৪,৮০০ অশ্বশক্তি (৩,৬০০ কিওয়াট)
প্রচালনশক্তি: 4 shafts
গতিবেগ: ৩৮ নট (৭০ কিমি/ঘ; ৪৪ মা/ঘ)
সীমা: ৫২০ নটিক্যাল মাইল (৯৬০ কিমি; ৬০০ মা) at ২৬ নট (৪৮ কিমি/ঘ; ৩০ মা/ঘ)
লোকবল: 17
সেন্সর এবং
কার্যপদ্ধতি:
1 × Type 352 Square Tie Surface search radar
রণসজ্জা:
  • 2 × SY-1 missiles
  • 2 × Type 61 25 mm guns (II x 2)
টীকা: Pennant Number: P-8111

বানৌজা দূর্বার বাংলাদেশ নৌবাহিনীর একটি টাইপ ০২৪ ক্ষেপণাস্ত্রবাহী নৌকা। এটি ১৯৮৩ থেকে ২০১৭ পর্যন্ত বাংলাদেশ নৌবাহিনীতে সক্রিয় ছিল।

বানৌজা দুরন্ত ১৯৮৩ সালের ৬ এপ্রিল নৌবাহিনীতে কমিশন লাভ করেছিল। ১৯৯১ সালের ঘূর্ণিঝড়ের জাহাজটি বেশ ক্ষতিগ্রস্ত হয় এবং পরে কয়েকবার মেরামত করা হয়। ৩০ মার্চ ২০১৭ সালে দূর্বারকে বাংলাদেশ নৌবাহিনী থেকে অবসরে পাঠানো হয়েছিল। পরবর্তীতে এটিকে ভেঙে ফেলা হয়।

জাহাজটি দুটি এসওয়াই-১ অ্যান্টি-শিপ মিসাইল বহন করেছিল।[১] এটি দুটি টাইপ ৬১ ২৫ মিমি (IIx2) বন্দুক নিয়েও সজ্জিত ছিল। পৃষ্ঠ অনুসন্ধানের জন্য এটিতে টাইপ ৩৫২ স্কয়ার টাই রাডার ছিল। এটি সোভিয়েতের এম৫০ ইঞ্জিনের চীনা কপি, যার নাম এল-১২ ভি-১৮০ ইঞ্জিন বহন করত যা ৩৮ নট (ঘন্টায় ৭০ কিমি / ৪৪ মাপাঘ) শীর্ষ গতিতে জাহাজটিকে চালাতে পারে।

আরও দেখুন[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]