বাংলাদেশে বন্যা

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন

বাংলাদেশের অবস্থান গাঙ্গেয় ব-দ্বীপ এলাকায় হওয়ায় এবং বাংলাদেশের উপর দিয়ে বঙ্গোপসাগরে প্রবাহিত বিভিন্ন উপনদীর কারণে বাংলাদেশে প্রতি বছরই বর্ষাকালে ছোট থেকে মাঝারি আকারের বন্যা হয়ে থাকে।

বন্যার চিত্র[সম্পাদনা]

বাংলাদেশের রাজধানী ঢাকার একটি বন্যা চিত্র

বন্যার ওপর জলবায়ুর প্রভাব[সম্পাদনা]

সাধারণত বছরের মার্চ থেকে সেপ্টেম্বর মাস বাংলাদেশে বর্ষা ঋতু। এ সময়ের মধ্যে বাংলাদেশের প্রধান নদী ও উপনদীগুলো হিমালয়ের বরফগলা ও বৃষ্টির পানিতে তুলনামূলকভাবে পানির উচ্চ প্রবাহে প্রবাহিত হয় এবং বাংলাদেশ বন্যায় প্লাবিত হয়।[১]

ভৌগলিক অবস্থান, ভূতাত্তিক গঠন ও জনসংখ্যার ঘনত্বের কারণে বাংলাদেশ বিশ্বের সবচেয়ে দুর্যোগপ্রবণ দেশগুলোর মধ্যে অন্যতম। বাংলাদেশ নদীমাতৃক দেশ। বাংলাদেশের মধ্যে দিয়ে ছোট বড় প্রায় ২৩০ টি নদী বয়ে গেছে। মূলত এজন্যই অন্যান্য প্রাকৃতিক দুর্যোগের তুলনায় বাংলাদেশে বন্যার প্রকোপ বেশি।

বন্যা সাধারণত মৌসুমী ঋতুতে হয়ে থাকে (জুন থেকে সেপ্টেম্বর)। প্রতিবছর বাংলাদেশের প্রায় ২৬,০০০ বর্গ কিলোমিটার এলাকা (১৮%) বন্যায় প্লাবিত হয়। অতীতে বন্যা বাংলাদেশে ধ্বংসযজ্ঞ চালিয়েছে বিশেষ করে ১৯৬৬, ১৯৮৮, ১৯৯৮, ২০০৮ এবং ২০১৭ সালে। অর্থ্যাৎ দেখা যায়, প্রতি ১০ বছর পর বাংলাদেশে একটি বড় বন্যা হয়ে থাকে।[২]

বিশ্বের স্বল্পোন্নত দেশগুলোর মধ্যে বাংলাদেশে ১৯৮৮, ১৯৯১ ও ১৯৯৮ সালে ব্যাপক ধ্বংসাত্মক বন্যা হয়।

আরও দেখুন[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. Md. Mizanur Rahman, Md. Amirul Hossain, Amartya Kumar Bhattacharya। "Flood Management In The Flood Plain Of Bangladesh" 
  2. "বন্যা ও বাংলাদেশ - CDA"www.cda.org.bd (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২০১৮-০৯-১০