১৯৮৮-এর বাংলাদেশের বন্যা

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন

১৯৮৮-র বন্যা ছিলো বাংলাদেশে সংঘটিত প্রলংকারী বন্যাগুলোর মধ্যে অন্যতম। আগস্ট-সেপ্টেম্বর মাস জুড়ে সংঘটিত এই বন্যায় দেশের প্রায় ৬০% এলাকা ডুবে যায় এবং স্থানভেদে এই বন্যাটি ১৫ থেকে ২০ দিন পর্যন্ত স্থায়ী ছিলো।[১] এটি ছিলো এদেশের ইতিহাসে সবচেয়ে মারাত্মক ও ক্ষয়-ক্ষতিময় প্রাকৃতিক দুর্যোগ[২] এবং বিশ্বব্যাপী গণ-মাধ্যমেও সেই সময় এই দুর্যোগটি সকলের দৃষ্টি আকর্ষন করতে সক্ষম হয়।

সংগঠিত হওয়ার কারণ[সম্পাদনা]

এই প্রলংকারী বন্যাটি সংগঠিত হওয়ার মূল কারণ ছিলো সারা দেশে প্রচুর বৃষ্টিপাত[৩][৪] এবং একই সময়ে (মাত্র তিন দিনে) দেশের তিনটি প্রধান নদীর পানি প্রবাহ একই সময় ঘটায়[১] নদীর বহন ক্ষমতার অতিরিক্ত পানি প্রবাহিত হয়।

ক্ষয়-ক্ষতির পরিমাণ[সম্পাদনা]

এই বন্যায় বাংলাদেশের প্রায় ৮২,০০০ বর্গ কিমি (সমগ্র দেশের ৬০% এরও অধিক) এলাকা সরাসরি ক্ষতিগ্রস্ত হয়।[১]

পরবর্তী পুনর্বাসন প্রক্রিয়া[সম্পাদনা]

  • ১৯৮৬ সালে পানি সম্পদ মন্ত্রণালয়ের অধীনে গঠিত সারফেস ওয়াটার সিমুলেশন মডেলিং প্রোগ্রাম (SWSMP) ১৯৮৮-র ভয়াবহ বন্যার পরিপ্রেক্ষিতে DHI এর কারিগরী নির্দেশনায় সারফেস ওয়াটার মডেলিং সেন্টার (SWMC) নামে পেশাদারী ইন্সটিটিউট হিসাবে প্রতিষ্ঠিত হয়; যা ২০০২ সালে ১ আগস্ট থেকে ইন্সটিটিউট অব ওয়াটার মডেলিং (iwm) নামে পরিচিতি লাভ করে।[৫]
  • ১৯৮৮ সালের ভয়াবহ ও দীর্ঘস্থায়ী বন্যার পরে বাংলাদেশ সরকার বন্যার কারণ নির্ণয় ও প্রতিকারের জন্য নেয়া ২৬টি বন্যা কর্মপরিকল্পনা (ফ্যাপ) সমীক্ষায় ইউএসএআইডি-এর কারিগরি সহায়তায় সম্পাদিত পরিবেশগত সমীক্ষা (ফ্যাপ ১৬) এবং ভৌগোলিক তথ্য পদ্ধতি (জিআইএস) সমীক্ষা (ফ্যাপ ১৯)-র মাধ্যমে প্রাপ্ত তথ্যের ভিত্তিতে পানি খাতে পরিবেশগত প্রভাব নিরূপণের জন্য একটি নির্দেশিকা তৈরি করা হয়, যা পরবর্তীতে 'ইজিআইএস প্রকল্প'-এ পরিণত হয় এবং নেদারল্যান্ড সরকারের কারিগরি সহায়তায় ২০০২ সালে 'সেন্টার ফর এনভায়রনমেন্টাল এন্ড জিওগ্রাফিক ইনফরমেশন সার্ভিসেস' (সিইজিআইএস) ট্রাস্ট হিসাবে প্রতিষ্ঠা লাভ করে।[৬]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. বাংলাপিডিয়ায় ১৯৮৮-র বন্যা সম্পর্কিত বর্ণনা।
  2. বাংলাদেশে যত বন্যা।
  3. জাতিসংঘ জলবায়ূ সামিট ২০১৪।
  4. "উন্নত দেশের অবস্থান শঙ্কা জাগাচ্ছে"। ৬ মার্চ ২০১৬ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১৮ জুন ২০১৫ 
  5. 'আইডব্লিউএম' গঠনের পটভূমি।
  6. "'সিইজিআইএস' প্রতিষ্ঠার ইতিহাস"। ১৭ জুন ২০১৫ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১৮ জুন ২০১৫