ফ্রিস্টাইল কুস্তি

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন

ফ্রিস্টাইল কুস্তি হল এক ধরনের ধরণের অপেশাদার কুস্তি যেটি বিশ্বজুড়ে চর্চিত। গ্রেকো-রোমান এবং  এটিই হচ্ছে  কুস্তির দুইটি ধরণ যেগুলোতে অলিম্পিক গেইমস্-এ প্রতিযোগিতা হয়ে থাকে। বিভিন্ন নিয়মের অধীনে আমেরিকান হাইস্কুল এবং কলেজ কুস্তি পরিচালিত হয় এবং এগুলোকে যথাক্রমে স্কলাসটিক এবং কলেজিয়েট নামকরণ করা হয়েছে।

ফ্রিস্টাইল কুস্তি

ফোকাস: রেসলিং

প্যারেন্টহুড: ফোক রেসলিং

অলিম্পিক স্পোর্ট : হ্যা, ১৯০৪ হতে

কলেজিয়েট কুস্তির মত, ফ্রিস্টাইল কুস্তিরও উৎপত্তি হয়েছে ক্যাচ কুস্তি থেকে, উভয় ধরণের কুস্তিতেই কুস্তিগিরের চূড়ান্ত উদ্দেশ্য হচ্ছে প্রতিদ্বন্দ্বীকে ম্যাটে নিক্ষেপ করে চেপে ধরা, যার ফলাফল হিসেবে কুস্তিগির তৎক্ষনাৎ জয়লাভ করে। ফ্রিস্টাইল এবং কলেজিয়েট কুস্তিতে, কুস্তিগির তার নিজের বা প্রতিদ্বন্দ্বীর পা কে আঘাত ও প্রতিরোধে ব্যবহার করতে পারে, যেটি গ্রেকো-রোমান কুস্তিতে করা যায় না। ফ্রিস্টাইল কুস্তি গতানুগতিক কুস্তি, জুডো, এবং স্যাম্বো টেকনিককে একত্রে নিয়ে আসে।

বিশ্ব কুস্তির পরিচালনা পর্ষদ, ইউনাইটেড ওয়ার্ল্ড রেস্লিং (UWW) অনুসারে,  বর্তমানে অপেশাদার কুস্তির যে চারটি প্রধান ধরণ আন্তর্জাতিকভাবে চর্চিত হয়, তার মধ্যে একটি হল ফ্রিস্টাইল কুস্তি। কুস্তির অন্যান্য ধরণগুলো হল গ্রেকো-রোমান এবং মল্লযুদ্ধ (যেটি সাবমিশন কুস্তি নামেও পরিচিত)। এক্সিকিউটিভ বোর্ড অফ দ্যা ইন্টারন্যাশনাল অলিম্পিক কমিটি(IOC) কুস্তিকে একটি খেলা হিসেবে অলিম্পিক গেইমস ২০২০ থেকে বাদ দেওয়ার জন্য অনুমোদন করে, কিন্তু পরে তারা এই সিদ্ধান্তটি বাতিল করে।

ইতিহাস

ইউনাইটেড ওয়ার্ল্ড রেস্লিং(UWW) এর মতে, আধুনিক ফ্রিস্টাইল কুস্তির জন্ম হয়েছিল গ্রেট ব্রিটেন এবং যুক্তরাষ্ট্রে, যেটির নাম ছিল "ক্যাচ-এস-ক্যাচ-ক্যান" কুস্তি। গ্রেট ব্রিটেনে "ক্যাচ-এস-ক্যাচ-ক্যান" কুস্তির একটি বিশেষ প্রচলন ছিল, এবং এটির যে পরিবর্তিত রূপ ল্যাংকাশায়ারে বিকশিত হয়েছিল, সেটির একটি বিশেষ প্রভাব ফ্রিস্টাইল কুস্তির উপর রয়েছে। ১৯ শতকে "ক্যাচ-এস-ক্যাচ-ক্যান" কুস্তি মেলা এবং উৎসবে ব্যাপক জনপ্রিয়তা লাভ করেছিল। ক্যাচ-এস-ক্যাচ-ক্যান কুস্তিতে উভয় প্রতিযোগীই দাড়ানো অবস্থায় কুস্তি শুরু করতো, এবং একজন কুস্তিগির তার প্রতিদ্বন্দ্বীর কাঁধকে ভূমিতে চেপে ধরার চেষ্টা করতো (যেটিকে বলা হতো পতন)। যদি কোনো পতন লাভ করা না যেতো, উভয় কুস্তিগিরই কুস্তি চালিয়ে যেতো এবং প্রায় সব ধরণের ধরা ও পদ্ধতি অনুমোদিত ছিল। ল্যাংকাশায়ার কুস্তির একটি স্কটিশ রূপও জনপ্রিয় হয়ে ওঠেছিল, যেটি আরম্ভ হতো কুস্তিগিরদের বুকে বুক লাগিয়ে দাড়ানো অবস্থায় একে অন্যকে শরীরের চারদিকে দুইহাত দিয়ে আঁকড়ে ধরে এবং, যদি কোনো পতন না হতো তখন লড়াইটি ভূমিতেই চলতে থাকতো। এছাড়া, একটি আইরিশ কলার-এন্ড-এলবো স্টাইল ছিলো, যেটিতে কুস্তিগিররা দাড়ানো অবস্থায় একে অন্যকে এক হাতে কলার এবং অন্য হাতে কনুই ধরা অবস্থায় কুস্তি শুরু করতো, যদি কোনো পতন লাভ করা না যেতো, তাহলে কুস্তিগিররা দাড়ানো অবস্থায় এবং মাটিতে কুস্তি চালিয়ে যেতো যতক্ষণ না পতন লাভ করা না যেতো।