পুরীর পঞ্চতীর্থ

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
পুরীর সমুদ্র

পঞ্চতীর্থ বলতে ভারতের পুরী শহরে অবস্থিত পাঁচটি জলাধারকে বোঝায়। হিন্দুরা বিশ্বাস করেন, পুরীতে তীর্থযাত্রা সম্পূর্ণ করতে হলে এই পাঁচটি জলাধারে স্নান করতে হয়।[১][২][৩] এই পাঁচটি জলাধার হল:

  1. ইন্দ্রদ্যুম্ন কুণ্ড: গুণ্ডিচা মন্দিরের কাছে অবস্থিত। মহাভারতে রাজা ইন্দ্রদ্যুম্নের অশ্বমেধ যজ্ঞ ও জগন্নাথ সংস্কৃতির চার প্রধান দেবতার আবির্ভাব বর্ণিত হয়েছে।[৪] এই মহাকাব্যে আছে, কিভাবে সহস্রাধিক গরুর ক্ষুরের চাপে পবিত্র ইন্দ্রদ্যুম্ন জলাধার নির্মিত হয়েছিল। রাজা ইন্দ্রদ্যুম্ন এই জলাধার ব্রাহ্মণদের দান করেছিলেন।
  2. রোহিণী কুণ্ড জগন্নাথ মন্দির চত্বরের মধ্যে বিমলা মন্দিরের কাছে অবস্থিত।[২] এই কুণ্ডকে নারায়ণের বাসস্থান মনে করা হয়। এই জলাধারের কাছে অক্ষয়কল্প বট নামে একটি বটগাছকে পূজা করা হয়। পুরাণ মতে,[৫] ব্যাধ জড়শবর দুর্ঘটনাক্রমে কৃষ্ণকে হত্যা করেন এবং তাঁর সৎকার করেন। কৃষ্ণ জড়কে স্বপ্নে দেখা দিয়ে বলেন, তাঁর দেহাবশেষ একটি কাঠের টুকরোয় পরিণত হয়েছে। টুকরোটি সমুদ্র থেকে রোহিণী কুণ্ডে এসে উঠবে। জড়ের সাহায্যে ইন্দ্রদ্যুম্ন সেই টুকরোটি দেখতে পান। এই টুকরোতেই জগন্নাথের মূর্তি নির্মিত হয়।
  3. মার্কণ্ডেয় কুণ্ড হল পুরীর তীর্থ পরিক্রমার প্রথম স্থান।[২] জলাধারটির আয়তন ৪ একর। এর পাশে মার্কণ্ডেয়েশ্বরের মন্দির আছে।
  4. শ্বেতগঙ্গা কুণ্ড নীলাচলের দক্ষিণে অবস্থিত।[২] এই কুণ্ডের পাশে বিষ্ণুর মৎস্য অবতার ও রাজা শ্বেতের মন্দির আছে।
  5. স্বর্গোদ্বার অঞ্চলের সমুদ্রকে "মহোদধি" বলা হয়। এটি একটি স্নানক্ষেত্র।

অন্য একটি মতে পুরীর পঞ্চতীর্থ হল:[৬]

  1. বলরাম
  2. অক্ষয়বট
  3. মার্কণ্ডেয় কুণ্ড
  4. ইন্দ্রদ্যুম্ন কুণ্ড
  5. সমুদ্র

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "Panch Tirtha of Puri"। Shreekhetra। সংগ্রহের তারিখ ৫ ডিসেম্বর ২০১২ 
  2. Starza, O.M (১৯৯৩)। The Jagannatha Temple at Puri: Its Architecture, Art, and Cult। BRILL। পৃষ্ঠা 10। 
  3. Madan, T.N (১৯৮৮)। Way of Life: King, Householder, Renouncer। Motilal Banarsidass। পৃষ্ঠা 161। 
  4. Das, Suryanarayan (২০১০)। Lord Jagannath। Sanbun। পৃষ্ঠা 13। আইএসবিএন 978-93-80213-22-4 
  5. Panda, S.M (২০০৬)। Lord Jagannātha in Sanskrit literature। Sree। পৃষ্ঠা 88, 93। 
  6. Saraswati, Baidyanath (১৯৮৪)। The Spectrum of the Sacred: Essays on the Religious Traditions of India। Concept Publishing Company। পৃষ্ঠা 41।