পাথরঘাটা কলেজ

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
পাথরঘাটা কলেজ
প্রতিষ্ঠাতা(গণ)
  • মল্লিক মোহাম্মদ আইয়ুব
  • মাওলানা আব্দুর রশিদ চিশতী, পীর সাহেব, চলাভাঙ্গা
  • মোঃ বদিউজ্জামান, তৎকালীন জেলা প্রশাসক
  • দুলাল কৃষাণ হালদার, তৎকালীন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা
  • প্রয়াত আব্দুর রাজ্জাক পহলান
  • প্রয়াত মজিবুল হক
  • প্রয়াত মোহাম্মদ আলী মল্লিক
  • আব্দুল মজিদ মিয়া
  • নুরুল ইসলাম খাঁন (এনআই খাঁন)
প্রতিষ্ঠিত১৯৮৫
কেন্দ্রবিন্দুউচ্চ মাধ্যমিক ও স্নাতক
সভাপতিশওকত হাচানুর রহমান রিমন, এমপি
কর্মচারী৪৭
প্রাক্তন নামপাথরঘাটা ডিগ্রী কলেজ
অবস্থান, , ,
বাংলাদেশ

পাথরঘাটা কলেজ বাংলাদেশের বরগুনা জেলার পাথরঘাটা উপজেলার একটি কলেজ। কলেজটিতে উচ্চ মাধ্যমিক ও স্নাতক শ্রেণীর জন্য পাঠদান করা হয়। উচ্চ মাধ্যমিক শ্রেণী বরিশাল শিক্ষা বোর্ডের অন্তর্ভুক্ত এবং স্নাতক শ্রেণী জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয় অধিভুক্ত।[১][২] কলেজটি ১২ একর জমির প্রতিষ্ঠিত।[৩]

ইতিহাস[সম্পাদনা]

বঙ্গোপসাগর তীরবর্তী পাথরঘাটা একটি উপজেলা হওয়া সত্ত্বেও ছিলো না কোনো উচ্চ মাধ্যমিক পর্যায়ের শিক্ষা প্রতিষ্ঠান। তাই স্থানীয় কয়েকজন শিক্ষানুরাগী ব্যক্তি ১৯৮৫ সালে এ কলেজটি প্রতিষ্ঠা করেন। যাদের মধ্যে উল্লেখযোগ্য কয়েকজন হলো-মল্লিক মোহাম্মদ আইয়ুব, চলাভাঙ্গা দরবার শরীফের পীর সাহেব মাওলানা আব্দুর রশিদ চিশতী, তৎকালীন জেলা প্রশাসক মোঃ বদিউজ্জামান, তৎকালীন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা দুলাল কৃষাণ হালদার, প্রয়াত আব্দুর রাজ্জাক পহলান, প্রয়াত মজিবুল হক, প্রয়াত মোহাম্মদ আলী মল্লিক, আব্দুল মজিদ মিয়া এবং নুরুল ইসলাম খাঁন (এনআই খাঁন)। ১৯৮৫ সালের ১লা জুলাই কলেজটির শ্রেণী কার্যক্রম শুরু হয়। বর্তমানে প্রায় ১২০০ ছাত্র-ছাত্রী ও ৪৭ জন টিচিং ও নন-টিচিং কর্মচারী রয়েছে।[৪]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "পাথরঘাটা উপজেলা" |ইউআরএল= এর মান পরীক্ষা করুন (সাহায্য)http (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২০১৯-১২-১৬ [স্থায়ীভাবে অকার্যকর সংযোগ]
  2. Dainikshiksha। "শিক্ষক নিয়োগ দেবে পাথরঘাটা কলেজ - দৈনিকশিক্ষা"Dainik shiksha (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২০১৯-১২-১৬ 
  3. "পাথরঘাটা কলেজটি সরকারি করা হোক"The Daily Sangram। সংগ্রহের তারিখ ২০১৯-১২-১৬ 
  4. "PATHARGHATA COLLEGE"www.barisalboard.gov.bd। সংগ্রহের তারিখ ২০১৯-১২-১৬