পাকড়া ঝাড়ফিদ্দা

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
সরাসরি যাও: পরিভ্রমণ, অনুসন্ধান
Pied bush chat,Saketarri, near Sukhna Lake, Chandigarh, India)
পাকড়া ঝাড়ফিদ্দা
Pied bushchat fem.jpg
Female of burmanicus
বৈজ্ঞানিক শ্রেণীবিন্যাস
জগৎ: Animalia
পর্ব: কর্ডাটা
শ্রেণী: পক্ষী
বর্গ: Passeriformes
পরিবার: Muscicapidae
গণ: Saxicola
প্রজাতি: S. caprata
দ্বিপদী নাম
Saxicola caprata
Linnaeus, 1766
প্রতিশব্দ

Pratincola caprata

পাকড়া ঝাড়ফিদ্দা (বৈজ্ঞানিক নাম: Saxicola caprata); (ইংরেজি ভাষায়: Pied Bush Chat) কালো ও সাদা পালকের দুর্লভ পাখি। ভারত, বাংলাদেশ, ভুটান, মিয়ানমার, থাইল্যান্ড, চীন, তিব্বত, জাপান, এবং রাশিয়ায় এই পাখি দেখা যায়।[২]

বিচরণ[সম্পাদনা]

Female of race bicolor, India

সাধারণত উঁচু ঘাসবন, বিচ্ছিন্ন ঝোপসহ খোলা মাঠ, পাহাড়ের পাদদেশ, জলের ধারের আবাদি জমিতে এ পাখি বিচরণ করে।[২]

স্বভাব[সম্পাদনা]

একাকী থাকে বেশি সময়। একাকী পুরুষ পাখি বিরতি দিয়ে একটানা অনেকক্ষণ ডাকাডাকি করে। ডাকের ধরন চ্যাপ-চ্যাপ-ট্রিউয়ি। তবে প্রজনন মৌসুমে হুয়িট-হুয়িট-টিটি-হুয়ি..টিয়্যার-টিউহু সুরে ডাকে।[২]

আকার[সম্পাদনা]

এটি পোকাশিকারি ছোট পাখি। দেহের দৈর্ঘ্য ১৩ সেন্টিমিটার, ওজন ১৫ গ্রাম। পুরুষ ও স্ত্রী পাখি দেখতে অভিন্ন। প্রাপ্তবয়স্ক পুরুষ পাখির দেহ কালো বর্ণের পালকে আবৃত থাকে। ডানার প্রান্ত, পেট ও কোমরের পালক সাদা বর্ণের। স্ত্রী পাখির পিঠের দিকটা কালচে বাদামি, দেহের নিচের দিক লালচে বাদামি। ডানার প্রান্তদেশ পীতাভ। কোমর উজ্জ্বল লালচে-কমলা পালকে আবৃত। লেজ কালো ও গলা ফিকে। উভয় পাখির চোখ কালচে বাদামি, ঠোঁট কালচে। পা, পায়ের পাতা ও নখর কালো।[২]

প্রজননকাল[সম্পাদনা]

প্রজননকাল মার্চ-আগস্ট মাসে। ভূমিতে ঘাসের গোছার নিচে, আইলের গর্তে বাসা বানিয়ে ডিম পাড়ে। ডিমগুলো ফিকে নীল, সংখ্যায় তিন-পাঁচটি। প্রধানত স্ত্রী পাখি ডিমে তা দেয়, ডিম ফুটে ছানা আসে ১২ থেকে ১৩ দিনে।[২]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. BirdLife International (২০১২)। "Saxicola caprata"বিপদগ্রস্ত প্রজাতির আইইউসিএন লাল তালিকা। সংস্করণ 2012.1প্রকৃতি সংরক্ষণের জন্য আন্তর্জাতিক ইউনিয়ন। সংগৃহীত ১৬ জুলাই ২০১২ 
  2. পাকড়া ঝাড়ফিদ্দা,সৌরভ মাহমুদ, দৈনিক প্রথম আলো। ঢাকা থেকে প্রকাশের তারিখ: ১৫-১১-২০১২ খ্রিস্টাব্দ।

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]