পাঁচশালা বন্দোবস্ত

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন

পাঁচশালা বন্দোবস্ত হচ্ছে ভারতবর্ষে ইংরেজ শাসনকালে রাজস্ব সংগ্রহের কার্যক্রম । যা হেস্টিংসের ভূমিরাজস্ব ব্যবস্থা  নামে পরিচিত।

হেস্টিংসের ভূমিরাজস্ব ব্যবস্থা বা [Land-Revenue Reforms of Warren Hastings]

বন্দোবস্তের প্রভাব[সম্পাদনা]

১৭৬৫ সালে ইস্ট ইন্ডিয়া কোম্পানি মুঘল সম্রাট হতে দেওয়ানী লাভ করে বাংলায় রাজস্ব ক্ষমতা গ্রহণ করার সাথে শুরু হয়ে যায় বাঙালী তথা কৃষকদের উপর নির্যাতনের স্মরণাতীত কালের ভয়াবহতম অধ্যায়ের। যারা নির্যাতিত হতেন তার অধিকাংশ ছিল মুসলিম। শুরু হয় ইংরেজ দ্বারা বাঙ্গালীদের (কৃষকের) উৎপাদিত ফসল গুদামজাত করে কৃত্রিম পরিকল্পিত সংকটে ফেলে নিম্নবিত্ত বাঙালীদের ভিটেমাটি থেকেও তাড়ানাের প্রতিযােগিতা। ফলে দেখা দিল ইতিহাসের ভয়াভহ দুর্ভিক্ষ, যা ১১৭৬ বাংলায় (১৭৬৯খ্রিঃ সন) হয়েছিল বলে ইতিহাসে ছিয়াত্তরের মন্বন্তর নামে পরিচিত।[১] এ দুর্ভিক্ষ বাংলার মােট জনসাধারণের এক তৃতীয়াংশের মৃত্যু ঘটলেও পরিসংখ্যানে দেখা যায়, ইংরেজরা কৃষকদের নিকট থেকে জোর পূর্বক রাজস্ব আদায়ে পিছিয়ে ছিলনা।দুর্ভিক্ষের পূর্বে ১৭৬৮ খ্রিষ্টাব্দে বাংলাদেশএর রাজস্ব ছিলাে ১,৫২০৪৮৫৬ টাকা, কিন্তু দুর্ভিক্ষের পর ১৭৭১ খ্রিষ্টাব্দে প্রদেশের এক তৃতীয়াংশ মানুষ মৃত্যু মুখে পতিত হওয়ার পরও মােট রাজস্ব বৃদ্ধি পেয়ে দাঁড়ায় ১,৫৭২৬৫৭৬ টাকায়। William Wilson Hunterকৃত The Annals of Rural Bengal[২][৩][৪] এবং সুপ্রকাশ রায় কৃত, ভারতের কৃষক বিদ্রোহ, প্রথম খণ্ড পৃঃ ১৫)[১][৫][৬]

এরপরও সন্তুষ্ট নয় ইংরেজরা, তাই পাঁচশালা বন্দোবস্ত, একশালা বন্দোবস্ত, দশশালা বন্দোবস্ত এবং শেষ পর্যন্ত ১৭৯৩ খ্রিষ্টাব্দে গভর্নর জেনারেল লর্ড কর্নওয়ালিশ চার্লস কর্নওয়ালিস জমিদার কর্তৃক বাংলার নিম্নবিত্ত এবং কৃষকদের উপর শােষণ ও নির্যাতনের স্থায়ী ব্যবস্থা হিসেবে চিরস্থায়ী বন্দোবস্ত প্রতিষ্ঠা করা হয়।[১]

এ বন্দোবস্ত অনুযায়ী জমিদাররা আদায়কৃত রাজস্বের নয়দশমাংশ কোম্পানীর কাছে প্রদানের ব্যবস্থা হয়। যেহেতু কৃষকরা ছিল মুসলমান আর জমীদাররা ছিল হিন্দু।সুতরাং হিন্দু কর্তৃক মুসলমান শােষণ নির্যাতনের স্থায়ী ব্যবস্থা করে দিল ইংরেজরা।সুতরাং শারীরিক মানসিক নির্যাতনের মাধ্যমে সর্বশক্তি নিয়ােগ করে চলতে লাগলাে জমিদার কর্তৃক রাজস্ব আদায়ের অমানবিক মহড়া।জমিদার, ইজারাদার, পত্তনিদার, প্রভৃতি রংবেরং এর মধ্যসত্বভােগী (ইংরেজ দালাল হিন্দু অভিজাত শ্রেণী) শােষকরা মুসলিম কৃষকদের ওপর নানা প্রকার নির্যাতন চালাতাে।[১] [৭][৮][৯]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "রাজনীতির আড়াইশ বছর - Apps on Google Play"play.google.com (ইংরেজি ভাষায়)। 
  2. Hunter, William Wilson (১৮৬৮)। "The Annals of Rural Bengal" (ইংরেজি ভাষায়)। Smith, Elder। 
  3. Hunter, William Wilson (১৮৬৮)। "The annals of rural Bengal"। New York : Leypoldt and Holt। 
  4. "Annals of rural Bengal: Hunter William Wilson: 9785518450332: Amazon.com: Books"www.amazon.com 
  5. "ভারতের কৃষকের-বিদ্রোহ ও গণতান্ত্রিক সংগ্রাম - সুপ্রকাশ রায়"www.rokomari.com (ইংরেজি ভাষায়)। 
  6. "ভারতের কৃষক-বিদ্রোহ ও গণতান্ত্রিক সংগ্রাম" (Bengali ভাষায়)। ডি এন বি এ ব্রাদার্স। [স্থায়ীভাবে অকার্যকর সংযোগ]
  7. Hunter, William Wilson (১০ অক্টোবর ২০১৮)। "The Indian Musalmans" (ইংরেজি ভাষায়)। Creative Media Partners, LLC। 
  8. বাঙালী বুদ্ধিজীবী ও বিচ্ছিন্নতাবাদ - অমলেন্দু দে | বইবাজার.কম 
  9. "বাঙালী বুদ্ধিজীবী ও বিচ্ছিন্নতাবাদ - অমলেন্দু দে | বইবাজার.কম"BoiBazar.com