বিষয়বস্তুতে চলুন

নবীদের পথ

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
নবীদের পথ (নীল) সাথে ভায়া মারিস (বেগুনি) এবং রাজার মহাসড়ক (লাল)

নবীদের পথ অথবা কুলপিতাদের পথ (হিব্রু ভাষায়: דֶּרֶךְ הֲאָבוֹתদেরেখ হা'আভত আক্ষ.'পিতাদের পথ'), ছিল ইস্রায়েল দেশের ভেতর দিয়ে বয়ে চলা একটি প্রাচীন উত্তর-দক্ষিণ মুখী সড়কপথ।[১] এই নামটি বাইবেলীয় গবেষকেরা ব্যবহার করেন কারণ বিভিন্ন বাইবেলীয় বর্ণনায় উল্লেখ রয়েছে যে পথটি ব্যবহার করে সচরাচর নবী আব্রাহাম, ইস্‌হাকযাকোব ভ্রমণ করতেন।[২]

এই সড়কপথকে পাহাড়ি সড়ক বা শৈলশিরা পথও বলা হয়ে থাকে[৩] কেননা এটা শমরীয়যিহূদীয় পর্বতমালার জলবিভাজিকীয় শৈলশিরা রেখা দিয়ে চলে। এটি মেগিদোহাজোর থেকে দক্ষিণে শেখেম হয়ে বে-এরশেভা পর্যন্ত,[৪] বেথেল, জেরুসালেম, ইফ্রথ এবং হেবরনের মধ্য দিয়ে যায়। যেখানে প্রাচীন ভায়া মারিসরাজার মহাসড়ক আন্তর্জাতিক পথ হিসেবে বিভিন্ন দেশের মধ্য দিয়ে যেতো সেখানে এই শৈলশিরা পথ শুধু ইসরায়েলের ভেতর দিয়ে যেতো।[তথ্যসূত্র প্রয়োজন] আব্রাহাম এই পথ ব্যবহার করত। এই ভূমিতে প্রবেশের পর আব্রাহাম শেখেম গিয়ে তারপর বেথ এল হয়ে হেবরন ও সবশেষে বে-এরশেভায় পোঁছেছিল।[তথ্যসূত্র প্রয়োজন]

আধুনিক সমতুল্য

[সম্পাদনা]

আধুনিক মহাসড়ক ৬০ মূলত নবীদের পথ ধরে প্রবাহিত হয়[৩] (সম্প্রতি নির্মিত বাইপাস ব্যতীত), যা আফুলা, জেনিন, নাবলুস, রামাল্লাহ, জেরুসালেম, বেথেলহাম, হালহুল, হেবরন এবং আদ-দাহিরিয়ার ভেতর দিয়ে অতিক্রম করে।[তথ্যসূত্র প্রয়োজন]

প্রত্নতাত্ত্বিক অনুসন্ধান

[সম্পাদনা]

ধর্মানুষ্ঠানীয় স্নানঘর

[সম্পাদনা]
আলন শভুতের নিকটে মিকভে সংলগ্ন রোমান মাইলফলক

পথে অবস্থিত অনেক স্টেশন বে-এরশেভা ও জেরুসালেম মধ্যকার অংশে পাওয়া গেছে যেগুলো প্রাচীন উপাসনালয়[সন্দেহপূর্ণ ] এবং পরবর্তী হেলেনীয় ও রোমান আমলের।[তথ্যসূত্র প্রয়োজন] ধর্মানুষ্ঠানীয় স্নানঘর (মিকভত, হিব্রু: מקוואות) যেগুলো যাত্রার সময় তীর্থযাত্রীরা ব্যবহার করত।[৫][৬]

মাইলফলক

[সম্পাদনা]

পথগুলোতে অনেক মাইলফলক পাওয়া গেছে যা নির্দেশ করে এমনকি রোমান আমলেও এই সড়কপথ প্রধান সড়ক হিসেবে ব্যবহৃত হত।[তথ্যসূত্র প্রয়োজন] পাথরের মাইলফলকগুলো জেরুসালেম থেকে দূরত্ব নির্দেশ করে।[তথ্যসূত্র প্রয়োজন]

বাইবেলীয় ঘটনা

[সম্পাদনা]

মাক্কাবীয়দের বেথ জেকারিয়াহ লড়াই

[সম্পাদনা]

নবীদের পথ খিরবেত বেইত জাকারিয়াহ নামক ছোট ফিলিস্তিনি গ্রাম অতিক্রম করে যা আলন শেভুতের ইসরায়েলি বসতির নিকট অবস্থিত। সম্ভবত এটি ইয়েহুদাহ হামাকাবিসেলেউসিড গ্রিকদের মধ্যকার বেথ জেকারিয়ার লড়াইয়ের স্থান। এটি সেই জায়গা যেখানে ইয়েহুদার ভাই ইলিয়াজার হামাকাবি দ্বারা গ্রিক হাতি মারার পর তাকে হত্যা করা হয়। এই ঘটনাটি সংলগ্ন সম্প্রদায় এলিয়াজারের নামে স্মরণ করা হয়।[তথ্যসূত্র প্রয়োজন]

গিবিয়ার লড়াই

[সম্পাদনা]

বিচারকদের পুস্তকে উল্লেখিত পাহাড়ের উপপত্নীর বাইবেলীয় গল্প গিবিয়ার লড়াইয়ের দিকে ধাবিত করে (বিচারকর্ত্তৃগণের বিবরণ ১৯), যা একটি ছোট পারিবারিক কাফেলার শৈলশিরার পথ ব্যবহার করে বেথেলহাম থেকে জেরুসালেমে যেতে দেখা যায়। গিবিয়া স্থানটিকে এল-ফুল হিসেবে চিহ্নিত করা হয়েছে।[তথ্যসূত্র প্রয়োজন]

প্রাচীন জেরুসালেমের নিকট সড়কপথ

[সম্পাদনা]

প্রাচীন জেরুসালেম (আজকের পুরনো শহর) পর্বতের শৈলশিরায় অবস্থিত ছিল না। প্রকৃতপক্ষে, শৈলশিয়া পথটি সরাসরি প্রাচীন শহরটির ভেতর দিয়ে যেত না বরঞ্চ শহরটির পশ্চিমে প্রাচীর থেকে কুড়ি মিনিটের দূরত্বে অবস্থিত ছিল। বেথেল থেকে দক্ষিণে পথটি আজকের বেইত হানিনা, শুয়াফাত, হাগিভা হাতজারফাতিত, গিভাত হামিভতারকেরেম আভ্রাহাম শহরতলি হয়ে জাফফা সড়ক অতিক্রম করে আধুনিক জেরুসালেমের হানাশবির ডিপার্টমেন্টাল স্টোর ভবনের পেছন দিয়ে শমুয়েল হানাগিদ স্ট্রিট, রাজা জর্জ স্ট্রিট, কেরেন হাইয়েসোদ স্ট্রিট এবং অবশেষে হেবরন সড়ক পার হয়ে জেরুসালেম যেত।[তথ্যসূত্র প্রয়োজন]

পূর্ব-পশ্চিম সংযোগ

[সম্পাদনা]
নবীদের পথ জুড়ে আরোহন পথগুলো (নীল):
১–সূর্যাস্ত সড়ক
২–লাল পথ
৩–অফেক পথ
৪–বেইত হরোন পথ
৫–আয়ালন সড়ক
৬–লাখিশ সড়ক

এই পথটি ভায়া মারিস ও রাজার মহাসড়কের সাথে বিভিন্ন পূর্ব-পশ্চিম সড়কের মাধ্যমে সংযুক্ত রয়েছে:

একটি গুরুত্বপূর্ণ সংযোগ ছিল "সূর্যাস্ত সড়ক" (হিব্রু ভাষায়: דֶּרֶךְ מְבוֹא הַשֶּמֶשদেরেখ মেভো হাশেমেশ) (Deut) যা রাজার মহাসড়ক থেকে জর্ডান নদী আজকের আদম সেতু (জিসার দামিয়াত) হয়ে অতিক্রম করে এবং তিরজা উপত্যকা (ওয়াদি আল ফারা) থেকে গেরিজিম পর্বতশেখেমে পৌঁছায়। বর্তমান মহাসড়ক ৫৭-এর পূর্বদিকে বাঁক নেওয়া উপপথটি এই প্রাচীন পথ মোটামুটি অনুসরণ করে ধাবিত হয়।[তথ্যসূত্র প্রয়োজন]

"লাল পথ" (হিব্রু ভাষায়: מַעֲלֵה אֲדֻמִּיםমা'আলে আদুমিম) (যিহোশূয় ১৫:৭যিহোশূয় ১৮:১৭) যিহূদা গোষ্ঠীর চারদিকে একটি সীমানা তৈরি করেছিল যা আখোর উপত্যকা থেকে দবীরগিলগলের দিকে উত্তরে ঘুরে যায়। এর নাম নাওয়া হয়েছে পথটিতে সারিকৃত লাল শিলা থেকে। জেরুসালেম ও জর্ডান উপত্যকা মধ্যকার মহাসড়ক ১ এই প্রাচীন পথ অনুসরণ করে।[তথ্যসূত্র প্রয়োজন]

শেখেমের পশ্চিমে প্রাচীন "আফেক পথ" ভায়া মারিস থেকে ও উপকূলীয় ভূমি থেকে আফেক, সকো ও আজকের কফের সাবাকালকিলিয়াহ অতিক্রম করে। মহাসড়ক ৫৫ এই পথের পূর্বাংশ অনুসরণ করে।[তথ্যসূত্র প্রয়োজন]

"বেথরোন পথ" (হিব্রু ভাষায়: מַעֲלֵה בֵּית חוֹרוֹןমা'আলে বেইত হরোন) (যিহোশূয় ১০:১০) উপকূলীয় ভূমি হতে আজকের বেন গুরিয়ন বিমানবন্দর গিয়ে তারপর জলাশয়ের শৈলশিরার শাখায় আরোহন করে আজকের বেইত হানিনায় যায় যা জেরুসালেমে গিয়ে পৌঁছে। আজকের সড়কপথ ৪৪৩ ছোটখাট বিচ্যুতি সহ এই প্রাচীন পথ অনুসরণ করে।[তথ্যসূত্র প্রয়োজন]

জাফফা থেকে জেরুসালেমে আয়লোনের সমভূমি হয়ে চলা আরোহন পথটি বর্তমানে সড়কপথ ৪১২, মহাসড়ক ৪৪ এবং সড়কপথ ১ অনুকরণ করেছে।[তথ্যসূত্র প্রয়োজন]

আরো দক্ষিণে, মহাসড়ক ৩৫ গাজা, আশকেলন ও আশদোদ থেকে লাখিশ অঞ্চল হয়ে হেবরন পর্যন্ত অতিক্রম করে প্রাচীন "লাখিশ সড়ক"-এর অনেকটাই অনুসরণ করেছে।[তথ্যসূত্র প্রয়োজন]

আরো দেখুন

[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র

[সম্পাদনা]
  1. "Major Trade Routes"BibArch। Living University। ২০১১-০২-১৯। ২০১২-০১-০৬ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০১২-০১-০৮ 
  2. Freedman, David Noel; Myers, Allen C.; Beck, Astrid Biles (২০০০)। Eerdmans Dictionary of the Bible। Wm. B. Eerdman's Publishing Co.। পৃষ্ঠা 1133। আইএসবিএন 9780802824004। সংগ্রহের তারিখ ২০১৩-০৩-১৪ 
  3. Juengst, Sara Covin (২০০২)। The Road Home: Images for the Spiritual Journeyবিনামূল্যে নিবন্ধন প্রয়োজন। Westminster John Knox Press। পৃষ্ঠা 9আইএসবিএন 9780664224264। সংগ্রহের তারিখ ২০১৩-০৩-১৪way of the patriarchs route. 
  4. "Sebaste (Samaria)"Jewish Virtual Library। American-Israel Cooperative Enterprise (AACE)। ২০১১। সংগ্রহের তারিখ ২০১২-০১-০৮ 
  5. Katznelson, Natalya (২০০৬)। "Early Roman Glass Vessels from Judea"AIHV Annales of the 17th Congress। Antwerp University Press। 8: 167। আইএসবিএন 9789054876182। সংগ্রহের তারিখ ২০১১-১১-০৮ 
  6. Goren-Rosen, Y. (১৯৯৯)। "The glass vessels from the miqveh near Alon Shevut"Atiqot। Israel Antiquities Authority। 38: 85–90। আইএসএসএন 0792-8424। সংগ্রহের তারিখ ২০১১-১১-০৮