নতুন বছর

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
নতুন বছরের (নববর্ষের) আতশবাজি

নববর্ষ বা নতুন বছর হল সেই সময় বা দিন যখন থেকে একটি নতুন পঞ্জিকার বছর শুরু হয় এবং পঞ্জিকার বছরের গণনা এক এক করে বৃদ্ধি হয়।

অনেক জাতিই বেশকিছু সাংস্কৃতিক আচার-অনুষ্ঠানের মাধ্যমে দিনটি উদযাপন করে এবং জানুয়ারীর প্রথম দিনটি প্রায়শই জাতীয় ছুটির দিন হিসাবে ঘোষণা করা হয়েছে।

বিশ্বের সবচেয়ে ব্যাপকভাবে প্রচলিত বর্ষপঞ্জি হল গ্রেগরীয় বর্ষপঞ্জি, আর তাতে নতুন বছর শুরু হয় জানুয়ারির ১ তারিখে (নতুন বছরের দিন)। রোমান বর্ষপঞ্জি (কমপক্ষে ৭১৩ খ্রিস্টপূর্বাব্দে) এবং জুলীয় বর্ষপঞ্জি উভয় ক্ষেত্রে এটি একই ছিল।

বিশ্বের বিভিন্ন অংশে ঐতিহাসিকভাবে অন্যান্য ভিন্ন বর্ষপঞ্জি ব্যবহৃত হয়েছে; কিছু বর্ষপঞ্জির সংখ্যা গণনা করা হয়, আবার কিছুর গণনা করা হয় না।

মধ্যযুগে পশ্চিম ইউরোপের দেশ গুলিতে যখন জুলীয় বর্ষপঞ্জি ব্যবহার করা হত, বিভিন্ন অঞ্চলে স্থানীয়র উপর নির্ভর করে বিভিন্ন সময়ে নববর্ষ গণনা করা হত; যেমন ১ মার্চ, ২৫ মার্চ, ১ সেপ্টেম্বর, ২৫ ডিসেম্বর। ১৫৮২ সালে গ্রেগরীয় বর্ষপঞ্জী চালু করা হয় এবং পুরাতন পদ্ধিতি ও নতুন পদ্ধতির তারিখগুলোতে যথেষ্ট পরিবর্তন সাধিত হয় যার ফলে নতুন বছরের জন্য বিভিন্ন স্থানীয় তারিখের বদলে একটি নির্দিষ্ট তারিখ (১ জানুয়ারি) প্রবর্তিত হয়।

মাস বা মৌসুম অনুযায়ী[সম্পাদনা]

জানুয়ারি[সম্পাদনা]

  • ১ জানুয়ারী: বিশ্বের বেশিরভাগ দেশে ব্যবহৃত গ্রেগরীয় বর্ষপঞ্জি অনুযায়ী নাগরিক বছরের প্রথম দিন।

ঐতিহাসিক ইউরোপীয় নববর্ষের দিন[সম্পাদনা]

রোমান প্রজাতন্ত্র এবং রোমান সাম্রাজ্যের সময় প্রত্যেক কনসাল বা শাসক প্রথম দপ্তরে বসার দিন থেকে বছরের দিন গণনা শুরু হয়েছিল। এটি সম্ভবত খ্রিস্টপূর্ব ২২২ সালের আগে ১ মে, খ্রিস্টপূর্ব ২২২ থেকে ১৫৪ খ্রিস্টপূর্ব ১৫ মার্চ,[১] এবং খ্রিস্টপূর্ব ১৫৩ থেকে ১ জানুয়ারী হয়।[২] খ্রিস্টপূর্ব ৪৫ সালে যখন জুলিয়াস সিজার নতুন জুলীয় বর্ষপঞ্জি কার্যকর করেছিল, তখন সিনেট বছরের প্রথম দিন হিসাবে ১ জানুয়ারিকে স্থির করে। সেই সময় এই তারিখটি ছিল যাঁরা নাগরিক পদে অধিষ্ঠিত হবেন, তাদের অফিসিয়াল পদ গ্রহণের দিন, এবং এটি রোমান সেনেট আহ্বানের জন্য ঐতিহ্যবাহী বাৎসরিক দিবস ছিল। এই নাগরিক নববর্ষটি জুলিয়াস সিজারের পুরো জীবদ্দশায় এবং পূর্বের পশ্চিমে রোমান সাম্রাজ্য জুড়ে কার্যকর ছিল এবং যেখানে জুলীয় বর্ষপঞ্জি ব্যবহার অব্যাহত ছিল।

পঞ্চম থেকে দশম শতকের মধ্যে ইংল্যান্ডে অ্যাঙ্গেল, স্যাকসন এবং ভাইকিং আক্রমনের ফলে এই অঞ্চলটিকে কিছু সময়ের জন্য পূর্ব-ইতিহাসে নিমজ্জিত হয়ে পড়িছিল। খ্রিস্টধর্মের পুনঃপ্রবর্তনটি জুলীয় বর্ষপঞ্জিকে জীবিত করে, তবে এর ব্যবহারটি প্রাথমিকভাবে গির্জার পরিষেবাতে শুরু হয়েছিল। ১০৬৬ সালে দিগ্ববিজয়ী উইলিয়াম রাজা হওয়ার পর, তিনি ১ জানুয়ারিকে নাগরিক নববর্ষ হিসাবে পুনরায় প্রতিষ্ঠিত করার আদেশ দিয়েছিলেন। যাইহোক, পরবর্তীতে ইংল্যান্ড এবং স্কটল্যান্ড ২৫ মার্চ নববর্ষ উদযাপন করতে ইউরোপের বেশিরভাগ অংশের সাথে যোগ দিয়েছিল।[৩]

আরও দেখুন[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. Arthur M. Eckstein (১৯৮৭)। Senate and General: Individual Decision-making and Roman Foreign Relations, 264-194 B.C.University of California Press। পৃষ্ঠা 16। 
  2. "Roman Dates: Eponymonous Years"। এপ্রিল ৫, ২০০৫ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ অক্টোবর ২৪, ২০১৯ 
  3. Ritter, R. M. (২০০৫), New Hart's Rules:The Handbook of Style for Writers and Editors: The Handbook of Style for Writers and Editors, Oxford University Press, পৃষ্ঠা 194, আইএসবিএন 9780191650499