দীপিকা পল্লীকল কার্তিক

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
দীপিকা পল্লীকাল কার্তিক
Dipika Pallikal (India) defeated Jaclyn Hawkes (New Zealand) in the women's semifinals 06 (cropped).jpg
দীপিকা
পূর্ণ নামদীপিকা রেবেকা পল্লীকাল
কার্তিক[১]
দেশ ভারত
জন্ম (1991-09-21) ২১ সেপ্টেম্বর ১৯৯১ (বয়স ২৮)[২]
চেন্নাই, তামিলনাড়ু, ভারত
উচ্চতা১৭১ সেমি (৫ ফু   ইঞ্চি)
ওজন৬৯ কেজি (১৫২ পা; ১০.৯ স্টো)
অংশগ্রহণ২০০৬
অবসরসক্রিয়া
খেলাডান হাতি
কোচসারাফিটজ-জেরাল্ড
র‌্যাকেটটেকনিফাইবার
মহিলাদের ব্যক্তিগত
সর্বোচ্চ র‌্যাঙ্কনা। ১০ (ডিসেম্বর ২০১২)
বর্তমান র‌্যাঙ্কনা। ১৯ (অগাস্ট ২০১৬)
শিরোপা১১
ওয়ার্ল্ড ওপেনকিউএফ (২০১১)
সর্বশেষ হালনাগাদ: ৩০ এপ্রিল ২০১৮।

দীপিকা রেবেকা পল্লীকাল কার্তিক (ইংরেজি: Dipika Rebecca Pallikal Karthik), (জন্ম ১৯৯১ সালের ২১ সেপ্টেম্বর) একজন ভারতীয় পেশাদার স্কোয়াশ খেলোয়াড়। তিনি পিএসএ উইমেন'স রেঙ্কিংয়ে প্রথম দশের মধ্যে স্থান পাওয়া প্রথম ভারতীয়।

দীপিকা ২০১১ সালে পরিচিত পান, যখন তিনি ১৩ তম ক্যারিয়ারের সেরা রেঙ্কিং অর্জনের জন্য তিনটি ডাব্লিউআইএসপিএ ট্যুর শিরোপা জিতেছিলেন। ২০১২ সালের ডিসেম্বরে তিনি প্রথম দশের তালিকায় স্থান পান।[৩]

প্রাথমিক জীবন[সম্পাদনা]

দীপিকার চেন্নাইয়ের একটি মালায়ালী পরিবারে জন্মগ্রহণ করেন।[৪] তিনি মূলত কেরালা রাজ্যের সঞ্জীব এবং সুসান পল্লীকালের (ইটিচিরিয়া) কন্যা।[৫][৬] তার মা ভারতীয় মহিলা দলের জন্য আন্তর্জাতিক ক্রিকেট খেলেন।[৭][৮] দীপিকা লন্ডনে তার প্রথম আন্তর্জাতিক প্রতিযোগিতায় অংশ নেন যখন তিনি তার ষষ্ঠ শ্রেণিতে ছিলেন এবং ইউরোপীয় জুনিয়র স্কোয়াশ সার্কিটে বেশ কয়েকটি প্রতিযোগিতা জিতেছিলেন।

ব্যক্তিগত জীবন[সম্পাদনা]

দীপিকা ইংরেজিতে অধ্যয়নরত ইথিয়ারাজ কলেজে অধ্যয়ন করেন (তৃতীয় বছর ২০১২-২০১৩)। ১৫ নভেম্বর ২০১৩ সালে, তিনি ভারতীয় ক্রিকেটার দিনেশ কার্তিককের সাথে বিবাহের বাগ্দান হয়।[৯][১০] তিনি ১৮ই আগস্ট, ২০১৫ এবং ২০ আগস্ট ২০১৫ এ যথাক্রমে উভয় চিরাচরিত খ্রিস্টীয় বিয়ের নিয়মে এবং হিন্দু বিয়ের নিয়মে বিয়ে করেন। [১১]

দীপিকা এছাড়াও ক্রীড়া ভিত্তিক ইকমার্সে জড়িত; তিনি sports365.in এর একজন ব্র্যান্ড অ্যাম্বাসেডর, যারা অনলাইনে ক্রীড়া সামগ্রী এবং ফিটনেস সরঞ্জাম বিক্রয় করে। তিনি অ্যাডিডাসের দ্বারা স্পন্সর।

কর্মজীবন[সম্পাদনা]

দীপিকা ২০০৬ সালে পেশাদারে পরিণত হন,[১২] কিন্তু প্রাথমিকভাবে তার কর্মজীবন কখনও ভাল কখনও খারাপ ছিল। তিনি আরও সুদৃঢ় হয়ে ওঠেন এবং ২০১১ সালের শুরুতে মিশরে তার সংক্ষিপ্ত প্রশিক্ষণ কর্মসূচির পর থেকে তার পারফরম্যান্স ভালো হতে শুরু করে আর তার বিজয়ী জয়যাত্রার শুত্রপাত ঘটে।[১২]

২০১১ সালে, তিনি তিনটি ডাব্লিউআইএসপিএ ট্যুর ইভেন্ট জয় করেন। সেপ্টেম্বরে ক্যালিফোর্নিয়ার ইর্ভিনে অরেঞ্জ কাউন্টি ওপেন।[১৩] দ্বিতীয়টি মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে অন্য একটি ডাব্লিউআইএসপিএ ট্যুর ইভেন্ট।[১৩] তৃতীয়টি, ডিসেম্বর মাসে হংকং-এ ক্রকোডাইল চ্যালেঞ্জ কাপ জয় করে এবং তাকে বিশ্বের রেঙ্কিংয়ে ১৭ তম স্থানে নিয়ে আসে।[১৩] তবে তার ওয়ার্ল্ড ওপেনের পারফরম্যান্স ছিল যা তাকে প্রচার মাধ্যমে নিয়ে আসে। তিনি প্রথম আটে উঠে আসেন। ২০১২ সালের ফেব্রুয়ারিতে এই জয়লাভের ফলে ১৪ রেঙ্কিং করেন, যা ভারতীয় দ্বারা আগের শ্রেষ্ঠ বিশ্বের রেঙ্কিং অতিক্রম করে - ২০০৫ সালে প্রাক্তন জাতীয় চ্যাম্পিয়ন মীশা গ্রেওয়ালের ২৭ তম রেঙ্কিং অর্জন করেছিলেন।

২০১২ সালের জানুয়ারিতে নিউ ইয়র্কের, চ্যাম্পিয়নস স্কোয়াশের টুর্নামেন্টের ফাইনালে পৌঁছানোর পর তিনি প্রথম ভারতীয় যে সিলভার ইভেন্টের চূড়ান্ত লড়াইয়ে পৌঁছান।[১৪] আগস্ট মাসে একই সময়ে তিনি এক ধাপ এগিয়ে গেলেন, যখন তিনি অস্ট্রেলিয়ান ওপেনের সেমি-ফাইনালে পৌঁছেছিলেন, এই কৃতিত্বও ভারতীয় হিসাবে প্রথম।[১৫]

দীপিকা ছিলেন ভারতের স্কোয়াশ দলের অবিচ্ছেদ্য অংশ যা ২০১২ সালে মহিলা বিশ্বকাপ স্কোয়াশ চ্যাম্পিয়নশিপের ফাইনালে উঠেছিল।[১৬] ইভেন্টে দশম রেঙ্কিং ভারতীয়, উচ্চতর রেঙ্কিংকিত নেদারল্যান্ডস ও আয়ারল্যান্ডকে হারায়। [১৭] তিনি টুর্নামেন্টে মাদেলাইন পেরি সহ খেলোয়াড়দের পরাজিত করেন।[১৮]

২০১২ সালে, দীপিকা, ভারতের দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ক্রীড়া পুরস্কারের জন্য অর্জুন পুরস্কার লাভের জন্য প্রথম মহিলা স্কোয়াশ খেলোয়াড় নির্বাচিত হন।[১৯] ২০১৪ কমনওয়েলথ গেমসে তিনি জোশনা চিনাপ্পার সাথে করে স্কোয়াশ মহিলাদের ডাবলস স্বর্ণ পদক জিতেছেন, এটি ভারতের প্রথম কমনওয়েলথ গেমস পদক জিতেছে।[২০] দীপিকা ২০১৫ সালের জানুয়ারিতে উইনটার ক্লাব ওপেনের ফাইনালে তার ১০ তম শিরোপা জিতেছিলেন।

ফেব্রুয়ারী ২০১৬ দক্ষিণ এশীয় গেমসে দীপিকা স্বর্ণপদক জয়ী ভারতীয় মহিলা দলের অংশ [২১][২২][২৩] এপ্রিল মাসে তিনি পিএসএ মহিলা বিশ্বকাপের প্রথম রাউন্ডে পরাজিত হন [২৪] মে মাসে তিনি তাইপেইতে এশিয়ান টিম চ্যাম্পিয়নশীপে ভারতীয় মহিলা দলকে পরাজিত করে রৌপ্য পদক জয় করেন।[২৫]

২০১৬ সালের আগস্ট মাস অবধি দীপিকা, তার প্রথম নাম (পল্লীকল) এর অধীনে প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণ করেন। ২০১৩-১৭ সালের পিএসএ মরশুম থেকে তার বিবাহিত নাম মিসেস কার্তিক ব্যবহার শুরু করেন। [২৬] তার দ্বিতীয় ভারতীয় জাতীয় শিরোনাম জেতার পর, আগস্ট ২০১৬ সালে তিনি অস্ট্রেলিয়ার ওপেন জিতেছেন, যা তার ১১ তম পিএসএ শিরোপা।[২৭]

দীপিকা চেন্নাই আইসিএল-টিএনএসআরএ একাডেমীতে সাইরাস পুঞ্চ এবং মেজর (অবসরপ্রাপ্ত) এস.মানিয়ামের কাছে প্রশিক্ষণ করেন। তার কোচ ছয়বার বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন, সারা ফিটস-জেরাল্ড, যাকে তিনি তার সাম্প্রতিক সাফল্যের কারণ মনে করেছেন।

ক্যারিয়ার পরিসংখ্যান[সম্পাদনা]

২০১২,জোশনা চিনাপ্পার সাথে দীপিকা পল্লীকাল কার্তিক

দীপিকার ডাব্লিউএসএ ওয়ার্ল্ড ট্যুরক্যারিয়ারের উজ্জ্বলতম অংশসমুহ।[১৩]

ইভেন্ট বছর ফল
কানাডা উইনিপেগ উইনটার ক্লাব ওপেন ২০১৫ বিজয়ী
চীন ম্যাকাও স্কোয়াশ ওপেন ২০১৩ বিজয়ী[২৮]
কানাডা মিয়াডুওয়ুড ফার্মেসী ওপেন ২০১৩ বিজয়ী
অস্ট্রেলিয়া অস্ট্রেলিয়ান ওপেন ২০১২ সেমি-ফাইনাল
মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র চ্যাম্পিয়নস টুর্নামেন্ট ২০১২ রানার আপ
হংকং ক্রকোডাইল চ্যালেঞ্জ কাপ ২০১১ বিজয়ী
নেদারল্যান্ডস বিশ্ব ওপেন ২০১১ কোয়ার্টার-ফাইনাল
মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র ড্রেড স্পোর্টস সিরিজ ২০১১ বিজয়ী
মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র অরেঞ্জ কাউন্টি ওপেন ২০১১ বিজয়ী

পুরস্কার[সম্পাদনা]

Award Year
অর্জুন পুরস্কার[১৯] ২০১২
পদ্মশ্রী[২৯] ২০১৪

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. SquashHub [@SquashHub] (১২ মে ২০১৬)। "@SquashHub wish Indian team all the best for #AsianTeamChampionship #Squash @indiasquash @DipikaPallikal @kushsquash" (টুইট) – টুইটার-এর মাধ্যমে। 
  2. "Dipika Pallikal (India) Profile"squashinfo.com। সংগ্রহের তারিখ ১৯ আগস্ট ২০১৫ 
  3. "Dipika Pallikal is first Indian to break into top 10"The Indian Express। ১ জানুয়ারি ২০১২। 
  4. "Local Sports News – Malayalee Dipika Pallikal wins in straight games to net sixth WSA title (Picture Album)"। Ukmalayalee.com। ২১ সেপ্টেম্বর ১৯৯১। ৩ ডিসেম্বর ২০১৩ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৩০ নভেম্বর ২০১৩ 
  5. "Manorama Online – Home"ManoramaOnline [স্থায়ীভাবে অকার্যকর সংযোগ]
  6. "Dipika Pallikal, the hot girl of Indian squash"। Indiatvnews.com। ২১ সেপ্টেম্বর ১৯৯১। সংগ্রহের তারিখ ৩০ নভেম্বর ২০১৩ 
  7. India / Players / Susan Itticheria – ESPNcricinfo. Retrieved 2 November 2015.
  8. Abishek Mukherjee (20 August 2015). "Susan Itticheria-Dinesh Karthik and other cricket in-laws" – Cricket Country. Retrieved 2 November 2015.
  9. "Cricket meets squash: Dinesh Karthik is engaged to Dipika Pallikal"। The Indian Express। সংগ্রহের তারিখ ২ ডিসেম্বর ২০১৩ 
  10. "Cricketer Dinesh Karthik engaged to squash star Dipika Pallikal"IBNLive 
  11. "Dinesh Karthik Gets Married Twice in Three Days... to Dipika Pallikal!"। ১ জুলাই ২০১৬ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১ মে ২০১৮ 
  12. "Pallikal wins three WISPA titles"। jagran.com। 
  13. "Profile at squashinfo.com"। squashinfo.com। 
  14. TOI (২৬ জানুয়ারি ২০১২)। "Dipika Pallikal storms into final of Tournament of Champions – The Times of India"। Timesofindia.indiatimes.com। সংগ্রহের তারিখ ১৪ নভেম্বর ২০১২ 
  15. "Dipika reaches Australian Open semi-final"। worldsquash.org। ১৭ আগস্ট ২০১২। 
  16. "India finish fifth in World Team Squash"The Times of India। ১৮ সেপ্টেম্বর ২০১২। 
  17. "India exit squash World Championships"। sportal.co.in। ১৬ নভেম্বর ২০১২। [স্থায়ীভাবে অকার্যকর সংযোগ]
  18. "India upset Ireland in World Team Squash Championship"The Times of India। ১৩ সেপ্টেম্বর ২০১২। 
  19. "Arjuna Awardees for 2012"Times of India। ২৯ আগস্ট ২০১২। 
  20. Vinod, A. (২ আগস্ট ২০১৪)। "Dipika and Joshna create history"। The Hindu। সংগ্রহের তারিখ ৩ আগস্ট ২০১৪ 
  21. http://www.indiasquash.com/players-team-india.aspx
  22. http://www.rediff.com/sports/report/photos-indias-gold-glut-continues-at-south-asian-games/20160210.htm
  23. "সংরক্ষণাগারভুক্ত অনুলিপি"। ৩০ আগস্ট ২০১৮ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১ মে ২০১৮ 
  24. https://psaworldtour.com/news/view/3552/wwc-update-au-holds-off-pallikal-to-seal-second-round-spot
  25. http://www.sportskeeda.com/squash/asian-squash-championships-indian-women-go-down-fighting
  26. https://psaworldtour.com/players/view/7872/info
  27. https://psaworldtour.com/news/view/4013/al-tamimi-and-pallikal-karthik-capture-australian-open-crowns#
  28. "Dipika triumphs"। The Hindu। ২১ অক্টোবর ২০১৩। সংগ্রহের তারিখ ৩০ নভেম্বর ২০১৩ 
  29. "Paes, Gopichand, Yuvraj, Dipika get Padma awards"IANS। Biharprabha News। সংগ্রহের তারিখ ২৫ জানুয়ারি ২০১৪ 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]