তাসমিন লুসিয়া খান

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
তাসমিন লুসিয়া খান
জন্ম
ফারহানা তাসমিন লুসিয়া খান

(1980-07-14) ১৪ জুলাই ১৯৮০ (বয়স ৩৯)
জাতীয়তাব্রিটিশ
শিক্ষারাজনীতি, দর্শন এবং অর্থনীতি
যেখানের শিক্ষার্থীঅক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়
পেশাসাংবাদিক,
টেলিভিশন উপস্থাপিকা,
সংবাদ পাঠিকা, প্রডিউসার
কার্যকাল১৯৯৯-বর্তমান
উল্লেখযোগ্য কৃতিত্ব
জি টিভি
চ্যানেল ফাইভ
বিবিসি নিউজ
আইটিভি ব্রেকফাস্ট
ওয়েবসাইটwww.tasmin.tv

তাসমিন লুসিয়া খান (জন্মঃ ১৮ জুলাই, ১৯৮০) একজন ইংরেজ টেলিভিশন উপস্থাপিকা, সংবাদ পাঠিকা, প্রোডিউসার এবং মিডিয়া ও প্রযুক্তি উদ্যোক্তা। [২][৩] বিবিসি থ্রি নিউজ,[৪] বিবিসি নিউজের ই২৪ ,[৫] আইটিভি ব্রেকফাস্টের অনুষ্ঠান ডেব্রেকে (এখন এর নাম গুড মর্নিং ব্রিটেন উপস্থাপকের ভূমিকার জন্য সে ইউকে তে অধিক পরিচিত। [৬][৭] সাম্প্রতিককালে তাকে গ্লোবাল এন্টারটেইনমেন্ট এবং ফিল্ম কোম্পানি ডব্লিউআর এন্টারটেইনমেন্ট এর সিইও (প্রধান কার্যনির্বাহী কর্মকর্তা) হিসেবে নিয়োগ দেয়া হয়।[৮] যা তিনি ২০১৬ সালের জানুয়ারিতে অসলো স্টক এক্সচেঞ্জ মারকুর মার্কেটে আনার মাধ্যমে সবার সম্মুখে আনেন।[৯][১০]

প্রাথমিক জীবন[সম্পাদনা]

লন্ডনে জন্ম নেয়া ফারহানা তাসমিন লুসিয়া খান বাঙালি বংশোদ্ভূত।[১১] তিনি রাজনীতি, দর্শন এবং অর্থনীতি অনার্স ডিগ্রি অর্জন করে অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয় থেকে স্নাতক সম্পন্ন করেন।[১২] অক্সফোর্ডে অধ্যয়নের সময় তিনি বিতর্ক চর্চা করেন এবং আন্তর্জাতিক সম্পর্ক ও সাম্প্রতিক ঘটনাবলীর উপর তার আগ্রহ টিকিয়ে রাখেন। তিনি এ লেভেলে ল্যাটিন, অর্থনীতি এবং গণিত নিয়ে লেখাপড়া করেন।[১৩]

কর্মজীবন[সম্পাদনা]

১৯৯৯ সালে খান জি টিভি নেটওয়ার্কে অনুষ্ঠান ও সংবাদ উপস্থাপিকা হিসেবে তার কর্মজীবন শুরু করেন। এরপর তিনি নিজের একটি টক শো শুরু করেন; যেখানে তিনি গান, চলচ্চিত্র, ক্রীড়া এবং রাজনৈতিক ব্যক্তিত্বদের সাক্ষাৎকার নেন।[১৪] ২০০১ সালে তিনি বিল ক্লিনটন-এর সাক্ষাৎকার নেন, এর কিছু মাস আগেই ক্লিনটন ২য় বারের মত মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র-এর প্রেসিডেন্ট হিসেবে দায়িত্ব পালন শেষ করেন।[১৫]

তিনি বিবিসি এশিয়ান নেটওয়ার্কে একজন রেডিও উপস্থাপক হিসেবে ব্রেকফাস্ট শো, ড্রাইভ টাইম এবং দি এলবাম চার্ট এর মত অনুষ্ঠানে দায়িত্ব পালন করেন। ২০০৪ সালের ডিসেম্বর মাসে বক্সিং ডে-তে ভারত মহাসাগরে ভূমিকম্প ও সুনামীর খবর যখন ছড়িয়ে পরে তখন তিনি সম্প্রচারে ছিলেন।

এরপর তিনি পিটিভি প্রাইমের লন্ডন প্রতিনিধি হিসেবে কাজ করেন এবং ৭ জুলাই ২০০৫ লন্ডন বোমা হামলা ও ২০০৬ এ ইপ্সুইচ সিরিয়াল মার্ডার এর মত যুক্তরাজ্যের বড় বড় ঘটনা বিশ্ববাসীর সামনে তুলে ধরেন।[৩]

নিজের পরিকল্পনা ও উপস্থাপনায় চ্যানেল ৫-এ একটি ক্রীড়া অনুষ্ঠান ৩ বছর প্রচারের পর তিনি বিবিসি নিউজ এবং বিবিসি থ্রি-তে যোগদানের সুযোগ পান।[৩][৪][৫][১৬] তার একজন প্রশিক্ষক Kevin Bakhurst বিবিসির টেন ও'ক্লক নিউজের সম্পাদক ছিলেন এবং বিবিসি নিউজের নিয়ন্ত্রক হিসেবে যোগ দেন। [১৭] Bakhurst এবং বিবিসি থ্রি এর সেসময়কার নিয়ন্ত্রক Danny Cohen, তাকে বিবিসি থ্রি-তে সংবাদ বুলেটিন 60 Seconds এর সংবাদ পাঠিকা এবং বিবিসি নিউজে E24 এর প্রধান উপস্থাপিকা হওয়ার প্রস্তাব দেন।

নিজের পরিকল্পনা ও উপস্থাপনায় চ্যানেল ৫-এ একটি ক্রীড়া অনুষ্ঠান ৩ বছর প্রচারের পর তিনি বিবিসি নিউজ এবং বিবিসি থ্রি-তে যোগদানের সুযোগ পান।[৩][৪][৫][১৬] তার একজন প্রশিক্ষক Kevin Bakhurst বিবিসির টেন ও'ক্লক নিউজের সম্পাদক ছিলেন এবং বিবিসি নিউজের নিয়ন্ত্রক হিসেবে যোগ দেন। [১৭] Bakhurst এবং বিবিসি থ্রি এর সেসময়কার নিয়ন্ত্রক Danny Cohen, তাকে বিবিসি থ্রি-তে সংবাদ বুলেটিন 60 Seconds এর সংবাদ পাঠিকা এবং বিবিসি নিউজে E24 এর প্রধান উপস্থাপিকা হওয়ার প্রস্তাব দেন।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. Kabir, Jackie (১২ জুন ২০০৯)। "Breaking the Myth" (ইংরেজি ভাষায়)। The Daily Star। সংগ্রহের তারিখ ২৫ জুন ২০০৯ 
  2. "Asian Wealth Magazine Spring 2014 issue"Issuu (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২০১৫-১১-১৪ 
  3. "New faces and look for BBC Three's 60seconds"BBC Press Office (ইংরেজি ভাষায়)। BBC। ৮ ফেব্রুয়ারি ২০০৮। সংগ্রহের তারিখ ১৪ মে ২০০৮ 
  4. "BBC Three newsreader Tasmin Lucia Khan in breathless broadcast mystery" (ইংরেজি ভাষায়)। The Telegraph। ১৯ জানুয়ারি ২০০৯। 
  5. "Tasmin Lucia Khan and Andy May for BBC Three's 60 Seconds" (ইংরেজি ভাষায়)। Unreality Primetime। ৮ ফেব্রুয়ারি ২০০৯। ৭ সেপ্টেম্বর ২০০৮ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৫ জুলাই ২০০৯ 
  6. "Tasmin Lucia Khan set to join new ITV breakfast show Daybreak" (ইংরেজি ভাষায়)। Daily Mirror। ৪ আগস্ট ২০১০। 
  7. "Tasmin Lucia Khan"ITV Daybreak (ইংরেজি ভাষায়)। ITV 
  8. "WR | Governance"widerelease.com (ইংরেজি ভাষায়)। ২০১৬-০২-২৩ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০১৬-০২-২৯ 
  9. Framstad, Anders Park। "Da Morgan Kane inntok Oslo Børs"E24 (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২০১৬-০২-২৯ 
  10. Stavrum, Gunnar। "Morgen Kane-filmene blir milliard-eventyr"Nettavisen (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২০১৬-০২-২৯ 
  11. "Finalists 2008"। Asian Woman Awards। ১৭ এপ্রিল ২০০৯ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৯ মে ২০০৯ 
  12. "Tasmin Lucia Khan"। Tasmin Lucia Khan। ২১ জানুয়ারি ২০০৯। 
  13. "Tasmin Lucia Khan"jilliebushell.com। ২০১৬-০৩-০৫ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০১৬-০২-২৯ 
  14. "Tasmin"। Mela UK। ৫ অক্টোবর ২০০৮ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২৫ জুন ২০০৯ 
  15. "Smaart Talent 6.1"। Smaart Mags। ১৬ জুলাই ২০১১ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। 
  16. "Mela UK 2008" (PDF)Mela Magazine। পৃষ্ঠা 8। সংগ্রহের তারিখ ২৫ জুন ২০০৯ 
  17. Morris, Sophie (১৯ মে ২০০৮)। "My Mentor: Tasmin Lucia Khan on Kevin Bakhurst"The Independent। সংগ্রহের তারিখ ২৫ জুন ২০০৯