তাই-কাদাই ভাষাসমূহ

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
তাই-কাদাই
ক্রাদাই, চুয়াং-তং
ভৌগলিক বিস্তারদক্ষিণ চীন, দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়া, হাইনান
ভাষাগত শ্রেণীবিভাগবিশ্বের একটি প্রাথমিক বা মৌলিক ভাষা পরিবার। ধারণা করা হয় অস্ট্রোনেশীয় ও চীনা-তিব্বতি ভাষা পরিবারের সাথে এর সম্পর্ক আছে।
উপবিভাগ
আইএসও ৬৩৯-২ / tai
Taikadai.PNG

তাই-কাদাই ভাষাসমূহ, মতান্তরে কাদাই বা ক্রাদাই কিংবা চুয়াং-তং নামেও পরিচিত, দক্ষিণ চীন ও দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়াতে প্রচলিত কতগুলি সুরপ্রধান ভাষার সমষ্টি। দক্ষিণ-পূর্ব চীনে, বিশেষ করে হাইনানে তাই-কাদাই ভাষাগুলির বৈচিত্র‌্য থেকে অনুমান করা হয় যে এই অঞ্চলটিই ভাষাগুলির আদি জন্মভূমি। ঐতিহাসিক কারণে তাই-কাদাই ভাষাভাষী জনগোষ্ঠী চীন থেকে দক্ষিণে সরে গিয়ে দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়াতে পাড়ি জমায় এবং থাইল্যান্ড ও লাওস দেশ দুইটির জন্ম দেয়। এর আগে অঞ্চলটিতে সম্ভবত বিভিন্ন অস্ট্রো-এশীয় ভাষা প্রচলিত ছিল।

এর থাই ভাষা এবং লাও ভাষা যথাক্রমে থাইল্যান্ড এবং লাওস দেশের রাষ্ট্রভাষা ।[১] প্রায় ৯৩ মিলিয়ন মানুষ ক্রা দাই ভাষা বলেন এবং এর ৬০% লোক থাই ভাষা বলেন।[২] এই ভাষা পরিবারে মোট ৯৫ টা ভাষা আছে যার ৬২ টা তাই ভাষার শাখা।[৩] দক্ষিণ চীনে ক্রদাই ভাষার বিবিধতা অনুসারে এই ভাষা সমূহের উৎপত্তি স্থল দক্ষিণ চীন বলে অনুমান করা হয়। এই তাই শাখাট ২০০০ খ্রীষ্টপূর্বাব্দে দক্ষিণ চীনে ছড়িয়ে পড়েছিল। থাইল্যান্ডের ক্রা দাই ভাষাভাষীদের মধ্যে অণুবংশীক এবং ভাষিক বিশ্লেষণে যথেষ্ট সাদৃশ্যতা দেখা যায়।[৪]

নাম[সম্পাদনা]

বেরা অষ্ট্রপীরাত(2000) দ্বারা ক্রা দাই নামটি প্রস্তাব করা হয়েছিল। দক্ষিণ পূর্ব এশিয়ার অধিকাংশ ভাষাবিদ ক্রা দাই শব্দটি ব্যবহার করেন।[৫][৬][৭][৮] তাই ক্রাদাই নামটি বহু ক্ষেত্রে প্রয়োগ করা হয় যা কিছু ভাষাবিদের মতে এটি বিভ্রান্তি এবং বিশৃঙ্খলার সৃষ্টি করতে পারে।[৯] ১৯৪২এ বেনেডিক্ট তিনটি ক্রা ভাষা গলাও, লাকোবা, কাবিয়াও এবং লাচী ভাষাকে এইসঙ্গে মিলিয়ে এই ভাষা পরিবারের অন্তর্গত করান যাকে তিনি ক্রা দাই নাম দেন। ক্রা শব্দের অর্থ গালব এবং লাকোবা ভাষাতে ব্যক্তি এবং দাই শব্দ নিয়ে নামের একটি রূপ হয়।[১০]

শ্রেণী বিভাজন[সম্পাদনা]

ভাষাটি পাঁচটি ভাগত ভাগ করা যায় সেটি হল: ক্রা, কাম-সুই, তাই, বি এবং লাই।

  • 'তাই ভাষা' দক্ষিণ চীন এবং দক্ষিণ পূর্ব এশিয়ার অন্যতম বড় ভাষা।
  • 'ক্রা ভাষা' (দক্ষিণ চীন এবং উত্তর ভিয়েতনামের কতাই ভাষা)
  • 'কাম ছুই ভাষা' 'চীন দেশে পাওয়া যায়
  • 'বি ভাষা' হেনান দ্বীপে বলা হয়
  • 'লাই ভাষা' হেনান দ্বীপে বলা হয়

স্বাধীন ক্রা দাই ভাষাসমূহ হল:

  • 'লাকীয়া ভাষা' এবং বাইয়ু ভাষা ,
  • জ্যাও মাও ভাষা দক্ষিণ হাইনান এবং চীনের ভাষা একে আগে লাই ভাষার সাথে শ্রেণীকরণ করা হয়েছিল।

মিশ্রিত ক্রা দাই ভাষা:

  • হিজাং বুয়ি ভাষা: উত্তর তাই এবং ক্রা ভাষা।
  • ই ভাষা: উত্তর তাই এবং পিংউ চীনা ভাষা।
  • কলন ভাষা: উত্তর তাই এবং কেন্দ্রীয় তাই ভাষা
  • চানক্যাও ভাষা : কামচুই এবং হমাংগিক ভাষা
  • যিমাও ভাষা : লাই ভাষা এবং অন্যন্য অজ্ঞাত তত্ব।

ক্রা দাই ভাষার বংশ বৃক্ষ এই ভাষা পরিবারটির ওপর ভাষা বিশেষজ্ঞসমূহ বহু প্রকার বংশ বৃক্ষ তৈরী করেন। সেটি হল:-

ক্রা-দাই' 

ক্রা ভাষা(Geyang)



লাই ভাষা


 কাম তাই  


[লাকীয়া ভাষা–বিয়াও ভাষা



কামসুই ভাষা





বি ভাষা



তাই ভাষা






ক্রা-দাই' 
 Northern 

ক্রা ভাষা


 Northeastern 

লাকীয়া ভাষা



কামসুই ভাষা




 Southern 

লাই ভাষা


 Be–Tai 

বি ভাষা



তাই ভাষা






চীনা-তাই[সম্পাদনা]

ক্রা দাই ভাষাসমূহ পূর্বে চীনা তিব্বতীয় ভাষা ছিল। এর যথেষ্ট সংখ্যক শব্দ চীনা তিব্বতীয় ভাষার সাথে একত্রিত হয়। কিন্তু এই শব্দসমূহ সকল ক্রা দাই ভাষা সমূহে কমকরে পাওয়া যায়। যা এই দর্শাই যে এটি বহু প্রাচীন শব্দ।[১১] চীনের বাইরে এই ভাষা পরিবারটিকে একটি স্বাধীন ভাষা পরিবার হিসাবে স্বীকৃতি দেয়া হয়েছে যদিও চীনে বর্তমানে একে চীনা তিব্বতীয় ভাষা পরিবারের অংশ বলে ভাবা হয়। চীনে একে চীনা তিব্বতী ভাষার শাখা মঙ-মিয়াও ভাষার অন্তর্গত বলে ধরা হয়।[১২] এখনো চীনা বিদ্বানদের মধ্যে এক চর্চার বিষয় হল যে বিভিন্ন ক্রা ভাষা যেমন লাও , কাবিয়াও , লাচী ইত্যাদি ভাষাকে ঝুবাঙ ভাষার অন্তর্গত করতে পারা যাবেনা যাবে না। কারণ সেই ভাষা সমূহের মধ্যে চীনা তিব্বতী ভাষার সাথে সাদৃশ্যতা বেশি নেই যা ঝুবাঙ-ডং ভাষাসমূহর আছে।

মঙ-মিয়াও[সম্পাদনা]

মঙ মিয়াও এবং ক্রা দাই ভাষাসমূহর মধ্যে যথেষ্ট অণুবংশীক সম্বন্ধ আছে।[১৩]

জাপানি ভাষা[সম্পাদনা]

জাপানি ভাষার মূল মাতৃভূমি দক্ষিণ চীন। গঠন সম্পর্ক এবং ঐ কারণে জাপানি ভাষার সাথে এটির ব্যাসের সাদৃশ্য দেখা যায়।[১৪]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. डिलर, एंथनी, जेरी एडमंडसन, योंगसियान लुओ। (2008)। द ताई-कडाई भाषाएँ । लंदन [आदि]: रूटलेज। আইএসবিএন ৯৭৮-০-৭০০৭-১৪৫৭-৫
  2. "Taikadai"www.languagesgulper.com (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২০১৭-১০-১৫ 
  3. Ethnologue Tai–Kadai family tree
  4. Srithawong, Suparat; Srikummool, Metawee; Pittayaporn, Pittayawat; Ghirotto, Silvia; Chantawannakul, Panuwan; Sun, Jie; Eisenberg, Arthur; Chakraborty, Ranajit; Kutanan, Wibhu (জুলাই ২০১৫)। "Genetic and linguistic correlation of the Kra-Dai-speaking groups in Thailand"Journal of Human Genetics60 (7): 371–380। doi:10.1038/jhg.2015.32PMID 25833471আইএসএসএন 1435-232X 
  5. Pittayaporn (2009),Pittayaporn, Pittayawat. 2009. The phonology of Proto-Tai. Ph.D. Thesis, Cornell University
  6. Peter Jenks and Pittayawat Pittayaporn. Kra-Dai Languages. Oxford Bibliographies in “Linguistics”, Ed. Mark Aranoff. New York: Oxford University Press.
  7. Baxter, William H.; Sagart, Laurent (২০১৪), Old Chinese: A New Reconstruction, Oxford University Press, আইএসবিএন 978-0-19-994537-5. 
  8. N. J. Enfield and B. Comrie, Eds. 2015. Languages of Mainland Southeast Asia: The State of the Art. Berlin, Mouton de Gruyter.
  9. Ostapirat, Weera. (2000). "Proto-Kra." Linguistics of the Tibeto-Burman Area 23 (1): 1-251.
  10. Benedict, Paul K. (১৯৪২)। "Thai, Kadai, and Indonesian: A New Alignment in Southeastern Asia"। American Anthropologist44 (4): 576–601। doi:10.1525/aa.1942.44.4.02a00040জেস্টোর 663309  অজানা প্যারামিটার |1= উপেক্ষা করা হয়েছে (সাহায্য)
  11. Ostapirat, Weera. (2005). "Kra–Dai and Austronesian: Notes on phonological correspondences and vocabulary distribution", pp. 107–131 in Sagart, Laurent, Blench, Roger & Sanchez-Mazas, Alicia (eds.), The Peopling of East Asia: Putting Together Archaeology, Linguistics and Genetics. London/New York: Routledge-Curzon.
  12. Luo, Yongxian. 2008. Sino-Tai and Tai-Kadai: Another look. In Anthony V. N. Diller and Jerold A. Edmondson and Yongxian Luo (eds.), The Tai-Kadai Languages, 9-28. London & New York: Routledge.
  13. Kosaka, Ryuichi. 2002. "On the affiliation of Miao-Yao and Kadai: Can we posit the Miao-Dai family." Mon-Khmer Studies 32:71-100.
  14. Vovin, Alexander (2014). Out Of Southern China? --some linguistic and philological musings on the possible Urheimat of the Japonic language family-- XXVIIes Journées de Linguistique d'Asie Orientale 26-27 juin 2014.

অতিরিক্ত পঠন[সম্পাদনা]

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]