স্থানাঙ্ক: ২৪°৫৯′৪২″ উত্তর ১২১°৩৫′৩″ পূর্ব / ২৪.৯৯৫০০° উত্তর ১২১.৫৮৪১৭° পূর্ব / 24.99500; 121.58417

তাইপে চিড়িয়াখানা

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
তাইপে চিড়িয়াখানা
臺北市立動物園
Taipei zoo01.jpg
চিড়িয়াখানার প্রবেশদ্বার
স্থাপিত১৯১৪
অবস্থানওয়েনশান, তাইপে, তাইওয়ান
স্থানাঙ্ক২৪°৫৯′৪২″ উত্তর ১২১°৩৫′৩″ পূর্ব / ২৪.৯৯৫০০° উত্তর ১২১.৫৮৪১৭° পূর্ব / 24.99500; 121.58417
ওয়েবসাইটপ্রাতিষ্ঠানিক ওয়েবসাইট
তাইপে চিড়িয়াখানা
ঐতিহ্যবাহী চীনা 臺北市立動物園
সরলীকৃত চীনা 台北市立动物园
Muzha Zoo
ঐতিহ্যবাহী চীনা 木柵動物園
সরলীকৃত চীনা 木栅动物园

তাইপে চিড়িয়াখানা, ("মুঝা চিড়িয়াখানাও" বলা হয়), একটি সর্বজনীন চিড়িয়াখানা, যা তাইওয়ানের তাইপের ওয়েনশান জেলায় অবস্থিত। এটি তাইওয়ানের সবচেয়ে বিখ্যাত প্রাণীজ উদ্যান এবং সংরক্ষণাগার, গবেষণা ও শিক্ষা এবং বিনোদনের শীর্ষ ক্ষেত্রে। এটি এশিয়ার বৃহত্তম চিড়িয়াখানা, মোট আয়তন ১৬৫ হেক্টর। [১]

ইতিহাস[সম্পাদনা]

তাইপে চিড়িয়াখানাটি মারুয়ামা চিড়িয়াখানা (জাপানি: 圓山動物園, হেপবার্ন: মারুয়ামা ডাবুটসুয়েন) নামে প্রথম প্রতিষ্ঠিত হয়েছিল তখনকার মাউন্ট মারুয়ামায় (আধুনিক যুগের ইউয়ানশান) ১৯১৪ সালে, যখন তাইওয়ান জাপানের অধীনে ছিল, তাইহকুর উত্তরের শহরতলিতে (আধুনিক তাইপে)। এটি মূলত একটি জাপানি নাগরিক মিঃ ওয়ের মালিকানাধীন একটি ব্যক্তিগত উদ্যান ছিল। তাইওয়ানের জাপানি সরকার পরের বছর সম্পত্তিটি কিনে একটি পাবলিক পার্ক হিসাবে এটি চালু করে। দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের পরে. চীন প্রজাতন্ত্র (আরওসি) তাইওয়ানে ফিরে আসে এবং পার্কটির মালিকানা আরওসি-র তাইপেই সিটি সরকারের হাতে দেওয়া হয়। লিন ওয়াং নামে একটি এশিয়ান হাতি যেটা দ্বিতীয় চীন-জাপানিজ যুদ্ধের সময় চীনা বাহিনীর হয়ে কাজ করেছিলেন (১৯৩৭-১৯৪৫) এবং পরে কুইমিনতাং বাহিনীর সাথে তাইওয়ানে স্থানান্তরিত হয়ে চিড়িয়াখানায় স্থানান্তরিত হয়েছিলেন এবং তাঁর জীবনের বেশিরভাগ সময় এখানেই বেঁচে ছিল এবং চিড়িয়াখানায় সর্বাধিক জনপ্রিয় প্রাণী ছিল এবং চীন থেকে ২টি পাণ্ডা পাওয়ার আগ পর্যন্ত তাইওয়ানের সর্বাধিক বিখ্যাত প্রাণী ছিল। অনেক প্রাপ্তবয়স্ক এবং শিশুরা সকলেই স্নেহের সাথে এই হাতিকে "দাদু লিন ওয়াং" নামে ডাকত। প্রাণীদের উন্নতি ও সম্প্রসারনের প্রয়োজনে, চিড়িয়াখানাটি ১৯৮৬ সালে তাইপে সিটির দক্ষিণ-পূর্ব শহরতলি মুঝায় তার বর্তমান স্থানে স্থানান্তরিত করা হয়েছিল। এ জন্য, কখনও কখনও এটি "মুজা চিড়িয়াখানা" নামে ডাকা হয়, প্রাক্তন "ইউয়ানশান চিড়িয়াখানা" থেকে পৃথক করার জন্য। বর্তমানে এটি জনসাধারণের জন্য উন্মুক্ত ৯০ হেক্টর সহ মোট ১৬৫ হেক্টর জায়গা জুড়ে রয়েছে।

চিড়িয়াখানাটি ৮ ই আগস্ট ২০১৫-তে টাইফুন সৌদেল আঘাত হেনেছিল যার কারণে এনটি ১০ মিলিয়ন ডলার ক্ষতি হয়েছিল, অতিরিক্ত এনটি ৪ মিলিয়ন ডলার ক্ষতি পূরণে ব্যয় হয়েছিল। ২০১৪ সালের ১১ আগস্ট চিড়িয়াখানাটি আবার খুলেছিল, এর কিছু অংশ বন্ধ রেখে। [২]

প্রদর্শনী[সম্পাদনা]

তাইপেই চিড়িয়াখানায় তুয়ান তুয়ান

তাইপেই চিড়িয়াখানাটি তাইওয়ান, অস্ট্রেলিয়া, আফ্রিকা, এশীয় গ্রীষ্মমণ্ডলীয় রেইন ফরেস্ট, মরুভূমি এবং শীতকালীন অঞ্চলগুলির প্রাণী প্রদর্শন করে। চিড়িয়াখানাটি তার ''বাচ্চাদের চিড়িয়াখানায়'' গৃহপালিত প্রাণী প্রদর্শন করে, পাশাপাশি একটি পক্ষিশালায় ১৩০ টিরও বেশি প্রজাতির ১২,০০০ পাখি প্রদর্শন করে। চিড়িয়াখানার অন্যান্য প্রদর্শনীর মধ্যে একটি কীটপতঙ্গ প্রদর্শনী, উভচর এবং সরীসৃপ ঘর, পেঙ্গুইনের আবাস, কোয়ালার আবাসস্থল, নিশাচর প্রাণী প্রদর্শনী এবং একটি পান্ডার প্রদর্শনী অন্তর্ভুক্ত রয়েছে।

জায়ান্ট পান্ডা হাউস[সম্পাদনা]

২০০৮ সালে চিড়িয়াখানাটি ঐক্যের প্রতীক হিসাবে তুয়ান তুয়ান এবং ইউয়ান ইউয়ান (যার অর্থ "পুনর্মিলন") নামে পিপলস রিপাবলিক অফ চায়না থেকে দুটি পান্ডা পেয়েছিল। বিপন্ন পান্ডা দুইটি প্রেসিডেন্ট চেন সুই-বিয়ান কর্তৃক প্রত্যাখ্যাত হয় ২০০৫ সালে, তিনি এটিকে তাইওয়ানের স্বাধীনতার বিরুদ্ধে একটি প্রচারণার হাতিয়ার হিসাবে ব্যবহার করে কিন্তু পরবর্তী প্রেসিডেন্ট, কুওমিনতাঙের মা ইং-জেও এর সাথে চীনের শক্তিশালি অর্থনৈতিক ও কূটনৈতিক সম্পর্ক তৈরী হয়েছিল এবং তিনি সেগুলি গ্রহণ করতে রাজি ছিল। [৩] চীন থেকে উপহার হিসাবে পান্ডার পাওয়ার প্রস্তাব প্রায়শই "পান্ডা কূটনীতি" নামে পরিচিত এবং চিড়িয়াখানায় তাদের আগমনের ফলে দিনে প্রায় ৩০,০০০ দর্শনার্থী আসবে বলে আশা করা হয়েছিল। তাইওয়ানের স্বাধীনতার সমর্থক এবং বিরোধী ডেমোক্র্যাটিক প্রগ্রেসিভ পার্টির অনুসারীরা এই পদক্ষেপের সমালোচনা করেছিলেন, তারা বলেছিল যে, "তুয়ান তুয়ান এবং ইউয়ান ইউয়ান মানে একতা, যা তাইওয়ানেকে বাগে আনার বেইজিংয়ের লক্ষ্যকে পুরোপুরি পূরণ করে।" [৪]

ইউয়ান জাই, তুয়ান তুয়ান এবং ইউয়ান ইউয়ানের বংশধর, ৬ জুলাই, ২০১৩ সালে জন্মগ্রহণ করেছিল। সে তাইওয়ানে জন্মগ্রহণকারী প্রথম পান্ডার শাবক। [৫] ইউয়ান জাইয়ের সর্বজনীন আত্মপ্রকাশ ঘটে ৬ জানুয়ারী, ২০১৪ সালে।

পরিবহন[সম্পাদনা]

তাইপে মেট্রোর তাইপে চিড়িয়াখানা স্টেশন থেকে এই চিড়িয়াখানায় আসা-যাওয়া করা যায়।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. 動物園網站管理員 (২০১৭-০৬-১০)। "新聞稿"www.zoo.gov.taipei (চীনা ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২০১৭-০৬-১০ 
  2. http://www.chinapost.com.tw/taiwan/local/chiayi/2015/08/11/442964/Alishan-Railway.htm
  3. "Chinese pandas arrive in Taiwan"BBC News। ২০০৮-১২-২৩। সংগ্রহের তারিখ ২০০৮-১২-২৩ 
  4. "In pictures: Pandas sent to Taiwan"। BBC News। ২০০৮-১২-২৩। সংগ্রহের তারিখ ২০০৮-১২-২৩ 
  5. "Newborn Giant Panda"। zoo.taipei.gov.tw। ১৯ ডিসেম্বর ২০১৩ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৫ ডিসে ২০১৩ 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]

উইকিমিডিয়া কমন্সে তাইপে চিড়িয়াখানা সম্পর্কিত মিডিয়া দেখুন