ড্যাফনি দ্যু মারিয়েই

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
ডেইম ড্যাফনি দ্যু মারিয়েই
তরুণী ড্যাফনি দ্যু মারিয়েই (১৯৩০ সাল নাগাদ)
তরুণী ড্যাফনি দ্যু মারিয়েই (১৯৩০ সাল নাগাদ)
জন্ম(১৯০৭-০৫-১৩)১৩ মে ১৯০৭
লন্ডন, ইংল্যান্ড, যুক্তরাজ্য
মৃত্যু১৯ এপ্রিল ১৯৮৯(1989-04-19) (বয়স ৮১)
ফাউই, কর্নওয়াল, ইংল্যান্ড, যুক্তরাজ্য
পেশাউপন্যাসিক
জাতীয়তাইংরেজ
সময়কাল১৯৩১–৮৯
ধরনসাহিত্য উপন্যাস
উল্লেখযোগ্য রচনাবলিরেবেকা
দ্যা স্ক্যাপগোট
দ্য বার্ডস
জ্যামাইকা ইন
উল্লেখযোগ্য পুরস্কারNational Book Award (U.S.)
দাম্পত্যসঙ্গীলেফটেন্যান্ট জেনারেল স্যার ফ্রেডরিক ব্রাউনিং
(১৯৩২-১৯৬৫; আমৃত্যু)
সন্তান
আত্মীয়স্যার জেরাল্ড দ্যু মারিয়েই (পিতা)
ম্যুরিয়েল, লেডি দ্যু মারিয়েই (মাতা)
জর্জ দ্যু মারিয়েই (পিতামহ)
এঞ্জেলা দ্যু মারিয়েই (বোন)
ওয়েবসাইট
www.dumaurier.org

প্রবেশদ্বার আইকন সাহিত্য প্রবেশদ্বার
ক্যানন হল, হ্যাম্পস্টেড, এ.আর. কুইন্টন কর্তৃক অঙ্কিত, ১৯১১, যেখানে দ্যু মারিয়েই তার শৈশবকালের অনেকটা কাটিয়েছেন।

ডেইম ড্যাফনি দ্যু মারিয়েই, লেডি ব্রাউনিং DBE (/ˈdæfni d ˈmɒri./; ১৩ মে ১৯০৭ - ১৯ এপ্রিল ১৯৮৯) ছিলেন একজন ইংরেজ লেখিকা এবং নাট্যকার

যদিও তাকে ভালোবাসার উপন্যাসের রচয়িতা বলে শ্রেণিভুক্ত করা হয়, তার গল্পগুলোতে খুব কম সময়েই শুভ সমাপ্তি দেখা যায়। যা অস্বাভাবিক আবহ সম্পন্ন "বিষন্ন এবং স্পন্দনশীল," হিসেবে বর্ণিত হয়েছে। বহুলবিক্রিত কাজগুলো যদিও প্রথমদিকে সমালোচকদের কাছে গুরুত্বপূর্ণ মনে হয় নি, কিন্তু সেগুলো শুরু থেকে তার গল্প বলার শৈলীর জন্য প্রশংশা কুড়িয়েছে। অনেকগুলো থেকেই সাফল্যের সাথে চলচ্চিত্র নির্মাণ করা হয়েছে; যেমন: "রেবেকা", "মাই কাজিন রেচেল" ও "জ্যামাইকা ইন" এবং ছোটগল্প "দ্য বার্ডস" ও "ডোন্ট লুক নাও/নট আফটার মিডনাইট"।

দ্যু মারিয়েই তার জীবনের অধিকাংশ সময় কর্নওয়াল-এ কাটিয়েছেন, যেখানে তার লেখা সিংহভাগ কাহিনীই সংঘটিত হয়েছে। তার লেখা উপন্যাসগুলো যতই সুনাম বয়ে আনতে থাকে, তিনি ততই নিজেকে মানুষের কাছ থেকে গুটিয়ে নিতে থাকেন।

তার বাবা ছিলেন অভিনেতা/ম্যানেজার স্যার জেরাল্ড দ্যু মারিয়েই, মা মঞ্চ অভিনেত্রী ম্যুরিয়েল বিউমন্ট এবং পিতামহ জর্জ দ্যু মারিয়েই ছিলেন একজন কার্টুনিস্ট ও লেখক।

প্রাথমিক জীবন[সম্পাদনা]

প্রখ্যাত অভিনেতা-ম্যানেজার স্যার জেরাল্ড দ্যু মারিয়েই এবং অভিনেত্রী ম্যুরিয়েল বিউমন্ট-এর মেঝ মেয়ে ড্যাফনি দ্যু মারিয়েই, লন্ডনে জন্মগ্রহণ করেন।

তার আত্মীয়স্বজনরা যথেষ্ট বিখ্যাত ছিলেন এবং এই বিখ্যাত পরিবারের সদস্য হবার সুবাদে তিনি সাহিত্য জীবনে প্রতিষ্ঠিত হতে অনেক সুবিধা লাভ করেন। তার খ্যাতিমান বাবার কারণে, কিশোরী অবস্থায় তিনি বহু প্রখ্যাত নাট্যাভিনেতাদের সাথে দেখা করার সুযোগ পান।

উপন্যাস, ছোটগল্প ও জীবনীসমুহ[সম্পাদনা]

নাটকসমুহ[সম্পাদনা]

নিজস্ব নাম ও পদবি[সম্পাদনা]

ব্যক্তিগত জীবন[সম্পাদনা]

মৃত্যু[সম্পাদনা]

দ্যু মারিয়েই ১৯৮৯ সালের ১৯ এপ্রিল, ৮১ বছর বয়সে, তার কর্নওয়ালের নিজ বাসভবনে মারা যান। তার শবদাহ করা হয় এবং তার ছাই ফাউই, কিলমার্থ, কর্নওয়ালের পর্বতগাত্র থেকে ছড়িয়ে দেওয়া হয়।[১][২]

তথ্যসুত্র[সম্পাদনা]

  1. Margaret Forster, ‘Du Maurier , Dame Daphne (1907–1989)’, rev., Oxford Dictionary of National Biography, Oxford University Press, 2004 accessed 19 Jan 2009
  2. Wilson, Scott. Resting Places: The Burial Sites of More Than 14,000 Famous Persons, 3d ed.: 2 (Kindle Location 13209). McFarland & Company, Inc., Publishers. Kindle Edition.

গ্রন্থপঞ্জি[সম্পাদনা]

  • Kelly, Richard (১৯৮৭)। Daphne du Maurier। Boston: Twayne। আইএসবিএন 0-8057-6931-5 
  • Obituary in The Independent 21 April 1989
  • Dictionary of National Biography, Oxford University Press, London, 1887– : Du Maurier, Dame Daphne (1907–1989); Browning, Sir Frederick Arthur Montague (1896–1965); Frederick, Prince, Duke of York and Albany (1763–1827); Clarke, Mary Anne (1776?–1852).
  • Du Maurier, Daphne, Mary Anne, Victor Gollancz Ltd, London, 1954.
  • Rance, Nicholas. "Not like Men in Books, Murdering Women: Daphne du Maurier and the Infernal World of Popular Fiction." In Clive Bloom (ed), Creepers: British Horror and Fantasy in the Twentieth Century. London and Boulder CO: Pluto Press, 199, pp. 86–98.

আরোও দেখুন[সম্পাদনা]

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]