জেপি মর্গান চেস

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
জেপি মর্গান চেস এন্ড কোং
পাবলিক লিমিটেড কোম্পানি
ব্যবসা হিসেবেএনওয়াইএসই
ডো
এস এন্ড পি
শিল্পব্যাংকিং, আর্থিক সেবা
পূর্বসূরীচেস ম্যানহ্যাটন কর্পোরেশন
জেপি মর্গান এন্ড কোং
প্রতিষ্ঠাকাল২০০০ (২০০০)
সদরদপ্তরম্যানহ্যাটন,
নিউ ইয়র্ক, যুক্তরাষ্ট্র
, যুক্তরাষ্ট্র
অঞ্চলিক পরিসেবা
বহুজাতিক
প্রধান ব্যক্তি
Jamie Dimon
(Chairman, CEO & President)[১][২]
পণ্যসমূহCommodities, consumer banking, corporate banking, credit cards, finance and insurance, foreign currency exchange, global banking, mortgage loans, risk management, treasury services, underwriting
আয়বৃদ্ধি US$ 97.03 billion (2012)[৩]
বৃদ্ধি US$ 28.91 billion (2012)[৩]
বৃদ্ধি US$ 21.30 billion (2012)[৩]
মোট সম্পদবৃদ্ধি US$ 2.509 trillion (2012)[৩]
মোট ইকুইটিবৃদ্ধি US$ 204.1 billion (2012)[৩]
কর্মীসংখ্যা
260,965 (2012)[৩]
বিভাগসমূহJ.P. Morgan Asset Management
অধীনস্থ প্রতিষ্ঠানChase, J.P. Morgan & Co., J.P. Morgan Cazenove, One Equity Partners
ওয়েবসাইটJPMorganChase.com

জেপি মর্গান চেস এন্ড কোং হল যুক্তরাষ্ট্রের একটি বহুজাতিক ব্যাংকিং এবং হোন্ডিং কোম্পানি। সম্পদের বিবেচনায় এটি যুক্তরাষ্ট্রের সর্ববৃহৎ আর্থিক প্রতিষ্ঠান।[৪] ২০১২ সালের তথ্য মতে ২.৫০৯ বিলিয়ন মার্কিন ডলার সম্পদ নিয়ে এটি পৃথিবীর দ্বিতীয় সর্ববৃহৎ আর্থিক প্রতিষ্ঠান। ফোর্বস ম্যাগাজিনের মতে এটি পৃথিবীর দ্বিতীয় বৃহত্তম পাবলিক লিমিটেড কোম্পানি এবং সাধারণ ও কম্পোজিট ব্যাংকিং খাতে পৃথিবীর সর্ববৃহৎ সেবাদাতা। জেপি মর্গান চেসের হেজ ফান্ড আমেরিকার দ্বিতীয় সর্ববৃহৎ হেজ ফান্ড।[৫] ২০০০ সালে চেস ম্যানহ্যাটন কর্পোরেশন এবং জেপি মর্গান এন্ড কোম্পানি একত্রিত হয়ে জেপি মর্গান চেস এন্ড কোম্পানি গঠিত হয়।[৬]

জেপি মর্গান ব্রান্ডটি আমেরিকায় মর্গান নামে জনপ্রিয় ছিল। মর্গান প্রাইভেট ব্যাংকিং, বিনিয়োগ ব্যাংকিং, সম্পদ ব্যবস্থাপনা এবং আর্থিক সম্পদের জিম্মাদার হিসেবে আমেরিকায় ব্যাপকভাবে সমাদৃত ছিল। অপরদিকে চেস প্রতিষ্ঠানটি ক্রেডিট কার্ড, সার্ভিসের জন্য আমেরিকা ও কানাডায় বিখ্যাত ছিল। এছাড়াও খুচরা ও সাধারণ ব্যাংকিং খাতে আমেরিকায় চেস একটি জনপ্রিয় নাম। এই দুই প্রতিষ্ঠানের মিলিত রূপ জেপি মর্গান চেস কোম্পানি হল বর্তমান যুগের বৈশ্বিক ব্যাংকের একটি সর্বোৎকৃষ্ট উদাহরণ।[৬]

ব্যাংক অফ আমেরিকা, সিটিগ্রুপ, ওয়েলস ফার্গোর সাথে জেপি মর্গান হল আমেরিকার প্রথম চারটি সর্ববৃহৎ কোম্পানির মধ্যে একটি। [৭][৮][৯][১০][১১][১২] ব্লুমবার্গ ম্যাগাজিনের মতে ২০১১ সালে জেপি মর্গান সম্পদের দিক দিয়ে ব্যাংক অফ আমেরিকাকেও ছাড়িয়ে গিয়েছিল।[১৩] মর্গানের পূর্বসুরী ব্যাংক অফ দি ম্যানহ্যাটন কোম্পানি ছিল পৃথিবীর ২২ তম সবচেয়ে প্রাচীন ব্যাংক।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "Board of Directors"। JPMorgan Chase & Co। সংগ্রহের তারিখ ২০১৩-০৬-১৯ 
  2. "JPMorgan Chase & Co (JPM) People"। Reuters। সংগ্রহের তারিখ ২০১৩-০৬-১৯ 
  3. "JPMorgan Chase & Co. Financial Statements"MSN Money 
  4. Rappaport, Liz; Fitzpatrick, Dan (অক্টোবর ১৯, ২০১১)। "BofA Swings to Profit in Muddled Quarter"The Wall Street Journal 
  5. "The World's Biggest Companies"Forbes। এপ্রিল ১৮, ২০১২। সংগ্রহের তারিখ জুলাই ১৭, ২০১১ 
  6. "History of Our Firm"। JPMorganChase। 
  7. Tully, Shawn (ফেব্রুয়ারি ২৭, ২০০৯)। "Will the banks survive?"। Fortune Magazine/CNN Money। সংগ্রহের তারিখ ডিসেম্বর ১৭, ২০০৯ 
  8. "Citigroup posts 4th straight loss; Merrill loss widens"USA Today। Associated Press। অক্টোবর ১৬, ২০০৮। সংগ্রহের তারিখ ডিসেম্বর ১৭, ২০০৯ 
  9. Winkler, Rolfe (আগস্ট ২১, ২০০৯)। "Big banks still hold regulators hostage"। Reuters, via Forbes.com। সংগ্রহের তারিখ ডিসেম্বর ১৭, ২০০৯ 
  10. Temple, James (নভেম্বর ১৮, ২০০৮)। "Bay Area job losses likely in Citigroup layoffs i"The San Francisco Chronicle। সংগ্রহের তারিখ ডিসেম্বর ১৭, ২০০৯  অজানা প্যারামিটার |coauthors= উপেক্ষা করা হয়েছে (|author= ব্যবহারের পরামর্শ দেয়া হচ্ছে) (সাহায্য)
  11. Dash, Eric (আগস্ট ২৩, ২০০৭)। "4 Major Banks Tap Fed for Financing"The New York Times। সংগ্রহের তারিখ ডিসেম্বর ১৭, ২০০৯ 
  12. Pender, Kathleen (নভেম্বর ২৫, ২০০৮)। "Citigroup gets a monetary lifeline from feds"The San Francisco Chronicle। সংগ্রহের তারিখ ডিসেম্বর ১৭, ২০০৯ 
  13. Son, Hugh (অক্টোবর ১৮, ২০১১)। "BofA Loses No. 1 Ranking by Assets to JPMorgan as Chief Moynihan Retreats"Bloomberg 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]