জেঠালাল গাড়া (চরিত্র)

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
জেঠালাল গাড়া
তারাক মেহতা কা উল্টা চশমা চরিত্র
স্রষ্টাআসিত কুমার মোদি
চরিত্রায়ণদিলীপ জোশি
পূর্ণ নামজেঠালাল চম্পকলাল গাড়া
ডাকনামজেঠালাল, জেঠিয়া,
প্রজাতিমানুষ
লিঙ্গপুরুষ
পেশাব্যবসায়ী
দাম্পত্য সঙ্গীদয়া গাড়া (ধারাবাহিক অনুযায়ী)
সন্তান
ধর্মহিন্দু-জৈন
জাতীয়তাভারতীয়


জেঠালাল গাড়া (পুরো নাম জেঠালাল চম্পকলাল গাড়া) একটি চরিত্র যেটি ভারতীয় টেলিভিশন ধারাবাহিক তারাক মেহতা কা উল্টা চশমাতে দিলীপ জোশি ধারণ করেছে। এটি এই ধারাবাহিকটির মূল চরিত্র। এটি অত্যন্ত দর্শকপ্রিয় এবং বিশ্বাস করা যায় ধারাবাহিকটি এই চরিত্রটি ছাড়া চালানো সম্ভব নয়।[১][২]

চরিত্র পরিচিতি[সম্পাদনা]

গাড়া পরিবার[সম্পাদনা]

এটি হলো একটি হিন্দু জৈন মিশ্র পরিবার, যারা মূলত কাচ্ জেলার ভাচাও গ্রাম থেকে এসেছে এবং দয়া আহমেদাবাদ থেকে । এ পরিবারে চারজন সদস্য - জেঠালাল, তার বউ দয়া, তার বাবা চম্পকলাল এবং তার ছেলে টাপু। জেঠালাল, দয়া এবং চম্পকলাল ইংরেজিতে দুর্বল কিন্তু টাপু মেধাবী এবং ইংরেজিতে পারদর্শী। তাদের পারিবারিক বন্ধন গাঢ়। তাদের নিজস্ব একটি দোকান রয়েছে "গাড়া ইলেকট্রনিক্স" নামে যেটি জেঠালাল পরিচালনা করে।

জেঠালাল চম্পকলাল গাড়া[সম্পাদনা]

এটি চরিত্রায়ণ করেছে দিলীপ জোশি। সে ধারাবাহিকটির মূল চরিত্র এবং তাকে ঘিরেই ধারাবাহিকটির কাহিনী তৈরি হয়। জেঠালাল খুব বেশি লম্বা নয়, তার ওজন বেশি এবং তার ছোট গোঁফ রয়েছে। সে একজন সৎ ব্যবসায়ী, আদর্শ ছেলে, স্বামী এবং পিতা। চরিত্রে সে একজন অযত্নবান, অলস প্রকৃতির মানুষ। সে খেতে ভালোবাসে ও তার প্রিয় খাদ্য হলো গুজরাটি খাবার "জালেবী (জিলাপি)" এবং "ফাফড়া"। অনেক সময় তার বাবা তাকে বকা দেয় দয়া এবং টাপুর প্রতি কড়া হওয়ার জন্য। যদিও সে তার বাবাকে ভয় পায় সে তার বাবার সম্মান করে এবং সবসময় যেখানে সেখানে তার বাবার পা ছুয়ে তার আশীর্বাদ নেয়। সে টাপুর ব্যাপারে খুবই যত্নবান এবং "ভিড়ে" থেকে তাকে সবসময় রক্ষা করে যে টাপুর দুষ্টামির বিচার নিয়ে আসে। এবং তাদের মধ্যে ঝগড়া শুরু হয়। তার একটি দোকান রয়েছে "গাড়া ইলেকট্রনিক্স" নামে। চম্পকলাল তাকে জেঠিয়া বলে ডাকে। দয়া তাকে টাপু কে পাপা (টাপুর বাবা), ববিতা তাকে জেঠাজি এবং সোসাইটির অন্যান্য মহিলারা জেঠাভাই বলে ডাকে। জেঠালাল তার স্ত্রী দয়াকে গভীরভাবে ভালোবাসলেও ববিতার প্রতি তার গোপন আকর্ষণ রয়েছে। সে ববিতা কে পটানোর কোনো সুযোগ হাতছাড়া করতে চায় না। জেঠালাল এর মতে তার ভাগ্য অনেক খারাপ যার ফলে সে সবসময় বিপদে পড়ে। সে সবসময় তার শ্যালক সুন্দরলাল এর উপর বিরক্ত থাকে। কিন্তু দয়ার কারণে সবসময় চুপ থাকে যে তার ভাইকে অনেক ভালোবাসে। তাদের দুইজনের মধ্যে একটি শীতল যুদ্ধ আছে যেটির ব্যাপারে তার বন্ধু তারাক মেহতা ছাড়া কেউই অবগত নয়। তার দোকানের কর্মচারী নাটু কাকা তাকে সবসময় বেতন বাড়ানোর জন্য দাবি করে, এবং বাঘা তার বিভিন্ন রকমের বুদ্ধি ও তার প্রেমিকা বাউরি দোকান চলার সময় তাকে বিরক্ত করে। তার মূল শত্রু হলো কৃষ্ণাণ আইয়ার, ববিতার স্বামী। তার সবচেয়ে কাছের বন্ধু হলো তারাক মেহতা, যে জেঠালাল কে বিপদ থেকে উদ্ধার করে। তাই জেঠালাল তাকে "ফায়ার ব্রিগেড" বলে ডাকে।

দয়া জেঠালাল গাড়া[সম্পাদনা]

দয়া ভাবী এবং দয়া বেন নামেও পরিচিত। চরিত্রটি ধারণ করেছে দিশা ভাকানি। সে জেঠালাল এর বউ। সে আহমেদাবাদ থেকে এসেছে এবং "গরবা" নৃত্য করতে ভালোবাসে।

পুরস্কার[সম্পাদনা]

সাল বিভাগ অনুষ্ঠান নোট
২০১২ সেরা অভিনেতা - কমেডি ইন্ডিয়ান টেলিভিশন একাডেমী অ্যাওয়ার্ড [৩]
২০১৪ সেরা অভিনেতা - কমেডি ইন্ডিয়ান টেলিভিশন একাডেমী অ্যাওয়ার্ড [৪]
২০০৯ কমিক চরিত্রে সেরা অভিনেতা (পুরুষ) ইন্ডিয়ান টেলি অ্যাওয়ার্ড [৫]
২০১০ কমিক চরিত্রে সেরা অভিনেতা (পুরুষ) ইন্ডিয়ান টেলি অ্যাওয়ার্ড [৬]
২০১২ কমিক চরিত্রে সেরা অভিনেতা (পুরুষ) ইন্ডিয়ান টেলি অ্যাওয়ার্ড [৬]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. Jambhekar, Shruti (২৩ অক্টোবর ২০১৮)। "Gujarat comes alive on TV"The Times of India। সংগ্রহের তারিখ ২৩ অক্টোবর ২০১৮ 
  2. Awaasthi, Kavita (২৪ অক্টোবর ২০১২)। "Taarak Mehta... completes 1,000 episodes"Hindustan Times। ৭ এপ্রিল ২০১৪ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৬ এপ্রিল ২০১৪ 
  3. "IITA Award"। ২১ অক্টোবর ২০১৩ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২১ অক্টোবর ২০১৩ 
  4. "IITA Awards winner list"। ৭ নভেম্বর ২০১৪ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০ জুলাই ২০১৬ 
  5. "The Ninth Indian Telly Awards > Winners"tellyawards.indiantelevision.com। ১১ ফেব্রুয়ারি ২০১২ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৬ জানুয়ারি ২০১৯ 
  6. "The Tenth Indian Telly Awards"। Tellyawards.indiantelevision.com। ২০১৩-১০-১৬ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০১৪-০২-১৯ 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]