জুলি হেইডেন

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
জুলি হেইডেনের পেন্সিল স্কেচ, হারপার'স উইকলি, ১৮৭৪

জুলি হেইডেন (জন্ম: আনুমানিক ১৮৫৭ - মৃত্যু: ২১ আগস্ট, ১৮৭৪) (কখনও কখনও জুলিয়া হেইডেন নামে পরিচিত), একজন আমেরিকান সতের বছর বয়সী কৃষ্ণাঙ্গ বিদ্যালয় শিক্ষিকা ছিলেন, যিনি টেনেসির কৃষ্ণাঙ্গ শিশুদের জন্য একটি স্কুলে শিক্ষকতা শুরু করার কয়েক দিনের মধ্যে শ্বেতাঙ্গ বর্ণবাদী সংগঠন হোয়াইট ম্যানস লীগের সদস্যদের দ্বারা খুন হন।

প্রাথমিক জীবন এবং শিক্ষা[সম্পাদনা]

জুলি হেইডেন টেনেসির মৌরি কাউন্টির স্প্রিং হিলে বড় হয়েছেন।[১][২] তিনি ন্যাশভিলের সেন্ট্রাল টেনেসি কলেজে পড়েন, যা ছিল কৃষ্ণাঙ্গ শিক্ষার্থিদের জন্য স্থাপিত পাঠদানের জন্য শিক্ষক প্রশিক্ষণের একটি কলেজ[১]

হত্যা[সম্পাদনা]

জুলি হেইডেন কৃষ্ণাঙ্গ শিশুদের শিক্ষাদানের দায়ে শ্বেতাঙ্গ বর্ণবাদীদের হাতে খুন হয়েছিল।[২] ন্যাশভিল থেকে টেনেসির ট্রাউসডেল কাউন্টির হার্টসভিলে "কৃষ্ণাঙ্গদের শিক্ষিত করার জন্য" গমন করেছিলেন।[৩][১] সেই সময়ে কৃষ্ণাঙ্গদের পড়তে শেখানোকে "শ্বেতাঙ্গ নিয়ন্ত্রণকে চ্যালেঞ্জ করা হিসাবে" ব্যাখ্যা করা হয়েছিল"।[৩] হত্যার সময়, জুলি হেইডেন এমেরি লো এবং তার স্ত্রী পিঙ্ক-এর সাথে একজন বোর্ডার হিসাবে অবস্থান করছিলেন।[৪] হার্টসভিলায় তার আগমনের তিন দিন পর, ২১ আগস্ট মাঝরাতে ২:০০ টায়, লোয়ের বাড়িতে হোয়াইট ম্যানস লীগের সদস্যরা আক্রমণ করে, তার সাথে সাক্ষাৎ করতে চায় জানিয়ে ঘরের বাইরে আসতে বলে, বাড়ির ভিতর তাড়া করে এবং গুলি করে হত্যা করে।[১][৩][৪] আমেরিকার তৎকালীন রাজনৈতিক সাময়িকপত্র হারপার'স উইকলির মতে, "তার হত্যাকারীরা পালিয়ে গেছে, অথবা জুলিয়া হেডেনের মৃত্যুর প্রতিশোধ নেওয়ার সম্ভাবনা নেই, যদি না জাতি হোয়াইট ম্যানস লিগ নির্মূলের উপর জোর না দেয়।"[৩][১]

প্রতিক্রিয়া ও বিচার[সম্পাদনা]

১৮৭৪ সালের আগস্টে, রিপাবলিকান ব্যানার জুলি হেইডেন হত্যা সংক্রান্ত একটি প্রতিবেদনে উল্লেখ করে যে জননির্দেশনা তত্ত্বাবধায়ক, কর্নেল জন ফ্লেমিং, ট্রাউসডেল কাউন্টির তত্ত্বাবধায়ক রবার্ট এস স্মিথকে হত্যার বিষয়ে একটি প্রতিবেদন দিতে অনুরোধ করেছিলেন।[৫] একই বছর সেপ্টেম্বরে, জুলি হেইডেনের পরিবারের মূল আবাস স্প্রিং হিলের কৃষ্ণাঙ্গ নাগরিকরা, টেনেসির গভর্নর জন সি ব্রাউনকে হত্যাকারীদের খুঁজে বের করতে এবং গ্রেপ্তারের জন্য আবেদন করেছিল।[৪] টেনেসির প্রশাসক প্রত্যেক খুনীকে ধরার জন্য মাথাপিছু ৫০০ ডলার পুরস্কার ঘোষণা দিয়েছিলেন।[২]

জুলি হেইডেন হত্যা মামলায় প্যাট লায়ন্স এবং জে বোয়েন সন্ডার্সের বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করা হয়েছিল।[৪] বিচার চলাকালীন, সন্ডার্স স্বীকার করেছিল যে তিনি দুইজন কৃষ্ণাঙ্গ মানুষকে হত্যা করেছিলেন।[৬] ১ সালের অক্টোবরে আসামিরা ৩৫০০ ডলারের জামিনে মুক্তি পায়।[৭]

কিংবদন্তী[সম্পাদনা]

অ্যালান ফ্রাইডল্যান্ডার এবং রিচার্ড অ্যালেন গারবারের তাদের ওয়েলকামিং রুইনঃ দ্য সিভিল রাইটস এক্ট অব ১৮৭৫ গ্রন্থে জুলি হেইডেন সম্পর্কে আমেরিকার "দক্ষিণাঞ্চলীয় সহিংসতার 'পোস্টার চাইল্ড' হয়েছিলেন" মর্মে মন্তব্য করেছেন।[৮]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "Louisiana and the Rule of Terror"Harper's Weekly: 813। অক্টোবর ৩, ১৮৭৪ – HathiTrust-এর মাধ্যমে। 
  2. "Julia Hayden, Teacher, Murdered"The New Northwest। সেপ্টেম্বর ২৫, ১৮৭৪। পৃষ্ঠা 4। সংগ্রহের তারিখ ফেব্রুয়ারি ২৬, ২০২১ 
  3. Harris, Michael D. (২০০৩)। Colored pictures : race and visual representation। Chapel Hill: University of North Carolina Press। পৃষ্ঠা 58–60। আইএসবিএন 0-8078-2760-6ওসিএলসি 50006525 
  4. "The Hayden Assassination"The Tennessean। সেপ্টেম্বর ৯, ১৮৭৪। 
  5. "The Murder of Julie Hayden"Republican Banner। আগস্ট ২৯, ১৮৭৪। পৃষ্ঠা 4। সংগ্রহের তারিখ ফেব্রুয়ারি ২৫, ২০২১ 
  6. "Crime in Tennessee"। The Weekly Clarion। Jackson, Mississippi। ১৭ সেপ্টেম্বর ১৮৭৪। পৃষ্ঠা 1। 
  7. "Notes and Comments"The St. Albans Daily Messenger। অক্টোবর ২০, ১৮৭৪। পৃষ্ঠা 2। সংগ্রহের তারিখ আগস্ট ২৩, ২০২১ 
  8. Friedlander, Alan; Gerber, Richard Allan (জানুয়ারি ১, ২০১৯)। Welcoming Ruin: The Civil Rights Act of 1875। BRILL। আইএসবিএন 978-90-04-35914-7ডিওআই:10.1163/9789004384071_007