জিয়াউল হক পলাশ

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
জিয়াউল হক পলাশ
জন্ম৩ ফেব্রুয়ারি ১৯৯৩
জাতীয়তাবাংলাদেশী
শিক্ষাঅর্থসংস্থান ও ব্যাংকিং, অনার্স
মাতৃশিক্ষায়তনগভর্নমেন্ট ল্যাবরেটরি স্কুল
তিতুমীর কলেজ
পেশাঅভিনেতা
পরিচালক
উল্লেখযোগ্য কর্ম
ব্যাচেলর পয়েন্ট
ফ্যামিলি ক্রাইসিস

জিয়াউল হক পলাশ একজন বাংলাদেশী ছোটপর্দার জনপ্রিয় অভিনেতা ও পরিচালক। বিশেষ করে দর্শকদের মাঝে তিনি হাস্যরসাত্মক চরিত্রের জন্য বেশ জনপ্রিয়। ব্যাচেলর পয়েন্ট নাটকে তিনি "কাবিলা" চরিত্রে অভিনয় করে দর্শকদের মাঝে বিশেষ করে তরুণদের মাঝে বেশ জনপ্রিয় হয়ে উঠেছেন। এছাড়াও ফ্যামিলি ক্রাইসিস নাটকে "পারভেজ" নামে বেশ পরিচিত হয়ে উঠেন। এই নাটকটিতে মূলত তিনি তার ছন্দ ছাড়া অনর্গল কবিতা বলার জন্য বেশ জনপ্রিয়।[১][২][৩]

প্রাথমিক ও শিক্ষা জীবন[সম্পাদনা]

পলাশ জন্ম গ্রহণ নোয়াখালী জেলার সোনাইমুড়ি উপজেলার কালিকাপুর গ্রামে। কিন্তু তার বেড়ে ওঠা ঢাকার নাখালপাড়ায়। পড়ালেখায় তিনি তেমন ভালো ছিলেন না। গভর্নমেন্ট ল্যাবরেটরি স্কুল হতে ২০০৯ সালে এস.এস.সি পরীক্ষা দেন, কিন্তু এতে তার ফলাফল ভালো হয়নি। তাই পুনরায় আবার ২০১০ সালে পরীক্ষা দেন। এইচ.এস.সি পাশ করেন ২০১৩ সালে। এরপর তিতুমীর কলেজে ভর্তি হোন এবং সেখান থেকে ফিন্যান্স অ্যান্ড ব্যাংকিং বিষয়ে অনার্স সম্পূর্ণ করেন।[৪]

কর্মক্ষেত্র[সম্পাদনা]

পলাশ এখন একজন হাস্যরসাত্মক অভিনেতা হিসেবে পরিচিত হলেও তিনি কিন্তু একজন পরিচালক। তিনি তার কর্মজীবন শুরু করেন পরিচালক হিসেবে। তিনি প্রায় দুই বছর মোস্তফা সারোয়ার ফারুকির কাছে প্রশিক্ষণ নেন।[৫][৬][৭]

অভিনয় জীবন[সম্পাদনা]

পলাশ ২০১৪ সাল থেকে এখনও অবদি অভিনয় করতেছেন। তিনি বর্তমান সময়ের বেশ কয়েকটি জনপ্রিয় নাটকে অভনিয় করেছেন এবং করতেছেন। যেমন বর্তমান সময়ের জনপ্রিয় ধারাবাহিক নাটক "ব্যাচেলর পয়েন্ট" নাটকে তিনি কাবিলা চরিত্রে অভিনয় করতেছেন। এছাড়াও তিনি 'এক্স বয়ফ্রেন্ড', 'এক্স গার্লফ্রেন্ড', 'ব্যাচেলর ঈদ', 'ব্যাচেলর ট্রিপ', 'মি অ্যান্ড ইউ', 'ইনকমপ্লিট', 'মুঠোফোন'সহ আরো অনেক নাটকে অভিনয় করতেছেন।[৮] পরিচালনা করেছেন ফ্রেন্ড উইথ বেনিফিটসারপ্রাইজ[৯][১০][১১]

পরিচালনা[সম্পাদনা]

তিনি এই পর্যন্ত কয়েকজন জনপ্রিয় পরিচালকের সাথে সহকারী পরিচালক হিসেবে কাজ করেছেন। এছাড়াও নিজে কয়েকটি নাটক তৈরি করেছেন। তিনি তার পরিচালনায় "ফ্রেন্ড উইথ বেনিফিট" এবং "সারপ্রাইজ" নামক নাটক তৈরি করেছেন।[১২]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "পলাশ থেকে কাবিলা || সংস্কৃতি অঙ্গন"সমকাল। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-০১-৩০ 
  2. "এই সময়ের জনপ্রিয় অভিনেতা "জিয়াউল হক পলাশ" || সংস্কৃতি অঙ্গন"প্রতিক্ষণসংবাদ। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-০১-৩০ 
  3. "যেভাবে পরিচালক থেকে অভিনেতা হলেন পলাশ"dhakapost.com। সংগ্রহের তারিখ ২০২১-০৮-২৭ 
  4. "নোয়াখালীর ভাষা নিয়ে যা বললেন কাবিলা খ্যাত পলাশ"যুগান্তর। সংগ্রহের তারিখ ২০২১-০৮-২৭ 
  5. "পরিচালক হিসেবে প্রশংসা পাচ্ছেন পলাশ"চ্যানেল আই অনলাইন-US। ২০২১-০৫-২১। সংগ্রহের তারিখ ২০২১-০৮-২৭ 
  6. প্রতিবেদক, নিজস্ব। "পলাশের 'চাপাবাজি'ই দর্শকের পছন্দ"প্রথম আলো। সংগ্রহের তারিখ ২০২১-০৮-২৭ 
  7. "নাটক বানাতে গিয়ে ভক্তদের 'মধুর বিড়ম্বনায়' পলাশ"আরটিভি। সংগ্রহের তারিখ ২০২১-০৮-২৭ 
  8. "শেষ দৃশ্যে আমাদের অবস্থা দেখে জেলে থাকা আসামীরাও কেঁদেছে: পলাশ"চ্যানেল আই অনলাইন-US। ২০২১-০৪-১৪। সংগ্রহের তারিখ ২০২১-০৮-২৭ 
  9. "পলাশ থেকে কাবিলা..."সমকাল। সংগ্রহের তারিখ ২০২১-০৮-২৭ 
  10. "ঈদে পলাশের পরিচালনায় নাটক"বাংলাদেশ প্রতিদিন। ২০২১-০৪-১৭। সংগ্রহের তারিখ ২০২১-০৮-২৭ 
  11. "'কালা জইস্যা' পলাশের জন্মদিন আজ"এনটিভি। ২০২০-০২-০৩। সংগ্রহের তারিখ ২০২১-০৮-২৭ 
  12. "হতাশ হওয়ার কিছু নেই -জিয়াউল হক পলাশ"মানবজমিন। সংগ্রহের তারিখ ২০২১-০৮-২৭