জাকার্তার পরিবহন ব্যবস্থা

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন

সুরাবায়ার পরিবহন স্থল, সমুদ্র এবং বিমান পরিবহনের মাধ্যমে স্থানীয়, আঞ্চলিক এবং আন্তর্জাতিক যাত্রায় সাহায্য করছে। শহরের অভ্যন্তরে প্রাথমিক যাতায়াত ব্যাবস্থা হল মোটর যান, মোটরসাইকেল এবং ট্যাক্সি। কিছু পাব্লিক বাস পরিবহন রয়েছে।[১] বাস পরিবহনের দ্বারা শহরটি জাভা দ্বীপ এর গুরুত্ব পূর্ন শহরের সঙ্গে যুক্ত।এছাড়া শহরটিতে রেল পরিবহন ব্যবস্থা রয়েছে।মিটার গেজ রেল ধ্বারা শহরটি বানদুং শহরের সঙ্গে যুক্ত।

সড়ক[সম্পাদনা]

শহরটিতে সড়ক পথে বাস ,ব্যক্তিগত গাড়ি, টাক্সি প্রভৃতির দ্বারা গন পরিবহন ব্যবস্থা গড়ে উঠেছে।এই শহরটি বহু এক্সপ্রেসওয়ে ও মহাসড়ক দ্বার অনওয শহরের সঙ্গে যুক্ত।

রেল[সম্পাদনা]

শহরটিতে প্রথম রেল চালু হয় ১৮৬৭ সালে।এর পর ধীরে ধীরে রেল পথের প্রসার ঘটে।শহরটি থেকে শহরগলী রেল ও দূরপাল্লা উভয় রেল চলাচল করে।

উচ্চগতির রেল[সম্পাদনা]

উচ্চগতির রেল পথের সম্ভাব পথ

জাকার্তা- বানদুং হাইস্পিড রেল পথ [২] বা জাকার্তা বানদুং উচ্চ-গতির রেল পথ [৩] হল ইন্দোনেশিয়া এর জাভা দ্বীপ এর পশ্চিম থেকে পূর্ব দিকে পরিকল্পনাধিন একটি উচ্চ গতির রেল পথ।এই রেল পথটি জাভা দ্বীপ এর পশ্চিমে অবস্থিত দেশের রাজধানী জাকার্তা থেকে জাভা দ্বীপের পূর্বের শহর বানদুং পর্যন্ত নির্মাণ করা হবে।ইন্দোনেশিয়া সরকার ২০১০ সালে প্রথম এই প্রকল্পের কথা ঘোষণা করে।কিন্তু পরিকল্পনাটি সফল হয়নি।এর পর ২০১৫ সালে এই প্রকল্প নতুন ভাবে শুরু হয়।এই রেল পথ নির্মাণ প্রকল্পে চিনজাপান উভয় দেশই আগ্রহ দেখিয়েছে।দেশ দুটি জাকার্তা থেকে বানদুং পর্যন্ত ১৫০ কিলোমিটার পথে পর্যবেক্ষন করেছে।এর পর জাপান বানদুং থেকে জাভা দ্বীপের পূর্ব অংশের শহর সরাবায়া পর্যন্ত ৭৩০ কিলোমিটার পথ পর্যবেক্ষন করেছে।কিন্তু এই রেল পথ নির্মাণের দায়ীত্ব পায় চিন এর চীনা রেলওয়ে ইন্টারন্যাশনাল ।২০১৬ সালে এই ঘোষণা করে ইন্দোনেশিয়া সরকার।এই রেল পথ ( জাকার্তা থেকে বানদুং) নির্মাণে খরচ ধরা হয়েছে ৫.১৩৫ মার্কিন ডলার।

মেট্রো রেল[সম্পাদনা]

জাকার্তা মেট্রো রেল হল এই দেশের প্রথম মেট্রো রেল ব্যবস্থা।এই ব্যবস্থার দ্বারা সহজে জাকার্তার বিভিন্ন অংশে যাতায়াত করা যায়।এই রেল ব্যবস্থার নতুন পথ নির্মাণের কাজ চলছে।

বন্দর ও জলপথ[সম্পাদনা]

শহরটির প্রধান বন্দর হল তান্জুং প্রিওক বন্দর বা জাকার্তা বন্দর।এই বন্দর দ্বারা দেশের ৫০ শতাংশ পণ্য পরিবহন করা হয়।বন্দরটি জাকার্তার কাছেই সমুদ্র উপকূলে গড়ে এঠেছে।এই বন্দরটি গভীর পোতাশ্রয় যুক্ত।এটি দেশের বৃহত্তম কন্টেইনার বন্দর।এই শহরটি এই বন্দরটিকে কেন্দ্র করেই গড়ে উঠেছে।

বিমান পরিবহন[সম্পাদনা]

আরও দেখুন[সম্পাদনা]

জাকার্তা-বানদুং হাইস্পিড রেল পথ

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "জাকার্তা পরিবহন"। সংগ্রহের তারিখ ২৯-১১-২০১৬  এখানে তারিখের মান পরীক্ষা করুন: |সংগ্রহের-তারিখ= (সাহায্য)[স্থায়ীভাবে অকার্যকর সংযোগ]
  2. "ইন্দোনেশিয়ার উচ্চগতির রেলওয়ে প্রকল্প বাধাগ্রস্ত যাত্রা"। সংগ্রহের তারিখ ২৫-১১-২০১৬  এখানে তারিখের মান পরীক্ষা করুন: |সংগ্রহের-তারিখ= (সাহায্য)[স্থায়ীভাবে অকার্যকর সংযোগ]
  3. "Jakarta-Bandung high-speed railway to get chinese loan"। সংগ্রহের তারিখ ২৫-১১-২০১৬  এখানে তারিখের মান পরীক্ষা করুন: |সংগ্রহের-তারিখ= (সাহায্য)