জলঢাকা সরকারি কলেজ

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে

জলঢাকা সরকারি কলেজ (জলঢাকা ডিগ্রি কলেজ) হল বাংলাদেশের নীলফামারী জেলার জলঢাকা উপজেলা শহরে অবস্থিত একটি সরকারি মহাবিদ্যালয়। কলেজটি ১৯৭২ সালে প্রতিষ্ঠিত হয়। এ শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে উচ্চ মাধ্যমিক, স্নাতক (পাশ ও সম্মান) পর্যায়ে শিক্ষাদান করে থাকে। এটি মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ড, দিনাজপুর এবং জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয় অধিভুক্ত। জলঢাকা কলেজ মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদপ্তর ও কলেজ পরিচালনা কমিটি দ্বারা পরিচালিত হয়। বর্তমানে এ কলেজে ৯৮ জন শিক্ষক ও ১৭ জন কর্মচারী রয়েছে।

ইতিহাস[সম্পাদনা]

জলঢাকা কলেজটি ১৯৭২ সালের ১লা জানুয়ারি প্রতিষ্ঠিত হয়। ২০১৪ সালে এ কলেজে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের অধীনে স্নাতক সম্মান কোর্স চালু হয়।[১] ২০১৬ সালে সরকার প্রতিটি উপজেলার একটি করে কলেজ সরকারিকরণ করার ঘোষণা দেয়,[২] পরে ২০১৮ সালের ৮ আগস্টে প্রকাশিত প্রজ্ঞাপনে জলঢাকা কলেজকে সরকারিকরণ করা হয়।[৩] এবং নামের সাথে সরকারি যোগ হয়ে জলঢাকা সরকারি কলেজ হয়।

ক্যাম্পাস[সম্পাদনা]

জলঢাকা কলেজটি নীলফামারী জেলার জলঢাকা উপজেলার প্রানকেন্দ্রে অবস্থিত। কলেজটি শহরের উত্তর প্রান্তে কেন্দ্রীয় ষ্টেডিয়াম সংলগ্ন ১১.০২ একর জমির উপর প্রতিষ্ঠিত। কলেজটির ৩ তলা বিশিষ্ট ভবন সংখ্যা ৩ টি, ১ তলা বিশিষ্ট ভবন ৩টি (প্রশাসনিক ভবন সহ) ও টিন শেট ভবন ৩ টি। এ ছাড়াও কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারের আদলে একটি মনোমুগ্ধকর শহীদ মিনার, জামে মসজিদ, খেলার মাঠ, ছাত্র/ছাত্রীদের কমনরুম, একটি সু-বিশাল পুকুর, সাইকেল গ্যারেজ ও কলেজের বনজ, ফলজ ও ঔষধি গাছের বাগান রয়েছে।

শিক্ষা কার্যক্রম[সম্পাদনা]

দিনাজপুর শিক্ষাবোর্ডে অধীনে এইচ.এস.সি, জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের অধীনে ডিগ্রী (পাশ) ও ১১ টি বিষয়ে অনার্স কোর্সে পাঠদান করা হয়। এইচ.এস.সি , ডিগ্রী (পাশ) ও অনার্স কোর্সে প্রায় ৪৫০০ শিক্ষার্থী রয়েছে। কলেজে সহশিক্ষামুলক কার্যক্রম রোভার স্কাউট, বি.এন.সি.সি, বিতর্ক পরিষদ সহ বিভিন্ন সাংস্কৃতিকমুলক কর্মকাণ্ড ব্যাপকভাবে পালন করা হয়।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "জলঢাকা ডিগ্রি মহাবিদ্যালয়ে অনার্স ক্লাশের যাত্রা শুরু"উত্তর বাংলা। সংগ্রহের তারিখ ২০১৯-০৯-২৫ 
  2. "সরকারি হচ্ছে ১৯৯ কলেজ"বাংলাদেশ প্রতিদিন। সংগ্রহের তারিখ ২০১৯-০৯-২৫ 
  3. "সরকারি হলো ২৭১ কলেজ"The Daily Ittefaq। সংগ্রহের তারিখ ২০১৯-০৯-২৫