জম্মু ও কাশ্মীর উচ্চ আদালত

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
জম্মু ও কাশ্মীর উচ্চ আদালত
Jammu and Kashmir High Court
जम्मू और कश्मीर उच्च न्यायालय
225x250px
প্রতিষ্ঠাকাল২৬ মার্চ ১৯২৮ [২]
অধিক্ষেত্র ভারত
অবস্থানশ্রীনগর (গ্রীষ্মকালীন) এবং জম্মু (শীতকালীন)
প্রণয়ন পদ্ধতিরাষ্ট্রপতি শাসিত, ভারতের প্রধান বিচারপতি এবং রাজ্যপালের অনুমোদনক্রমে
অনুমোদনকর্তাভারতের সংবিধান
রায় পুনর্বিচারের আবেদন স্থানভারতের সুপ্রিম কোর্ট
বিচারকের মেয়াদ৬২ বছর বয়সে বাধ্যতামূলক অবসর
পদের সংখ্যা১৭ (১৩জন স্থায়ী বিচারক এবং ৪জন অতিরিক্ত বিচারক)
তথ্যক্ষেত্রwww.jkhighcourt.nic.in
প্রধান বিচারপতি
সম্প্রতিবিচারক গীতা মিত্তাল
হইতে১১ আগস্ট ২০১৮

জম্মু ও কাশ্মীর হাইকোর্ট প্রকৃতপক্ষে জম্মু ও কাশ্মীর এবং লাদাখের উচ্চ আদালত।১৯২৮ সালে জম্মু কাশ্মীরের মহারাজা কর্তৃক এক ঘোষণা অনুসারে বিশেষ অধিকারবলে এটি প্রতিষ্ঠিত হয়েছিল। জম্মু ও কাশ্মীরে ঋতু পরিবর্তনের সাথে সাথে রাজধানীও পরিবর্তিত হয়। এ রাজ্যের গ্রীষ্মকালীন রাজধানী হল শ্রীনগর ও শীতকালীন রাজধানী হল জম্মু। তাই আদালতের স্থানও এই অনুসারে পরিবর্তিত হয়। আদালতটিতে মোট ১৭ জন অনুমোদিত বিচারক রয়েছেন যার মধ্যে ১৩ জন স্থায়ী বিচারক এবং ৪ জন অতিরিক্ত বিচারক।[৩][৪]

ইতিহাস[সম্পাদনা]

১৯২৮ সালের ২রা মার্চ জম্মু কাশ্মীরের মহারাজার জারিকৃত আদেশ নং -১ এর ভিত্তিতে জম্মু ও কাশ্মীরের উচ্চ আদালত প্রতিষ্ঠিত হয়েছিল। তিনি লালা কানওয়ার সাঁইকে প্রথম প্রধান বিচারপতি এবং লালা বোধ রাজ সওহনি এবং খান সাহেব আগা সৈয়দ হোসেনকে নিম্নপদস্থ বিচারক নিযুক্ত করেছিলেন।[৫] উচ্চ আদালতের আসনগুলি তখন জম্মু ও শ্রীনগরে ছিল। ১৯৪৩ সালের ১০ সেপ্টেম্বর মহারাজা আদালতটিকে বিশেষ অধিকার প্রদান করেছিলেন। খান সাহেব আগা সৈয়দ হোসেন[৬] উচ্চ আদালতটির প্রথম মুসলিম বিচারক ছিলেন। মহারাজার শাসনামলেই তিনি জম্মু ও কাশ্মীরের মূখ্যমন্ত্রী ও বিচারমন্ত্রীর পদ থেকে অবসর গ্রহণ করেছিলেন।[৭] ২০১৮ সালের আগস্টে জম্মু ও কাশ্মীর উচ্চআদালতে প্রথম এবং দ্বিতীয় মহিলা বিচারক যোগদান করেন। সিন্ধু শর্মা জম্মু ও কাশ্মীর উচ্চ আদালতের বিচারক হিসেবে যোগদান করেন এবং বিচারপতি গীতা মিত্তাল প্রধান বিচারপতি হিসাবে নিযুক্ত হন।

২০১৯ সালের আগস্টে ভারতীয় সংসদের উচ্চ ও নিম্ন উভয় কক্ষে একটি পুনর্গঠন বিল পাস হয়। বিলে বিদ্যমান বিধিসমূহে জম্মু ও কাশ্মীর রাজ্যকে দুটি কেন্দ্রশাসিত অঞ্চল হিসেবে পুনর্গঠন করা হয়েছে। এদের একটি হলো জম্মু ও কাশ্মীর (কেন্দ্রশাসিত অঞ্চল) এবং অপরটি হলো লাদাখ। বিলটি ৩১শে অক্টোবর,২০১৯ থেকে কার্যকর হয়। পূর্বে প্রতিষ্ঠিত জম্মু ও কাশ্মীর উচ্চ আদালতটি বর্তমানে উভয় কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলেরই উচ্চ আদালত হিসেবে বিচারকার্য পরিচালনা করছে।

বর্তমান প্রধান বিচারপতি[সম্পাদনা]

বিচারপতি গীতা মিত্তাল ১১ই আগস্ট ২০১৮ ইং তারিখে জম্মু ও কাশ্মীর উচ্চ আদালতের প্রধান বিচারপতি হিসাবে শপথ গ্রহণ করেন।[৮]

প্রাক্তন প্রধান বিচারপতিদের তালিকা[সম্পাদনা]

# Chief Justice Term
কনওয়ার সাঁই ২৭ এপ্রিল ১৯২৮ - ১৬ ফেব্রুয়ারি ১৯৩১
বীর্জর দালাল ১৬ ফেব্রুয়ারি ১৯৩১ - ২৪ নভেম্বর ১৯৩৬
আব্দুল কাইয়ুম ২৪ নভেম্বর ১৯৩৬ - ২০ জুলাই ১৯৪০
রাছপাল সিং ১৩ আগস্ট ১৯৪০ - ৬ মার্চ ১৯৪২
গঙ্গানাথ ২৪ জুন ১৯৪২ - ২৩ অক্টোবর ১৯৪৫
এস. কে. ঘোষ ২৯ মার্চ ১৯৪৬ - ২৯ মার্চ ১৯৪৮
জানকী নাথ ওয়াজির ৩০ মার্চ ১৯৪৮ - ২ ডিসেম্বর ১৯৬৭
সৈয়দ মুর্তজা ফজল আলী ৩ ডিসেম্বর ১৯৬৭ - ১ এপ্রিল ১৯৭৫
রাজা জশবন্ত সিং ২ এপ্রিল ১৯৭৫ - ২৩ জানুয়ারি ১৯৭৬
১০ এম. আর. এ. আনসারি ২৩ জানুয়ারি ১৯৭৬ - ৮ নভেম্বর ১৯৭৭
১১ মিয়াঁ জালাল উদ্দিন ১৫ ফেব্রুয়ারি ১৯৭৮ - ২২ ফেব্রুয়ারি ১৯৮০
১২ মুফতি বাহা উদ্দিন ৭ মার্চ ১৯৮৩ - ২৩ আগস্ট ১৯৮৩
১৩ ভাযহাক্কুলাঙ্গারাইল খালিদ ২৪ আগস্ট ১৯৮৩ - ২৪ জুন ১৯৮৪
১৪ আদর্শ সেন আনন্দ ১১ মে ১৯৮৫ - ২৩ অক্টোবর ১৯৮৯
১৫ এস. এস. কাং ২৪ অক্টোবর ১৯৮৯ - ১৪ মে ১৯৯৩
১৬ এস. সি. মথুর ১০ অক্টোবর ১৯৯৩ - ১৭ মার্চ ১৯৯৪
১৭ এস. সগীর আহমদ ১৮ মার্চ ১৯৯৪ - ২২ সেপ্টেম্বর ১৯৯৪
১৮ এম. রামকৃষ্ণ ১০ অক্টোবর ১৯৯৪ - ১৫ জুন ১৯৯৭
১৯ ভবানী সিং ১৬ জুন ১৯৯৭ - ২১ ফেব্রুয়ারি ২০০০
২০ বি. পি. শরফ ২১ ফেব্রুয়ারি ২০০০ - ২২ আগস্ট ২০০১
২১ এইচ. কে. সেমা ১২ সেপ্টেম্বর ২০০১ - ৮ এপ্রিল ২০০২
২২ বি. সি. প্যাটেল ১৬ মে ২০০২ - ৪ মার্চ ২০০৩
২৩ এস. এন. ঝা ৪ ফেব্রুয়ারি ২০০৪ - ১১ অক্টোবর ২০০৫
২৪ বি. এ. খান ২৫ জানুয়ারি ২০০৭ - ৩১ মার্চ ২০০৭
২৫ আফতাব আলম ৭ জুন ২০০৭ - ১০ নভেম্বর ২০০৭
২৬ কে. এস. রাধাকৃষ্ণান ৭ জানুয়ারি ২০০৮ - ২৮ আগস্ট ২০০৮
২৭ মনমোহন সারিন ৪ সেপ্টেম্বর ২০০৮ - ১৯ অক্টোবর ২০০৮
২৮ বারীন ঘোষ ৩ জানুয়ারি ২০০৯-১৩ এপ্রিল ২০১০
২৯ ড. আফতাব হোসেন সাইকিয়া ১৩ এপ্রিল ২০১০ - ৬ এপ্রিল ২০১১
৩০ এফ. এম. ইবরাহিম কাইফুল্লাহ ২৪ ফেব্রুয়ারি ২০১১ - ২ এপ্রিল ২০১২
৩১ এম. এম. কুমার ৮ জুন ২০১২ - ৪ জানুয়ারি ২০১৫
৩২ এন. পাল. ভাষানঠাকুর ২ ফেব্রুয়ারি ২০১৫ - ১৪ মার্চ ২০১৭
৩৩ বদর দারেজ আহমদ ১ এপ্রিল ২০১৭ - ১৫ মার্চ ২০১৮
৩৪ রামালিংগাম সুধাকর ১৬ মার্চ ২০১৮ -১১ মে ২০১৮
৩৫ অলোক আরাধে (অস্থায়ী) ১১ মে ২০১৮ -১১ আগস্ট ২০১৮
৩৬ গীতা মিত্তাল ১১ আগস্ট ২০১৮ - বর্তমান

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. http://www.jkhighcourt.nic.in/
  2. "History"Jkhighcourt.nic.in। সংগ্রহের তারিখ ২০১৬-১১-০৬ 
  3. "Law Department J&K"jklaw.nic.in। সংগ্রহের তারিখ ২০১৭-০২-০৮ 
  4. "History"jkhighcourt.nic.in। সংগ্রহের তারিখ ২০১৭-০২-০৮ 
  5. "History"। Jkhighcourt.nic.in। সংগ্রহের তারিখ ২০১৬-১১-০৬ 
  6. http://kashmirlife.net/kandahars-qizilbash-issue-35-vol-09-157293/
  7. Altaf, Sana (২০১১-১২-০১)। "Changing times.."Newsinsight.net। সংগ্রহের তারিখ ২০১৬-১১-০৬ 
  8. Mittal, Gita (২০১৮-০৯-১১)। "Justice Gita Mittal Sworn In As The First Woman Chief Justice Of Jammu & Kashmir High Court..."Bar & Bench। সংগ্রহের তারিখ ২০১৮-০৯-১১ 

আরও পড়ুন[সম্পাদনা]

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]