চেঙ্গিজ আইৎমাতোভ

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
চেঙ্গিজ আইৎমাতোভ
Aitmatov in 2003
Aitmatov in 2003
জন্ম(১৯২৮-১২-১২)১২ ডিসেম্বর ১৯২৮
Sheker, Kirghiz ASSR, Soviet Union
মৃত্যু১০ জুন ২০০৮(2008-06-10) (বয়স ৭৯)
নুরেমবার্গ, জার্মানি[১]
ধরনnovels, short stories
উল্লেখযোগ্য রচনাবলিJamila, The Day Lasts More Than a Hundred Years"

চেঙ্গিজ তোরেকুলোভিচ আইৎমাতোভ ( কিরগিজ: Чыңгыз Төрөкулович Айтматов ; ১২ই ডিসেম্বর ১৯২৮ - ১০ই জুন ২০০৮) একজন কিরগিজ লেখক যিনি কিরগিজ এবং রাশিয়ান উভয় ভাষাতেই লেখালেখি করেছেন। তিনি কিরগিজস্তান সাহিত্যের অন্যতম খ্যাতিমান ব্যক্তিত্ব। [২] [৩]

তাঁর পিতা ছিলেন কিরগিজ এবং মা ছিলেন তাতার। আইৎমাতোভের বাবা ছিলেন শেকার গ্রামের একজন সরকারী কর্মচারী। ১৯৩৭ সালে তার বাবা "বুর্জোয়া জাতীয়তাবাদী" হিসেবে মস্কোতে গ্রেফতার হন এবং ১৯৩৮ সালে তাঁর মৃত্যুদন্ড কার্যকর করা হয়।

আইৎমাতোভ এমন এক সময়ে বাস করতেন যখন কিরগিজস্তান রাশিয়ান সাম্রাজ্যের অন্যতম প্রত্যন্ত ভূমি থেকে সোভিয়েত ইউনিয়নের প্রজাতন্ত্রে রূপান্তরিত হচ্ছিল। তিনি শেকারের একটি সোভিয়েত স্কুলে পড়াশোনা করেছেন। তিনি ছোটবেলা থেকেই কাজ করতেন। চৌদ্দ বছর বয়সে, তিনি গ্রামে একজন সোভিয়েত সচিবের সহকারী ছিলেন। পরবর্তীতে তিনি কখনও কর সংগ্রহকারী, কখনও মাল বহনকারী, আবার কখনও একজন প্রকৌশলীর সহকারী হিসেবেও কাজ করেন এবং অন্যান্য অনেক ধরনের কাজ চালিয়ে যান।

১৯৪৬ সালে তিনি বিশকেকে অবস্থিত কির্গিজ কৃষি ইনস্টিটিউটে পশুপালনবিদ্যা নিয়ে পড়াশোনা শুরু করেন কিন্তু পরবর্তীতে মস্কোতে অবস্থিত গোর্কি সাহিত্য ইনস্টিটিউটে সাহিত্য নিয়ে অধ্যয়ন শুরু করেন। সেখানে তিনি চার বছর ছিলেন। পরের আট বছর তিনি প্রাভদার জন্য কাজ করেছিলেন। তার প্রথম দুটি প্রকাশনা ১৯৫২ সালে রাশিয়ান ভাষায় প্রকাশিত হয়েছিলঃ "দ্য নিউজপেপার বয় ডিজিউইও" এবং "Ашым।" কিরগিজ ভাষায় প্রকাশিত তার প্রথম কাজ ছিল "Ак Жаан" (ধূসর বর্ষণ, ১৯৫৪), এবং তার সুপরিচিত কাজ জামিলা প্রকাশিত হয়েছিল ১৯৫৮ সালে। ১৯৬১ সালে তিনি ২য় মস্কো আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসবে জুরির সদস্য ছিলেন। [৪] ১৯৭১ সালে তিনি ৭ম মস্কো আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসবে জুরির সদস্য ছিলেন। [৫]

১৯৮০ সালে তার প্রথম উপন্যাস দ্য ডে লাস্টস মোর দ্যান আ হ্যান্ড্রেড ইয়ারস প্রকাশিত হয়; তাঁর পরবর্তী উল্লেখযোগ্য উপন্যাস, দ্য প্লেস অফ দ্য স্কাল, ১৯৮৭ সালে প্রকাশিত হয়েছিল। দ্য ডে লাস্টস মোর দ্যান আ হ্যান্ড্রেড ইয়ারসএবং অন্যান্য লেখাগুলো বিভিন্ন ভাষায় অনূদিত হয়েছে।

১৯৯৪ সালে তিনি ৪৪ তম বার্লিন আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসবে জুরির সদস্য ছিলেন। [৬] ২০০২ সালে তিনি ২৪ তম মস্কো আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসবে জুরির সভাপতি ছিলেন। [৭]

আইৎমাতভ বৃক্কের অকার্যকারিতা সমস্যায় ভোগেন এবং ১৬ই মে ২০০৮ তারিখে জার্মানির নুরেমবার্গের একটি হাসপাতালে ভর্তি হন যেখানে তিনি ১০ই জুন ২০০৮ সালে ৭৯ বছর বয়সে নিউমোনিয়ায় মৃত্যুবরণ করেন। তাঁর মৃত্যুর পর আইৎমাতোভের দেহাবশেষ কিরগিজস্তানে নিয়ে যাওয়া হয়, যেখানে তাঁকে চোঙ তাশ গ্রামে অবস্থিত আতা-বেয়িত কবরস্থানে দাফন কর হয়। দাফনের আগে অসংখ্যবার শেষকৃত্য অনুষ্ঠান হয়। [৮] সেখানে তার বাবাকেও সম্ভবত সমাধিস্থ করা হয়েছে, [৯]

দ্য নিউ ইয়র্ক টাইমস-এ তাঁর মৃত্যুর পর তাকে উল্লেখ করা হয়েছে "একজন কমিউনিস্ট লেখক যাঁর উপন্যাস এবং নাটকগুলি সোভিয়েত ইউনিয়নের পতনের আগে প্রত্যন্ত সোভিয়েত প্রজাতন্ত্রের কিরগিজের জনগণের কাছে একটি কণ্ঠস্বর দিয়েছিল" এবং আরও বলা হয় "তিনি পরবর্তীতে হয়েছিলেন একজন কূটনীতিক এবং ছিলেন সোভিয়েত নেতা মিখাইল গর্বাচেভের বন্ধু এবং উপদেষ্টা।" [১০]

২০০৭ সালে আইৎমাতোভ

চিঙ্গিজ আইৎমাতভ ছিলেন যুদ্ধ-পরবর্তী প্রজন্মের লেখকদের অন্তর্ভুক্ত। জমিলা [১১] প্রকাশের আগে তাঁর তেমন উল্লেখযোগ্য লেখালেখি ছিল না, কয়েকটি ছোট গল্প এবং ফেস টু ফেস নামে একটি ছোট উপন্যাস। কিন্তু জমিলার মাধ্যমেই লেখক তাঁর জাত চিনিয়েছিলেন। একটি কিশোর ছেলের চোখ দিয়ে দেখা ও বলা, জমিলার নামের একটি একটি গ্রামের মেয়ে যুদ্ধে তার সৈনিক স্বামীর থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে যখন তারা সবাই ফসল আনা এবং পরিবহনের কাজ করে তখন সে কীভাবে তাদের গ্রামে থাকা একজন প্রতিবন্ধী সৈনিকের প্রেমে পরে।

আইৎমাতভের সেরা কাজের মধ্যে ছোট উপন্যাস বিদায় গুলসারি!, [১২] সাদা জাহাজ, দ্য ডে লাস্টস মোর দ্যান আ হ্যান্ড্রেড ইয়ারস, [১৩] এবং খুলির স্থান।

আইৎমাতোভকে ১৯৬৩ সালে পাহাড় ও স্তেপের উপাখ্যান (জমিলা, প্রথম শিক্ষক আর বিদায় গুলসারি সহ একটি সংকলন) এর জন্য লেনিন পুরস্কারে এবং পরবর্তীতে বিদায় গুলসারির জন্য রাষ্ট্রীয় পুরস্কারে ভূষিত করা হয়েছিল! আইৎমাতোভের কাজ তাঁর শুভানুধ্যায়ীদের দ্বারা প্রশংসিত হয়েছিল। [১৪] এমনকি আইৎমাতভের সমালোচকরাও তার উপন্যাসের উচ্চমানের কথা উল্লেখ করেছেন।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "Kyrgyz writer, perestroika ally Aitmatov dies," Reuters UK, 10 June 2008
  2. Porter, Robert, সম্পাদক (জুন ১৮, ২০০৮)। "Chingiz Aitmatov: Leading novelist of Central Asia"The Independent। সংগ্রহের তারিখ ফেব্রুয়ারি ২২, ২০২০ 
  3. "AITMATOV, Chingiz (Torekulovich)"The World’s #1 Online Encyclopedia। সংগ্রহের তারিখ ফেব্রুয়ারি ২২, ২০২০ 
  4. "2nd Moscow International Film Festival (1961)"MIFF। ২০১৩-০১-১৬ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০১২-১১-০৪ 
  5. "7th Moscow International Film Festival (1971)"MIFF। ২০১৪-০৪-০৩ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০১২-১২-২২ 
  6. "Berlinale: 1994 Juries"berlinale.de। সংগ্রহের তারিখ ২০১১-০৬-০৯ 
  7. "24th Moscow International Film Festival (2002)"MIFF। ২০১৩-০৩-২৮ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০১৩-০৩-৩০ 
  8. "KYRGYZSTAN: CHINGIZ AITMATOV, A MODERN HERO, DIES"। EurasiaNet। ২০০৮-০৬-১১। ২০১০-০৩-৩১ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০০৯-০৭-২৬ 
  9. "Chingiz Aitmatov's Lifelong Journey Toward Eternity"। Radio Free Europe, Radio Liberty। ২০০৮-১২-১২। সংগ্রহের তারিখ ২০০৯-০৭-২৬ 
  10. Chingiz Aitmatov, Who Wrote of Life in U.S.S.R., Is Dead at 79 by Bruce Weber in The New York Times, 15 June 2008
  11. Chingiz Aitmatov. Jamila. Translated by Fainna Glagoleva. Prepared for the Internet by Iraj Bashiri, 2002.
  12. Chingiz Aitmatov. FAREWELL, GYULSARY! Translation into English by Progress Publishers, 1973 (ইংরেজি ভাষায়)
  13. The Day Lasts More than a Hundred Years by Chingiz Aitmatov ওয়েব্যাক মেশিনে আর্কাইভকৃত ২০০৭-০৮-২১ তারিখে, book preview
  14. Iraj Bashiri. The Art of Chingiz Aitmatov's Stories (ইংরেজি ভাষায়) (discussion of Aitmatov's characters)