ক্লারা ক্যাম্পোয়ামর

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
সরাসরি যাও: পরিভ্রমণ, অনুসন্ধান
মাদ্রিদে ক্লারা ক্যাম্পোয়ামরের প্রতিমূর্তি।

ক্লারা ক্যাম্পোয়ামর (জন্ম: ১২ ফেব্রুয়ারি, ১৮৮৮ - মৃত্যু: ৩০ এপ্রিল, ১৯৭২) মাদ্রিদে জন্মগ্রহণকারী বিশিষ্ট স্পেনীয় প্রমিলা রাজনীতিবিদ ও নারীবাদী ছিলেন। মহিলাদের অধিকার সংরক্ষণে সহায়তাকল্পে ১৯৩১ সালে লিখিত সংবিধানে তিনি তাঁর অসামান্য অবদানের জন্য স্মরণীয় হয়ে আছেন।

কর্মজীবী পরিবারের সন্তান তিনি। ১৩ বছর বয়সে ক্যাম্পোয়ামর সীমস্ট্রেস হিসেবে কাজ করেন। মাদ্রিদ বিশ্ববিদ্যালয়ের অধীনে আইন বিদ্যালয়ে অধ্যয়ন করেন। এরপর বিভিন্ন সময়ে সরকারের বিভিন্ন পদে কাজ করেন তিনি। মহিলাদের বিভিন্ন সংগঠনের সাথেও সক্রিয় ছিলেন তিনি।

কর্মজীবন[সম্পাদনা]

খণ্ডকালীন কাজ করে পড়াশোনার খরচ চালিয়ে যান। পরীক্ষায় অংশ নিয়ে আইন বিদ্যালয়ে ভর্তি হবার নিশ্চয়তা লাভে সক্ষমতা দেখান।[১][২] ১৯০৯ সালে স্যান সেবাস্তিয়ানের ডাকঘরে প্রথম সরকারী চাকুরী লাভ করেন। এরপর ১৯১৪ সালে টাইপিং শিক্ষক হিসেবে মাদ্রিদে চলে যান। এ সময়েই রাজনৈতিক কর্মকাণ্ডের সাথে নিজেকে সম্পৃক্ত করেন ও স্বাধীন সংবাদপত্রে যোগ দেন তিনি।[২]

ডিগ্রী লাভের পাশাপাশি ক্যাম্পোয়ামর শিক্ষকতা, সংবাদপত্রের সচিব ও সরকারের টাইপিস্ট ইত্যাদি বহু কাজের সাথে জড়িয়ে পড়েন। এছাড়াও তিনি রাজনৈতিক ধারাভাষ্য লিখতে শুরু করেন ও মহিলাদের সংগঠনগুলোয় যোগ দেন।[২] ১৯২৪ সালে ৩৬ বছর বয়সে ডিগ্রী লাভ করে আইন পেশায় যোগ দেন তিনি। মাদ্রিদের বিতর্ক সভা ও বুদ্ধিজীবী সমাজেও নিজেকে তুলে ধরেন ক্যাম্পোয়ামর।[১]

নারীবাদে ভূমিকা[সম্পাদনা]

আইন পেশায় মূলতঃ তিনি বৈষম্যের শিকার মহিলা, পিতৃত্বজনিত সমস্যাসহ বৈবাহিক সম্পর্কযুক্ত বিষয়গুলোতে অংশ নিতেন। ঐসকল বিষয়ে তিনি অপ্রতিদ্বন্দ্বী ছিলেন। এরফলে বিভিন্ন পেশাদারী সংগঠন তাঁর দিকে ঝুঁকে পড়ে। ১৯২৮ সালে আন্তর্জাতিক মহিলা আইনজীবী সংগঠন প্রতিষ্ঠায় গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেছিলেন তিনি।

১৯৩১ সালে কনস্টিটিউয়েন্ট আইনসভায় সদস্য হবার জন্যে নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেন। ঐ সময়ে স্পেনীয় মহিলাদের ভোটাধিকারের অধিকার না থাকা স্বত্ত্বেও তিনিসহ আরও দুইজন মহিলা নির্বাচিত হয়েছিলেন।[১] তাঁর প্রচেষ্টার ফলেই ১৯৩১ সালের সংবিধানে পরিবর্তন আনা হয় ও নারী এবং পুরুষের মধ্যে সমতা বিধান নিশ্চিত করা হয়। পরবর্তীকালে অবশ্য তিনি তাঁর সংসদীয় আসনে পরাজিত হয়েছিলেন। এরপর সংক্ষিপ্তকালের জন্যে সরকারের মন্ত্রীপরিষদে ঠাঁই পেয়েছিলেন।

দেহাবসান[সম্পাদনা]

স্পেনীয় গৃহযুদ্ধ চলাকালীন দেশের বাইরে অবস্থান করতে বাধ্য হন। নির্বাসনে থাকাকালে নারীবাদ ও রাজনৈতিক অভিজ্ঞতালব্ধ জ্ঞান লিখতে থাকেন।[২] নির্বাসিত থাকাকালীন সুইজারল্যান্ডের লোজান এলাকায় তাঁর দেহাবসান ঘটে। পরবর্তীতে তাঁর দেহাবশেষ স্যান সেবাস্তিয়ানে সমাহিত করা হয়েছিল।[২]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. Rappaport, Helen (২০০১)। Encyclopedia of Women Social Reformers। ABC-CLIO। পৃ: 129–130। আইএসবিএন 1-57607-101-4 
  2. Perez, Janet and Ihrie, Marie (২০০২)। The Feminist Encyclopedia of Spanish Literature। Greenwood Publishing Group। পৃ: 94–98। আইএসবিএন 0-313-32444-1