কীনু গিল

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
কীনু গিল
ব্যক্তিগত তথ্য
পূর্ণ নামকানদীপ কীনু গিল
জন্ম (1990-07-08) ৮ জুলাই ১৯৯০ (বয়স ৩১)
হংকং
ব্যাটিংয়ের ধরনডান-হাতি
বোলিংয়ের ধরনডান-হাত মিডিয়াম
আন্তর্জাতিক তথ্য
জাতীয় পার্শ্ব
ঘরোয়া দলের তথ্য
বছরদল
??কোউলুন ক্রিকেট ক্লাব
উৎস: Cricinfo, ২২ মার্চ ২০১৬

কানদীপ কীনু গিল (জন্ম 8 জুলাই ১৯৯০) হলেন হংকং এর একজন মহিলা ক্রিকেটার। তিনি একজন অলরাউন্ডার এবং পার্শ্ব অধিনায়ক৷ তিনি কোউলুন ক্রিকেট ক্লাব থেকে একজন মহিলা ক্রিকেটার হিসাবে দেশীয় ক্রিকেট খেলেছেন।

খেলোয়াড়ি জীবন[সম্পাদনা]

গিল হংকংয়ের হয়ে পাকিস্তানের বিপক্ষে প্রথম ম্যাচ খেলেছিল।[১] ২০০৭ সালে মালেশিয়া এশিয়ান ক্রিকেট কাউন্সিলে মালয়েশিয়ায় ৩০-ওভারের টুর্নামেন্ট চলাকালীন নেপালের বিপক্ষে ম্যাচে গিল সর্বোচ্চ ৪১ বলে ১০ রান করেছিলেন,সেই ম্যাচে হংকং কেবল ৩১ রান করেছিল এবং ৭ উইকেটে হারিয়েছিল।[২] ২০০৭ সালের অক্টোবরে গিলকে ১৭ বছর বয়সে হংকং দলের সহ-অধিনায়ক মনোনীত করা হয়।[৩] ২০০৮ সালের এশিয়ান ক্রিকেট কাউন্সিল অনূর্ধ্ব -১৯-এর মহিলা চ্যাম্পিয়নশিপ ম্যাচে গিল সংযুক্ত আরব আমিরাতের বিপক্ষ ম্যাচে ৪.৩ ওভারে ৩ রানে পাঁচ উইকেট নিয়েছিল৷ সংযুক্ত আরব আমিরাত ৬০ রানে আউট হয়ে যায় এবং গিল তারপরে ২২ বলে ২৮ রান করেন।[৪][৫] তিনি হেরে যাওয়া দলে থাকা সত্ত্বেও ২০০৯ সালের পাকিস্তানের বিপক্ষ ম্যাচে তিনি পাকিস্তানকে হারিয়েছিলেন। ম্যাচটিতে গিল ২/১৮ নিয়েছিলেন এবং ৭৫ রান করেছিলেন।[৬] ২০১০/১১ মৌসুমে, একটি ইনিংসে গিল ২০১* রান করেছিলেন৷ ২০১৬ সালের হিসাবে হংকংয়ের ম্যাচগুলিতে মাত্র ৪ জন মহিলা ডাবল সেঞ্চুরি করেছেন।[৭]

২০১২ সালে নতুন যোগ্যতার নিয়মের প্রতিবাদে গিল এবং কনি ওং আর-ইয়ান ২০১২ সালে এশিয়ান ক্রিকেট কাউন্সিল মহিলা টি-টোয়েন্টি এশিয়া কাপের জন্য হংকংয়ের দল থেকে সরে এসেছিলেন৷ তাদের দুইজনকেই পরবর্তীকালে এক বছরের জন্য খেলা নিষিদ্ধ করা হয়।[৮][৯] তার সাসপেনশনের ফলে গিল ২০১৪ এশিয়ান গেমসের বাছাই টুর্নামেন্টটিতে বাদ পরেছিলেন৷[৯] গিলের প্রধান টুর্নামেন্টে হংকংয়ের জন্য গিল খেলেছেন; চীনের বিপক্ষে প্রথম গ্রুপের ম্যাচে তিনি ৪৫* রান করেছেন।এবং দ্বিতীয় গ্রুপের ম্যাচে তিনি শীর্ষে ৩৩ রান করেন।[১০] শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে কোয়ার্টার-ফাইনাল ম্যাচে গিল আবারো ১৬ রানের জুটি গড়েন এবং হংকং করে মাত্র ৬৭ রান করে৷[১১][১২][১৩] ২০১০ সালের ২০১০ এশিয়ান গেমসের পূর্বে তিনি হংকংয়ের জন্য খেলেন।[১৪]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "Hong Kong girls take on Pakistan for a cricket World Cup place"DailyTimes। ১ এপ্রিল ২০১৬ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২২ মার্চ ২০১৬ 
  2. "Nepal beat Hong Kong to enter semi-finals"Cricinfo। সংগ্রহের তারিখ ২২ মার্চ ২০১৬ 
  3. "Keenu Gill named Vice Captain of Hong Kong Women's team"Cricinfo। সংগ্রহের তারিখ ২২ মার্চ ২০১৬ 
  4. "Bhutan find success on debut"Cricinfo। সংগ্রহের তারিখ ২২ মার্চ ২০১৬ 
  5. "Natasha's knock in vain as UAE lose first tie"। ১৩ মে ২০১৬ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২২ মার্চ ২০১৬ 
  6. "Pakistan Times! » Pakistan "A" make clean sweep in women's series vs Hong Kong"। ৪ এপ্রিল ২০১৬ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২২ মার্চ ২০১৬ 
  7. "dlswcc"dlswcc। সংগ্রহের তারিখ ২২ মার্চ ২০১৬ 
  8. "Two Hong Kong women cricketers banned for pulling out of Asia Cup squad"South China Morning Post। সংগ্রহের তারিখ ২২ মার্চ ২০১৬ 
  9. "Hong Kong women's cricket team beats odds to qualify for Asian Games"South China Morning Post। সংগ্রহের তারিখ ২২ মার্চ ২০১৬ 
  10. "Hong Kong women cricketers to face Sri Lanka in quarter-finals"South China Morning Post। ২২ সেপ্টেম্বর ২০১৪। সংগ্রহের তারিখ ২২ মার্চ ২০১৬ 
  11. "Asian Games 2014: Sri Lanka women beat Hong Kong in women's cricket"Cricket Country। সংগ্রহের তারিখ ২২ মার্চ ২০১৬ 
  12. "Batsman"batsman। সংগ্রহের তারিখ ২২ মার্চ ২০১৬ 
  13. "SL women beat Hong Kong in cricket"The Ceylon Independent। ৮ এপ্রিল ২০১৬ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২২ মার্চ ২০১৬ 
  14. "2010 Guangzhou Asian Games"। ৩ এপ্রিল ২০১৬ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২২ মার্চ ২০১৬