কিংগরি (তন্তু বাদ্যযন্ত্র)

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
কিংগরি
তথ্যসমূহ
শ্রেণিবিভাগ
হর্নবোস্টেল-শ্যাস শ্রেণিবিন্যাস
(সম্মিলিত তন্তুস্বরী একটি ধনুক দিয়ে বাজানো হয়)
বিকশিতপ্রাচীন ভারত
সম্পর্কিত যন্ত্র

রাবণহত্ত রবাব

বেহালা

কিংগরি হল একটি তন্তুস্বরী ভারতীয় তন্তু বাদ্যযন্ত্র (তন্তু বেহালা), যেটি রবাব এবং রাবণহত্তের অনুরূপ। এটিতে মাটির একটি অনুরণক বাক্স থাকে, যার মধ্য দিয়ে একটি লাঠি ঢোকানো হয়, যেটি যন্ত্রের গলার কাজ করে। [১]

ইতিহাস[সম্পাদনা]

সংস্কৃত মহাকাব্য মহাভারতে অনেক প্রাচীন ভারতীয় ব্রাহ্মণের গল্পে[২] এবং পাঞ্জাবের লোক সংগীতে কিংগরির উল্লেখ রয়েছে। [৩] অন্ধ্র প্রদেশ এবং মহারাষ্ট্রে চিরাচরিত প্রথায় মৃত্যু অনুষ্ঠান, বিবাহ এবং ধর্মীয় উৎসবগুলিতেও কিংগরি ব্যবহৃত হয়।

গঠনবিন্যাস এবং সুর[সম্পাদনা]

কিংগরি প্রথমে একক তন্তুবাদ্য হিসাবে তৈরি হয়েছিল এবং তারপর থেকে এটি তিন-তন্তু বাদ্য হিসেবে বিকশিত হয়েছে। বাঁশের একটি দীর্ঘ খণ্ড ফিঙ্গারবোর্ডে ঢোকানো হয়, তাতে তিনটি কীলক থাকে। ধনুকের তন্তু তৈরি হয় তিনগাছি ঘোড়ার চুল বা গুঙ্গারু ব্যবহার করে।।[৪] আগে প্রাণীর অন্ত্র ব্যবহার করে তন্তু তৈরি হত, তবে আধুনিক ভারতীয় যাযাবরেরা সাধারণত এর পরিবর্তে নিম্ন মানের স্টিলের তন্তু ব্যবহার করে। এতে এই বাদ্যযন্ত্রে আরও স্বরকম্পন সৃষ্টি হয় এবং যন্ত্রটিতে বেহালার অনুরূপ শব্দ আসে।

আধুনিক ব্যবহার[সম্পাদনা]

শ্রীলঙ্কার সুরকার দীনেশ সুবাসিংহে রাবন নদা অ্যালবামে এবং লোকসঙ্গীত পরিবেশনার জন্য কিংগরি ব্যবহার করেছিলেন।[৫][৬] ২০০৭ সালে, সুবাসিংহে যন্ত্রটিতে কিছু পরিবর্তন করেছিলেন এবং আবিষ্কার করেছিলেন যে, এটি আবেল এবং নিয়েদারহিটম্যানের দ্য বেহালা: ইট'স হিস্ট্রি অ্যান্ড কনস্ট্রাকশন -এ উল্লিখিত রাবণস্ট্রনের আর একটি ঘনিষ্ঠ সংস্করণ।[৭] প্রথমবারের জন্য শ্রীলঙ্কায় সান্দারুওয়ান রনতুঙ্গা একটি চার তন্তুর কিংগরি তৈরি করেছেন এবং এটি বিভিন্ন সংগীত রেকর্ডিংয়ে দীনেশ সুবাসিংহে ব্যবহার করেছিলেন।

আরো দেখুন[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "kingri"। Digitalstamp.suppa.jp। সংগ্রহের তারিখ ২০১৩-১২-০৫ 
  2. "Soul's Journey"। www.santmat-thetruth.de। ২০১৩-১২-১১ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০১৩-১২-০৫ 
  3. "The Fourfold Heritage (Music of Punjab)"। Sikh-heritage.co.uk। সংগ্রহের তারিখ ২০১৩-১২-০৬ 
  4. "Kingri in India"। India9.com। ২০০৫-০৬-০৭। সংগ্রহের তারিখ ২০১৩-১২-০৫ 
  5. ":: Daily Mirror – Opinion ::"। Archives.dailymirror.lk। ২০০৭-১১-২৫। ২০১৩-০৪-০২ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০১৩-১২-০৫ 
  6. "Creative tunes"। Sundaytimes.lk। ২০০৮-০১-১৩। সংগ্রহের তারিখ ২০১৩-১২-০৫ 
  7. This refers to the following book: Abele and Niederheitmann, The Violin: Its History & Construction, Illustrated & described, From Many Sources. London: William Reeves, 1900–1930. Translated by John Broadhouse.