কাহলিল জিবরান

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
খলিল জিবরান
খলিল জিবরান, এপ্রিল ১৯১৩
খলিল জিবরান, এপ্রিল ১৯১৩
জন্ম(১৮৮৩-০১-০৬)৬ জানুয়ারি ১৮৮৩
বাসারি, জাবাল লেবানন মুতাশরিফাত, লেবানন
মৃত্যুএপ্রিল ১০, ১৯৩১(1931-04-10) (বয়স ৪৮)
নিউ ইয়র্ক সিটি, যুক্তরাষ্ট্র
পেশাকবি, চিত্রশিল্পী, লেখক, দার্শনিক
জাতীয়তালেবানিজ
ধরনকাব্য, ছোটগল্প, প্যারাবল
সাহিত্য আন্দোলনমাহজার, নিউ ইয়র্ক পেন লীগ
উল্লেখযোগ্য রচনাবলিদ্য প্রফেট, ব্রোকেন উইংস

খলিল জিবরান (/ɪˈbrɑːn/;[১] পূর্ণ আরবি নাম জিবরান খলিল জিবরান, কাহলিল জিবরান নামে পরিচিত;[ক] আরবি: جبران خليل جبران‎‎ / ALA-LC: জুবরান খলিল জুবরান বা জিবরান খলিল জিবরান) (৬ জানুয়ারি ১৮৮৩-১০ এপ্রিল ১৯৩১) ছিলেন একজন লেবানিজ-আমেরিকান কবি, লেখক শিল্পী। তিনি দার্শনিক হিসেবেও বিবেচিত যদিও তিনি দার্শনিক পরিচয়টি প্রত্যাখ্যান করেছিলেন। তিনি সর্বাধিক পরিচিত তাঁর লেখা 'দ্য প্রফেট' এর জন্য, যেটি ১৯২৩ সালে যুক্তরাষ্ট্র থেকে প্রকাশিত হয় এবং তখন থেকেই বইটি সর্বকালে সর্বাধিক বিক্রি হওয়া বইগুলোর মধ্যে স্থান করে নিয়েছে। বইটি এখন পর্যন্ত ১০০ টিরও বেশি ভাষায় অনূদিত হয়েছে। ১৯৩০ এর দশকে বইটি বেশ জনপ্রিয়তা পায়।সর্বাধিক বিক্রিত বইয়ের লেখকেগণের মধ্যে উইলিয়াম শেক্সপিয়ার ও লাউযির পরই জিবরানের অবস্থান।

জিবরান বর্তমান লেবাননের (তৎকালীন জাবাল লেবানন মুতাশরিফাত, উসমানীয় সাম্রাজ্য) উত্তরে বাশারি শহরে এক মারোনীয় আরব খ্রিষ্টান পরিবারে জন্মগ্রহণ করেন। সৎভাই পিটার ছাড়াও মারিয়ানা এবং সুলতানা নামে জিবরানের দুই ছোট বোন ছিল। শৈশবে জিবরান তাদের সাথে খেলাধুলায় খুব একটা যোগ দিতেন না। কারণ তিনি ভালোবাসতেন চিত্রাঙ্কন। হাতের কাছে কাগজ কলম না পেলে বাড়ির বাইরে গিয়ে মাটিতে কিংবা শীতকালে তুষারের উপরেই ছবি এঁকে যেতেন তিনি। আর তার এই ছবি আঁকাকে সর্বাত্মকভাবে সমর্থন দিতেন তার মা। জিবরানের যখন ৫ বছর, তখন তার সাথে লিওনার্দো দ্য ভিঞ্চির বিখ্যাত কিছু চিত্রকর্মের পরিচয় করিয়ে দেন তার মা। তিনি নতুনভাবে চিত্রকর্মের প্রেমে পড়েন। কিন্তু সেবছরই তার জীবন আকস্মিকভাবে বদলে যায়। তার বাবা কোনো দুর্নীতির দায়ে ধরা পড়েন (যদিও তা ছিল রাজনৈতিক ফাঁদ) এবং যাবজ্জীবন কারাদণ্ডে দণ্ডিত হন। তাদের সকল সম্পত্তি বাজেয়াপ্ত করা হয়। সংসারের খরচ যোগানোর দায়িত্ব বর্তায় কামিলেহর হাতে, অথচ বিশারি গ্রামে নারীদের জন্য বলার মতো কোনো কাজই ছিল না। ফলে বাধ্য হয়ে কামিলেহ তার সন্তানদের নিয়ে যুক্তরাষ্ট্রে পাড়ি জমান। ছোট্ট জিবরান ১৮৯৫ সালে তাঁর মা ও সহোদরদের সাথে যুক্তরাষ্ট্রে অভিবাসিত হন। সেখানে তাঁর মা সেলাইয়ের কাজ করতেন।


এখানে তিনি শিল্ কলা ন য়ে পড়াশোনা করেন ও তাঁর সাহিত্য জীবন শুরু করেন। তিনি ইংরেজি ও আরবি দুই ভাষাতেই লিখতেন। আরব বিশ্বে জিবরানকে সাহিত্য ও রাজনৈতিক বিদ্রোহী হিসেবে দেখা হয়। আধুনিক আরবি সাহিত্যের রেনেসাঁয় তাঁর রোমান্টিক ধারা ধ্রুপদি ধারা থেকে আলাদা ভাবে জায়গা করে নিয়েছে, বিশেষত তার গদ্য কবিতা। লেবাননে তিনি এখনও সাহিত্যের বীর হিসেবে সম্মানিত হন।[৭]

সাহিত্যকর্ম[সম্পাদনা]

  • দ্যা প্রোফেট
  • ম্যাডম্যান
  • স্যান্ড এণ্ড ফোম
  • ব্রোকেন উইংস
  • দ্যা ফোররানারthe prophet
  • গার্ডেন অব প্রফেট
  • দ্যা ওয়াণ্ডারার

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "Gibran". Random House Webster's Unabridged Dictionary.
  2. Gibran 1998: 29
  3. Starkey, Paul (২০০৬)। Modern Arabic Literature। The New Edinburgh Islamic Surveys। Edinburgh: Edinburgh University Press। পৃষ্ঠা 217আইএসবিএন 0-7486-1291-2 
  4. Allen, Roger (২০০০)। An Introduction to Arabic Literature। Cambridge, U.K.: Cambridge University Press। পৃষ্ঠা 255আইএসবিএন 0-521-77230-3 
  5. Badawi, M. M., সম্পাদক (১৯৯২)। Modern Arabic Literature। The Cambridge History of Arabic Literature। Cambridge, U.K.: Cambridge University Press। পৃষ্ঠা 559। আইএসবিএন 978-0-521-33197-5 
  6. Cachia, Pierre (২০০২)। Arabic Literature—An Overview। Culture and Civilization in the Middle East। London: RoutledgeCurzon। পৃষ্ঠা 189আইএসবিএন 0-7007-1725-0 
  7. Kahlil Gibran's The Prophet: Why is it so loved?, BBC News, May 12, 2012, Retrieved May 12, 2012.

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]


উদ্ধৃতি ত্রুটি: "lower-alpha" নামক গ্রুপের জন্য <ref> ট্যাগ রয়েছে, কিন্তু এর জন্য কোন সঙ্গতিপূর্ণ <references group="lower-alpha"/> ট্যাগ পাওয়া যায়নি