এশীয় শিলা কচ্ছপ

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন

এশীয় শিলা কচ্ছপ
Asian forest tortoise
Manouria emys.jpg
Juvenile mountain tortoise, Manouria emys
বৈজ্ঞানিক শ্রেণীবিন্যাস
জগৎ: Animalia
পর্ব: কর্ডাটা
শ্রেণী: Reptilia
বর্গ: Testudines
পরিবার: Testudinidae
গণ: Manouria
প্রজাতি: M. emys
দ্বিপদী নাম
Manouria emys
(Schlegel & Müller, 1844)
প্রতিশব্দ[১]
Manouria emys emys
  • Testudo emys Schlegel & Müller, 1840
  • Testudo emydoides Duméril & Bibron, 1851
  • Manouria fusca Gray, 1854
  • Teleopus luxatus LeConte, 1854
  • Manouria emydoides Strauch, 1862
  • Manouria emys Strauch, 1862
  • Manouria luxata Strauch, 1862
  • Testudo (Scapia) falconeri Gray, 1869
  • Scapia falconeri Gray, 1870
  • Manuria emys Lydekker, 1889
  • Geochelone emys Loveridge & Williams, 1957
  • Manouria emys emys Obst, 1983
  • Geochelone emys emys Gosławski & Hryniewicz, 1993
  • Testudo emys emys Paull, 1999
Manouria emys phayrei
  • Testudo phayrei Blyth, 1853
  • Testudo (Scapia) falconeri Gray, 1869
  • Scapia falconeri Gray, 1870
  • Scapia phayrei Gray, 1871
  • Testudo nutapundi Reimann, 1979
  • Geochelone nutapundi Groombridge, 1982
  • Manouria emys nutapundi Obst, 1983
  • Manouria emys phayrei Bour, 1984
  • Geochelone emys nutapundi Gosławski & Hryniewicz, 1993
  • Manouria nutapundi Obst, 1996
  • Manouria emys phayeri Paull, 1997
  • Manouria emys phayre Das, 2001 (ex errore)
  • Manouria emys phareyi Ferri, 2002 (ex errore)

বড় শিলা কচ্ছপ[২] বা এশীয় শিলা কচ্ছপ (ইংরেজি: Asian forest tortoise বা Asian brown tortoise), (বৈজ্ঞানিক নাম: Manouria emys)হচ্ছে একটি কচ্ছপের প্রজাতি। এটি ভারত, চীন, মায়ানমার, লাওস, থাইল্যান্ড, কম্বোডিয়া, ভিয়েতনাম, মালয়েশিয়া, ইন্দোনেশিয়া এবং বাংলাদেশে পাওয়া যায়।[৩]

বাংলাদেশের ২০১২ সালের বন্যপ্রাণী (সংরক্ষণ ও নিরাপত্তা) আইনের তফসিল-১ অনুযায়ী এ প্রজাতিটি সংরক্ষিত।[২]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. Fritz Uwe; Peter Havaš (২০০৭)। "Checklist of Chelonians of the World"Vertebrate Zoology57 (2): 288। ISSN 18640-5755। ২০১০-১২-১৭ তারিখে মূল (PDF) থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২৯ মে ২০১২ 
  2. বাংলাদেশ গেজেট, অতিরিক্ত, জুলাই ১০, ২০১২, গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার, পৃষ্ঠা-১১৮৪৪০
  3. জিয়া উদ্দিন আহমেদ (সম্পা.), বাংলাদেশ উদ্ভিদ ও প্রাণী জ্ঞানকোষ: উভচর প্রাণী ও সরীসৃপ, খণ্ড: ২৫ (ঢাকা: বাংলাদেশ এশিয়াটিক সোসাইটি, ২০০৯), পৃ. ৫১-৫২।

পাঠ[সম্পাদনা]