এলেনা গুরো

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
এলেনা গুরো
জন্ম (১৮৭৭-০১-১০)জানুয়ারি ১০, ১৮৭৭
সেইন্ট পিটার্সবার্গ
মৃত্যু মে ৬, ১৯১৩(১৯১৩-০৫-০৬) (৩৬ বছর)
Polyany, Leningrad Oblast

এলেনা গুরো (জন্ম: ১০ জানুয়ারি, ১৮৭৭ - মৃত্যু: ৬ মে, ১৯১৩) (রুশ: Еле́на Ге́нриховна Гуро́, আইপিএ: [jɪˈlʲenə ˈɡʲenrʲɪxəvnə ɡʊˈro] ( শুনুন); বিবাহের পরে মাতিউশিন (রুশ: Матю́шина, আইপিএ: [mɐˈtʲuʂɪnə] ( শুনুন);[১]) রুশ ফিউচারিস্ট, চিত্রশিল্পী, কবি, নাট্যকার ও কথাশিল্পী।

প্রাথমিক জীবন[সম্পাদনা]

এলেনা গুরোর জন্ম ১০ জানুয়ারি ১৮৭৭ রাশিয়ার সেন্ট পিটার্সবার্গে। বাবা ফরাসি বংশোদ্ভূত জেনরিখ স্টেপানোভিচ গুরো রাজকীয় রুশ সেনাবাহিনীর কর্মকর্তা, মা আন্না মিখাইলভনা একজন শৌখিন চিত্রশিল্পী। রাশিয়া ও ফিনল্যান্ডে বাবার ভূসম্পত্তি থেকে আয় ও সরকারি পেনশন—সবই তিনি ব্যয় করেছেন শিল্পের জন্য।[২]

পেশা[সম্পাদনা]

গুরো এবং মাতিউশিন

১৩ বছর বয়সে ভর্তি হন সেন্ট পিটার্সবার্গ শিল্পপ্রণোদন সমিতি পরিচালিত স্কুলে। তারপর প্রশিক্ষণ নেন দুজন বিশিষ্ট চিত্রশিল্পীর নিজস্ব স্টুডিওতে। পশ্চিমের আধুনিক শিল্প আন্দোলনের কিছু সমমনা তরুণকে একত্র করে তাঁরা গড়ে তোলেন তরুণ সমিতি। এখানেই সম্পর্কিত হন আধুনিকতার আন্দোলনের অন্যতম সদস্য, চিত্রশিল্পী ও সুরকার মিখাইল মাতিউশিনের সঙ্গে। আর্ট স্কুলে অধ্যয়নের সময় এলেনা তাঁর চেয়ে ১৬ বছরের বড় মাতিউশিনের প্রতি আসক্ত হয়ে পড়েন এবং তাঁর দ্বিতীয় স্ত্রী হিসেবে দাম্পত্যজীবন শুরু করেন।[১] তাঁদের একমাত্র পুত্রসন্তানের মৃত্যুযন্ত্রণা তাঁকে নিরন্তর তাড়িত করেছে। এলেনা ও মাতিউশিন ফিউচারিস্ট আবহের মধ্যে চতুর্থ মাত্রা (প্রচলিত ধারণার সময় সংযোগ নয়) প্রতিষ্ঠার চেষ্টা করেন দৃশ্যমান চিত্র, সংগীত ও কথার মধ্যে সম্পর্ক স্থাপন করে। তাঁর সুহূদদের মধ্যে রয়েছেন ভ্লাদিমির মায়াকোভস্কি, ভিক্টর খ্লেবনিকফ, ভিক্টর কামেনস্কি, ডেভিড বার্লিওক[১]

শিল্পকর্ম[সম্পাদনা]

মাতিউশিনের বাড়ি (প্রফেসর পোপোভা স্ট্রিট, ১০), সেইন্ট পিটার্সবার্গ

১৯০৮-০৯ সালে এলেনা গুরো আঁকলেন ‘লিটল ডিয়ার’—প্রথম দেখাতেই মনে হবে শিশুর আঁকা গতিময় হরিণ। ছবিটি তাঁকে খ্যাতি এনে দেয়। ১৯১০ সালে তিনি আঁকেন তিনটি গুরুত্বপূর্ণ ছবি ‘অ্যা উইমেন ইন অ্যা হেডস্কার্ফ,’ ‘মর্নিং অব দ্য জায়ান্ট’ ও ‘টি ড্রিংকিং। এলেনা গুরো প্রকৃতি ও মানুষের মধ্যে একটি অভঙ্গুর সেতু হিসেবে প্রতিষ্ঠিত হতে চেয়েছেন। সে সময় প্রকৃতির ভাষা বুঝে কবিতা ও চিত্রকল্প পুনঃসৃষ্টি করাতে তাঁর চেয়ে বেশি দক্ষতা কেউ দেখাতে পারেননি।

শেষ জীবন[সম্পাদনা]

এলেনা গুরো ক্যানসারে ভুগছেন। ১৯১৩ সালের ৬ মে তিনি প্রয়াত হলেন ফিনল্যান্ডে, তাঁর গ্রীষ্মকালীন বাড়িতে। মৃত্যুর আগে শেষ করে আনেন তাঁর গ্রন্থ দ্য পুওর নাইট; মরণোত্তর প্রকাশিত হয় দ্য লিটল ক্যামেল ইন দ্য স্কাই।[১][২]

গ্যালারি[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. ১.০ ১.১ ১.২ ১.৩ Dictionary of Women Artists, Volume 1। Fitzroy Dearborn Publishers। 1997। পৃ: 623–624। আইএসবিএন 1-884964-21-4। সংগৃহীত 2012-01-08 
  2. ২.০ ২.১ Dictionary of Russian Women Writers। Greenwood Press। 1994। পৃ: 238–241। আইএসবিএন 0-313-26265-9। সংগৃহীত 2012-01-08 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]