এরিক ডরম্যান-স্মিথ

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এরিক ডরম্যান-স্মিথ (পরে এরিক ডরম্যান ওগোয়ান নামে পরিচিত)
এরিক ডরম্যান-স্মিথ (বামে) জেনারেল অ্যালান ব্রুকের সাথে কথা বলছেন, এল আলামিন, মিশর, আগস্ট ১৯৪২
ডাকনাম"চিঙ্ক"
জন্ম(১৮৯৫-০৭-২৪)২৪ জুলাই ১৮৯৫
কুটেহিল, ক্যাভান কাউন্টি, আয়ারল্যান্ড[১]
মৃত্যু১১ মে ১৯৬৯(1969-05-11) (বয়স ৭৩)
ক্যাভান জেনারেল হাসপাতাল, লিসডার্ন, ক্যাভান কাউন্টি
সমাধি অবস্থিতকিলক্রো, কুটেহিল, ক্যাভান কাউন্টি
সার্ভিস/শাখা ব্রিটিশ সেনাবাহিনী
আইরিশ রিপাবলিকান আর্মি
কার্যকাল১৯১৪−১৯৪৪
পদমর্যাদাব্রিগেডিয়ার[১]
সার্ভিস নম্বর৮৪২৭
ইউনিটনর্দাম্বারল্যান্ড ফুসিলিয়েরস
নেতৃত্বসমূহ১ম ব্যাটেলিয়ন, নর্দাম্বারল্যান্ড ফুসিলিয়েরস
স্টাফ কলেজ, হাইফা
১৬০তম পদাতিক বিগ্রেড
৩য় পদাতিক ব্রিগ্রেড
যুদ্ধ/সংগ্রামপ্রথম বিশ্বযুদ্ধ
আইরিশ স্বাধীনতা যুদ্ধ
দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধ
পুরস্কারমিলিটারি ক্রস[১]
সম্পর্করেজিনাল্ড ডরম্যান-স্মিথ (ভাই)

ব্রিগ্রেডিয়ার এরিক এডওয়ার্ড "চিঙ্ক" ডরম্যান-স্মিথ (ইংরেজি: Eric Edward "Chink" Dorman-Smith; ২৪ জুলাই ১৮৯৫ - ১১ মে ১৯৬৯) (পরে এরিক ডরম্যান ওগোয়ান নামে পরিচিত) ছিলেন একজন আইরিশ কর্মকর্তা। তিনি প্রথম বিশ্বযুদ্ধের শুরুতে ব্রিটিশ সেনাবাহিনীতে যোগদান করেন এবং দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের শেষে অবসরে যান। ১৯৫০-এর দশকে ডরম্যান-স্মিথ আইরিশ রিপাবলিকান আর্মির কর্মকর্তা হন। ১৯২০-এর দশকে আন্তঃযুদ্ধকালীন তিনি জার্মানির হাইনৎস গুডেরিয়ান ও ফ্রান্সের শার্ল দ্য গোলের মত একজন সামরিক ব্যক্তি ছিলেন যিনি যুদ্ধে ব্যবহৃত প্রযুক্তি ও মোটরিকরণের পরিবর্তনের বিষয়টি বুঝতে পারেন। জে. এফ. সি. ফুলার, আর্চিবল্ড ওয়াভেল, বি. এইচ. লিডেল হার্ট ও আরো অনেকের দ্বারা অনুপ্রাণিত ডরম্যান-স্মিথ ব্রিটিশ সেনাবাহিনীর প্রথা পরিবর্তন করতে চেয়েছিলেন এবং ব্রিটিশ সাম্রাজ্যের বিভিন্ন অংশে শিক্ষাদান ও প্রশিক্ষণ প্রদান করেন। দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধে তার কার্যক্রম বিতর্কিত হয় এবং ১৯৪৪ সালের আগস্টে তাকে তার দায়িত্ব থেকে পদচ্যুত করা হয়।

প্রারম্ভিক জীবন[সম্পাদনা]

ডরম্যান-স্মিথ ১৮৯৫ সালে আয়ারল্যান্ডের ক্যাভান কাউন্টির কুটেহিলের বেলামন্ট ফরেস্টে জন্মগ্রহণ করেন। তার মায়ের পীড়াপীড়িতে তাকে ক্যাথলিক ধর্মানুসারে অভিসিঞ্চন করানো হয়। তার ছোট দুই ভাই ভিকটর ও রেজিনাল্ডকে প্রটেস্ট্যান্ট ধর্মানুসারে অভিসিঞ্চন করা হয়, যদিও ১৯০১ সালের আদমশুমারিতে তিন পুত্রকেই ক্যাথলিক ধর্মাবলম্বী হিসেবে তালিকাভুক্ত করা হয়েছিল।[২] কুটেহিলে শৈশবে তার ঘনিষ্ঠ বন্ধু ছিলেন স্থানীয় একজন ডাক্তারের পুত্র জন চার্লস ম্যাকোয়াইড, যিনি পরে ডাবলিনে রোমান ক্যাথলিক আর্চবিশপ হিসেবে নিয়োগপ্রাপ্ত হয়েছিলেন।[৩]

ব্যক্তিগত জীবন ও মৃত্যু[সম্পাদনা]

ডরম্যান-স্মিথ যৌবনে একাধিক প্রেমের সম্পর্কে জড়িত ছিলেন এবং ১৯২৭ সালের ২৯শে ডিসেম্বর এস্টেল, লেডি বার্নিকে বিয়ে করেন। এই দম্পতি নিঃসন্তান ছিলেন।[৪] ১৯৪০ সালে হাইফাতে থাকাকালীন তিনি ইভ নটের সাথে পরিচিত হন এবং প্রেমের সম্পর্কে জড়ান। ১৯৪৯ সালের ১৭ই মে তারা ওয়েস্টমিন্‌স্টার রেজিস্ট্রি অফিসে বিয়ে করেন।[৫] তাদের এক পুত্র ও এক কন্যা ছিল।

ডরম্যান-স্মিথ পাকস্থলী ক্যান্সারে আক্রান্ত হয়ে ১৯৬৯ সালের ১১ই মে ৭৩ বছর বয়সে ক্যাভানের লিসডার্ন হাসপাতালে মৃত্যুবরণ করেন।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "British Army officer histories"। Unit Histories। সংগ্রহের তারিখ ২০১৭-১০-২৫ 
  2. "National Archives: Census of Ireland 1911"সেন্সাস, ন্যাশনাল আর্কাইভ। সংগ্রহের তারিখ ৩১ আগস্ট ২০১৯ 
  3. গ্রেচেন, পৃ. ১০
  4. গ্রেচেন, পৃ. ১০৪
  5. গ্রেচেন, পৃ. ২৯৯

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]