উদাল

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে

উদাল
Sterculia villosa
Sterculia villosa flowers & fruit at Jayanti, Duars, West Bengal W Picture 238.jpg
বৈজ্ঞানিক শ্রেণীবিন্যাস
জগৎ: উদ্ভিদ
(শ্রেণীবিহীন): সপুষ্পক উদ্ভিদ
(শ্রেণীবিহীন): Eudicots
(শ্রেণীবিহীন): Rosids
বর্গ: Malvales
পরিবার: মালভেসি
উপপরিবার: Sterculioideae
গণ: Sterculia
প্রজাতি: S.villosa
দ্বিপদী নাম
Sterculia villosa

উদাল (ইংরেজি: Hairy Sterculia বা Elephant rope tree,), (বৈজ্ঞানিক নাম: Sterculia villosa)[১], (Tamil ஓடல் (ōḍal)) মালভেসি পরিবার, Sterculia গণ[২][৩] দক্ষিণ এশিয়ার একটি উদ্ভিদ প্রজাতি।

বাংলাদেশের ২০১২ সালের বন্যপ্রাণী (সংরক্ষণ ও নিরাপত্তা) আইনের তফসিল-৪ অনুযায়ী এ প্রজাতিটি সংরক্ষিত।[৪]

বর্ণনা[সম্পাদনা]

উদাল ২০ মিটার বা ততোধিক উঁচু পত্রমোচী মাথা ছড়ান গাছ। এদের বাকল সাদাটে রঙের। এদের পাতার বোঁটা লম্বা, ফলক বড় ও পাতা খাঁজকাটা, পাতার প্রশাখার আগায় পাতা ঘনবদ্ধ। এদের নিষ্পত্র শাখার লম্বা, ও ঝুলন্ত ডাঁটায় অনেকগুলি ফুল হয়, ফুল পুংলিঙ্গ ও উভয়লিঙ্গ, ফুল ১.৫ সেমি চওড়া। ফুলগুলি হলুদ রঙের, ফুলের ভেতর বেগুনি। এদের ডাঁটায় একসঙ্গে কয়েকটি রোমশ বিদারী শুষ্ক ফল গুচ্ছবদ্ধ, পাকলে গাঢ় লাল। এই গাছের বড় বড় কয়েকটি বীজ থাকে এবং বীজের রং কালো। বাংলাদেশসহ ক্রান্তীয় এশিয়ার প্রজাতি, বাকল থেকে আঁশ পাওয়া যায়। এদের বীজে চাষ করা হয়।[৫]

ব্যবহার[সম্পাদনা]

উদাল গাছের কাঠ বাদামি রংয়ের হয়ে থাকে । কাঠ সাধারণত নরম ও হালকা হয়। এই গাছের কাঠ দিয়ে চা বাক্স বানানো হয়। এই গাছের বাকল থেকে এক ধরনের আঁশ পাওয়া যায়, সে আঁশ দিয়ে মোটা রশি তৈরি করা হয়।

ঔষধিগুণ[সম্পাদনা]

  • এর বাকলের শরবত খেলে শরীর ঠাণ্ডা রাখে।
  • ফুলের বৃন্ত ছেঁচে জলের সঙ্গে চিনি দিয়ে শরবত করে খেলে প্রস্রাবের সমস্যা ও বাতের ব্যথা দূর হয়।

আরো দেখুন[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. Roxb., 1816 In: [H. Beng. 50 (1814), nom. nud.] ex Smith in Rees, Cyclop. 34: n. 16
  2. Roskov Y., Kunze T., Orrell T., Abucay L., Paglinawan L., Culham A., Bailly N., Kirk P., Bourgoin T., Baillargeon G., Decock W., De Wever A., Didžiulis V. (ed) (২০১৪)। "Species 2000 & ITIS Catalogue of Life: 2014 Annual Checklist."। Species 2000: Reading, UK.। সংগ্রহের তারিখ ২৬ মে ২০১৪ 
  3. World Plants: Synonymic Checklists of the Vascular Plants of the World
  4. বাংলাদেশ গেজেট, অতিরিক্ত, জুলাই ১০, ২০১২, গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার, পৃষ্ঠা-১১৮৫৩৯
  5. দ্বিজেন শর্মা লেখক; বাংলা একাডেমী ; ফুলগুলি যেন কথা; মে, ১৯৮৮; পৃষ্ঠা-১৫, আইএসবিএন ৯৮৪-০৭-৪৪১২-৭

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]