বিষয়বস্তুতে চলুন

ইব্রাহিম রাইসিকে বহনকারী হেলিকপ্টার দুর্ঘটনা

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
২০২৪ এ ভারজাকানে হেলিকপ্টার দুর্ঘটনা
দুর্ঘটনার পূর্বে রাইসিকে বহনকারী হেলিকপ্টারটি পূর্ব আজারবাইজন প্রদেশের খুদাফরিন ত্যাগ করছে
দুর্ঘটনা
তারিখ১৯ মে ২০২৪; ৪৮ দিন আগে (2024-05-19), ≈ ১৩:৩০ আইআরএসটি (ইউটিসি+০৩:৩০)
স্থানভারজাকান, পূর্ব আজারবাইজান প্রদেশ, ইরান
উড়োজাহাজ
বিমানের ধরনবেল ২১২[১]
ফ্লাইট শুরুখুদাফরিন, ইরান
গন্তব্যতাবরিজ, ইরান
যাত্রী৬ জন
কর্মী৩ জন
নিহত৯ জন (ইরানের প্রেসিডেন্ট ইব্রাহিম রাইসি সহ)
উদ্ধার

১৯ মে ২০২৪-এ, খুদাফরিন থেকে তাবরিজ যাওয়ার পথে ইরানের ভারজাকানে একটি বেল ২১২ হেলিকপ্টার বিধ্বস্ত হয়।[২] দুর্ঘটনাকেলে হেলিকপ্টারটি ইরানের প্রেসিডেন্ট ইব্রাহিম রাইসি, পররাষ্ট্রমন্ত্রী হোসেন আমির-আব্দুল্লাহিয়ান, পূর্ব আজারবাইজানের গভর্নর মালেক রহমতি এবং পূর্ব আজারবাইজানের সর্বোচ্চ নেতার প্রতিনিধি  মোহাম্মদ আলী আলে-হাশেমকে বহন করছিল। পরদিন ২০ মে, ৭৩টি উদ্ধারকারী দলের প্রচেষ্টার পর, ইরানের রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটি ঘোষণা করে যে, বিধ্বস্ত হেলিকপ্টারটির সন্ধান পাওয়া গেছে, তবে সেখানে "প্রাণের কোনো অস্তিত্ব মেলেনি"।[৩] পরবর্তীতে, ইরানি রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটির প্রধান পীর হোসেইন কোলিভান্দ দেশটির রাষ্ট্রীয় টেলিভিশন চ্যানেলকে নিশ্চিত করেন যে হেলিকপ্টারে অবস্থানরত ইব্রাহিম রাইসিসহ অন্যান্য সকল যাত্রী ও ক্রুরা মৃত্যুবরণ করেছেন এবং তাদের মৃতদেহ উদ্ধার করা হয়েছে।[৪]

রাইসি আজারবাইজানের সীমান্তঘেঁষা ইরানের পূর্ব আজারবাইজান প্রদেশে অবস্থিত জোলফা শহরের কাছে যাওয়ার সময় দুর্ঘটনাটি ঘটে।[৫] ইরানি টেলিভিশন রিপোর্টে জানানো হয়েছে যে দুর্ঘটনাস্থলে ঘন বনভূমি থাকার কারণে উদ্ধার অভিযান অসুবিধার সম্মুখীন হচ্ছে। এছাড়া প্রতিকূল আবহাওয়া যেমন ভারী বৃষ্টি, কুয়াশা এবং প্রবল বাতাসের কারণে উদ্ধারকাজ ব্যহত হচ্ছে। হেলিকপ্টারটির উদ্ধারকাজে সহায়তা করার জন্য ড্রোন, অনুসন্ধান ও উদ্ধারকারী দল, বিশেষভাবে প্রশিক্ষিত কুকুর এবং কোপার্নিকাস স্যাটেলাইট সিস্টেম অংশ নেয়।[৬][৭]

পটভূমি[সম্পাদনা]

দুর্ঘটনার কয়েক ঘন্টা আগে ইরানের প্রেসিডেন্ট ইব্রাহিম রাইসি এবং আজারবাইজানের প্রেসিডেন্ট ইলহাম আলিয়েভ ইরান-আজারবাইজান সীমান্তে পরস্পর সাক্ষাৎ করছেন

১৯ মে ২০২৪-এ, ইরানের রাষ্ট্রপতি ইব্রাহিম রাইসি আজারবাইজানের রাষ্ট্রপতি ইলহাম আলিয়েভের সাথে খোদা আফারিন জলবিদ্যুৎ প্রকল্প এবং গিজ গালাসি জলবিদ্যুৎ প্রকল্প উদ্বোধন করতে আজারবাইজানে অবস্থান করছিলেন।[৮] প্রকল্পটি আরাস নদীর উপর ইরান এবং আজারবাইজানের মধ্যে তৃতীয় যৌথ প্রকল্প।[৯] [১০] দুর্ঘটনার একদিন আগে, ইরান আবহাওয়া সংস্থা এই অঞ্চলের জন্য কমলা আবহাওয়া সতর্কতা জারি করে।[১১]

দুর্ঘটনাকবলিত হেলিকপ্টার[সম্পাদনা]

দুর্ঘটনাকবলিত হেলিকপ্টারটির মডেল ছিল বেল ২১২ ও সিরিয়াল নম্বর ৩৫০৭১ ছিল। আকাশযানটির নিবন্ধন নম্বর ছিল ৬-৯২২১। এটি বয়স ৪০-৫০ বছর পুরনো একটি হেলিকপ্টার ছিল।[১২] [১৩]ইরান ২০০০ এর দশকের গোড়ার দিকে এই হেলিকপ্টারটি ক্রয় করে। উক্ত মডেলের হেলিকপ্টারটি মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রভিত্তিক প্রতিষ্ঠান টেক্সট্রন ইনকর্পোরেটেড দ্বারা নির্মিত।[১৪] এটি ১৫ জন যাত্রী বহণ করতে সক্ষম। ১৯৮৯ সালের ইসলামি বিপ্লবের পর, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র ইরানকে আকাশযান এবং এর রক্ষণাবেক্ষণের যন্ত্র সরবরাহে নিষেধাজ্ঞা আরোপ করে। এর ফলে দুর্ঘটনাকবলিত হেলিকপ্টারটির মেরামত ও রক্ষণাবেক্ষণ অসম্ভব হয়ে পড়ে এবং বিমানটি যথাযথভাবে কাজ করতে অক্ষম হয়ে পড়ে।[১৫][১৬]

দুর্ঘটনা[সম্পাদনা]

প্রকল্প উদ্বোধনের পর, রাইসি, আমির-আব্দুল্লাহিয়ান, রহমাতি, আলে-হাশেম,[১৭] এবং রাইসির প্রধান নিরাপত্তা ইসলামী বিপ্লবী গার্ড কর্পস (আইআরজিসি) ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মোহাম্মদ মেহেদি মুসাভি,[১৮] হেলিকপ্টারে করে একটি তেল শোধনাগারে একটি প্রকল্প উদ্বোধন করার উদ্দেশ্যে তাবরিজের উদ্দেশ্যে রওনা হন।[১৯] [১৮]

বেল ২১২-এ [১৮] কর্নেল পদমর্যাদার দুইজন ইরানী বিমান বাহিনীর পাইলট এবং মেজর পদে অধিষ্ঠিত একজন বিমান প্রকৌশলী ছিলেন।[২০] প্রায় ১৩:৩০ আইআরএসটি (ইউটিসি+০৩:৩০), হেলিকপ্টারটি ভারজাকানের উজি গ্রামের প্রায় ২ কিলোমিটার (১.২ মা) দক্ষিণ-পশ্চিমে পূর্ব আজারবাইজান প্রদেশের উত্তর ভারজাকান এলাকার কাছে ডিজমার বন অঞ্চলে বিধ্বস্ত হয়।[২১] [২২] [২৩] [১৯] [২৪]

হেলিকপ্টারটির সাথে আরও দুটি হেলিকপ্টার ছিল, যেগুলোতে জ্বালানি মন্ত্রী আলী আকবর মেহরাবিয়ান এবং আবাসন ও পরিবহন মন্ত্রী মেহরদাদ বজরপাশ ভ্রমণ করছিলেন। তাদের হেলিকপ্টারের সাথে রাইসিকে বহনকারী হেলিকপ্টারের যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে যায়। সে দুটি হেলিকপ্টার যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হওয়ার ১৫-২০ মিনিট পর তৃতীয় হেলিকপ্টারটি অনুসন্ধানের ব্যর্থ প্রচেষ্টা চালায়। সে দুটি হেলিকপ্টার পরবর্তীতে নিরাপদে তাবরিজে পৌঁছায়। [২৫] [২৬] শেষ পর্যন্ত জানা যায় যে হেলিকপ্টারটি ৯ জন যাত্রী নিয়ে ভারজাকানের বনভূমিতে বিধ্বস্ত হয়েছে।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "Bell 212: The missing helicopter carrying Iran's president"। ১৯ মে ২০২৪ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১৯ মে ২০২৪ 
  2. Fassihi, Farnaz (২০২৪-০৫-১৯)। "Helicopter Carrying Iran's President Has Crashed, State Media Reports"The New York Times (ইংরেজি ভাষায়)। আইএসএসএন 0362-4331। সংগ্রহের তারিখ ২০২৪-০৫-১৯ 
  3. "Ebrahim Raisi: Hopes fade for Iranian president as helicopter wreckage found"Sky News (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২০২৪-০৫-২০ 
  4. তেহরান, এএফপি। "ইরানের প্রেসিডেন্ট রাইসিসহ সবার মরদেহ উদ্ধার"www.prothomalo.com। সংগ্রহের তারিখ ২০২৪-০৫-২০ 
  5. "Helicopter carrying Iran's president suffers a 'hard landing,' state TV says, and rescue is underway"AP News (ইংরেজি ভাষায়)। ২০২৪-০৫-১৯। সংগ্রহের তারিখ ২০২৪-০৫-১৯ 
  6. Eqbali, Laurence Norman, Benoit Faucon and Aresu। "Iran Says Helicopter Carrying Its President Is Missing After Crash"WSJ (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২০২৪-০৫-১৯ 
  7. "Iran helicopter crash latest: Rescue teams search for Iran's President Ebrahim Raisi"BBC News (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২০২৪-০৫-১৯ 
  8. "Ceremony to commission "Khudafarin" hydroelectric complex and inaugurate "Giz Galasi" hydroelectric complex was held with participation of Azerbaijani and Iranian Presidents"। Azerbaijan State News Agency। ১৯ মে ২০২৪। ১৯ মে ২০২৪ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১৯ মে ২০২৪ 
  9. Gambrell, Jon (১৯ মে ২০২৪)। "Helicopter carrying Iran's president suffers a 'hard landing,' state TV says without further details"AP News। ১৯ মে ২০২৪ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১৯ মে ২০২৪ 
  10. "Qiz-Qalasi Dam symbol of cooperation between Tehran, Baku"। Mehr News Agency। ১৯ মে ২০২৪। 
  11. "روایت خبرنگار تسنیم از منطقه سانحه بالگرد رئیس جمهور + فیلم - تسنیم"Tasnim news। ২০২৪-০৫-১৯। ১৯ মে ২০২৪ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০২৪-০৫-২০ 
  12. "Ebrahim Raisi death: What do we know about the Bell 212 helicopter?"Reuters। সংগ্রহের তারিখ ২০ মে ২০২৪ 
  13. "Accident Bell 212 6-9207"aviation-safety.net। ২০ মে ২০২৪ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০২৪-০৫-২০ 
  14. রয়টার্স ,বিবিসি (২০২৪-০৫-২০)। "ইরানের প্রেসিডেন্টকে নিয়ে বিধ্বস্ত হেলিকপ্টারটি যুক্তরাষ্ট্রের তৈরি"Prothomalo। সংগ্রহের তারিখ ২০২৪-০৫-২১ 
  15. bdnews24.com। "ইরানের প্রেসিডেন্টকে বহনকারী হেলিকপ্টারটি কেমন ছিল"বিডিনিউজ২৪ (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২০২৪-০৫-২১ 
  16. "Ebrahim Raisi death: What do we know about the Bell 212 helicopter?"রয়টার্স। ২০ মে ২০২৪। 
  17. Regencia, Ted (১৯ মে ২০২৪)। "Who was on the missing helicopter?"Al Jazeera। ২০ মে ২০২৪ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১৯ মে ২০২৪ 
  18. "Ebrahim Raisi: What we know about deadly Iran helicopter crash"BBC। ২০ মে ২০২৪। ২০ মে ২০২৪ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০ মে ২০২৪ 
  19. Fassihi, Farnaz (১৯ মে ২০২৪)। "Helicopter Carrying Iran's President Has Crashed, State Media Reports"The New York Times। ১৯ মে ২০২৪ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১৯ মে ২০২৪ 
  20. "Who died alongside Iran's President Raisi in the helicopter crash?"Al Jazeera। ২০ মে ২০২৪। ১৯ মে ২০২৪ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০ মে ২০২৪ 
  21. "EU activates mapping service to aid search effort"BBC News। ১৯ মে ২০২৪। ১৯ মে ২০২৪ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১৯ মে ২০২৪ 
  22. Gambrell, Jon (১৯ মে ২০২৪)। "Helicopter carrying Iran's president suffers a 'hard landing,' state TV says without further details"AP News। ১৯ মে ২০২৪ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১৯ মে ২০২৪ 
  23. "اخبار حادثه سقوط بالگرد/ شهادت رئیس جمهور، وزیر خارجه و همراهان" (ফার্সি ভাষায়)। ২০ মে ২০২৪। ২০ মে ২০২৪ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০ মে ২০২৪ 
  24. "President Raisi's helicopter crashes in Iran: What we know so far"Al Jazeera। ২০ মে ২০২৪। ১৯ মে ২০২৪ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০ মে ২০২৪ 
  25. Motamedi, Maziar (১৯ মে ২০২৪)। "Search under way after helicopter carrying Iran's president Raisi crashes"Al Jazeera। ১৯ মে ২০২৪ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১৯ মে ২০২৪ 
  26. "What do we know so far about Iranian president's helicopter 'accident'"France 24। ২০ মে ২০২৪। সংগ্রহের তারিখ ২০ মে ২০২৪