ইকারোস

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
Gowy-icaro-prado.jpg

গ্রিক পুরাণে, ইকারোস (প্রাচীন গ্রিক ভাষায়: Ἴκαρος ইকারোস্‌) ছিল দাইদালোসের পুত্র এবং ইয়াপুক্সের ভাই। সে ও তার পিতা দাইদালোস যখন পিঠে মোম দিয়ে পাখা লাগিয়ে উড়ে পালিয়ে যাচ্ছিল তখন সে দাইদালোসের নির্দেশ না মেনে আকাশের খুব উচুঁ দিয়ে উড়ছিল। ফলে সূর্যের তাপে মোম গলে ইকারোসের পাখাজোড়া খসে গেল এবং সাগরে পড়ে সে ডুবে মারা গেল। দাইদালোস যখন দেখলো ইকারোস তার পেছনে নেই তখন সে বুঝল যে ইকারোস তার নির্দেশ অমান্য করেছে এবং সাগরে ডুবে মারা গেছে। পরে দাইদালোস তার পুত্রের লাশ সমাহিত করে। যে সাগরে পড়ে ইকারোসের মৃত্যু হয় সেই সাগরটি ইকারিয়ান সী নামে পরিচিত।


গ্রীকপুরাণ মতে ডিডেলাস ছিলেন একজন বিখ্যাত ভাস্কর । কথিত আছে তার নির্মিত ভাস্কর্যগুলো বা মূর্তিগুলো জীবিত মানুষের মত নড়তে পারতো ।

ডিডেলাসের এক বোনের ছেলে নাম টালুস সেও ডিডেলাসের কাছে কাজ শিখতো , এবং কিছুদিনের মধ্যে টালুসের সুনামও চারিদিকে ছড়িয়ে পরে। ডিডেলাস এতে খুব ঈর্ষান্বিত হয় , একদিন সে কৌশলে টালুসকে ছাদ থেকে ফেলে দেয় , টালুস মারা যায় । দেবী এ্যাথিনি টালুসের দেহকে একটি পাখিতে পরিনত করেন। টালুসকে হত্যার জন্য ডিডেলাস, এথেন্সের রাজা অ্যারিওপেগাস কর্তৃক দোষী বিবেচিত হন। এ সময় জীবন বাঁচাতে ডিডেলাস ক্রিটে পালিয়ে যান।

ক্রিটে থাকার সময় ক্রিটের রাজা এক দাসীর সাথে ডিডেলাসের বিয়ে দেন । বিয়ের পর ডিডেলাসের দুই সন্তান হয় একজনের নাম ইকারুস এবং অপরজনের নাম ল্যাপিক্স । এই ইকারুস, ডিডেলাসের মত স্থাপত্য বিদ্যায় দক্ষ হয়ে ওঠে । ডিডেলাস এবং ইকারুসের সুনাম সারা ক্রিট জুড়ে ছড়িয়ে পরে।

ডিডেলাস ক্রিটের রাজা মাইনসের জন্য একটি গোলক ধাঁধা তৈরী করে দেন , যার উদ্দেশ্য ছিলো মিনেটোর

(অর্ধেক মানব অর্ধেক ষাঁড়) কে বন্দী রাখা। কিন্তু ডিডেলাস মাইনসের শত্রু থেসাসকে সাহায্য করার জন্য অ্যারিয়াডনি(মাইনসের কন্যা) কিছু সূত্র (গোলক ধাঁধায় টিকে থাকার জন্য) প্রদান করে । এতে রাজা মাইনস ক্ষিপ্ত হয়ে ডিডেলাস ও তার পুর ইকারুসকে কারাগারে নিক্ষেপ করে ।

জেল থেকে পালানোর জন্য ডিডেলাস মোম এবং পাখির পালকের সাহায্যে দুই জোড়া পাখা নির্মান করে ।

একজোড়া ইকারুসের জন্য এবং আরেক জোড়া তার নিজের জন্য । ডিডেলাস ইকারুসকে বার বার সতর্ক করে দেয় যে , সে যেন কখনোই বেশী উপরে না ওঠে ,কারন এতে সূর্যের তাপে মোম গলে যেতে পারে ।

কিন্তু ইকারুস তার পিতার কথায় কান দেয় না , আকাশে ওড়ার আনন্দে সে সব ভুলে যায়। একসময় উড়তে উড়তে অনেক উপরে উঠে যায় , তখন সূর্যের তাপে মোম গলে গিয়ে তার পাখা ভেঙ্গে যায় আর ইকারুস সমুদ্রে পতিত হয়ে মারা যায়।