আলেয়া

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে

আলেয়া এক ধরনের বায়ুমণ্ডলীয় ভৌতিক আলো যা রাতের অন্ধকারে জলাভূমিতে বা খোলা প্রান্তরে দেখা যায়।[১][২][৩] মাটি হতে একটু উঁচুতে আগুনের শিখা জ্বলতে থাকে। ইংরেজি ভাষায় একে will-o'-the-wisp (/ˌwɪl ə ðə ˈwɪsp/) বলে।

আলেয়া সৃষ্টি নিয়ে নানা মত রয়েছে। লোককথায় একে ভৌতিক আখ্যা দেওয়া হলেও বিজ্ঞানীরা মনে করে গাছপালা পচনের ফলে যে মার্শ গ্যাসের সৃষ্টি হয় তা থেকে আলেয়া এর উৎপত্তি। যেহেতু মিথেন গ্যাসের আপনি জ্বলার ক্ষমতা নেই তাই আগুন শুরুর কারণ হিসেবে তারা দাহ্য ফসফিন (PH3) ও ফসফরাস ডাইহাইড্রাইট(P2H4) গ্যাসকে চিহ্নিত করেছে।[৪] কেউ মনে করেন বাঁশ বা শুকনো কাঠের ঠোক্করে যে স্ফুলিঙ্গ তৈরি হয় তা থেকেই এই মার্শ গ্যাসে আগুন লাগায়।

জীবনানন্দ দাশ তার প্রথম কাব্য সংকলন ঝরা পালকে 'আলেয়া' নামক একটি কবিতা লেখেনঃ[৫]

"প্রান্তরের পারে তব তিমিরের খেয়া
নীরবে যেতেছে দুলে নিদালি আলেয়া!"

আলেয়াতে থাকা ফসফরাস ডাইহাইড্রাইট (P2H4) গ্যাসটি বায়ুর সংস্পর্শে এলে জ্বলে ওঠে। ফলে অন্যান্য গ্যাস গুলি (অর্থাৎ মিথেন এবং ফসফিন) একই সাথে নীল শিখা সহ জ্বলতে থাকে। বায়ুপ্রবাহের ফলে জ্বলন্ত গ্যাসটি গতিশীল হয়। এটি হলো আলেয়া।

আলেয়া কোনো ভৌতিক ব্যাপার নয়।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "Banglar Bhoot: Creatures of the beyond"The Daily Star (ইংরেজি ভাষায়)। ২০১৭-১০-৩১। সংগ্রহের তারিখ ২০১৮-০১-২০ 
  2. "Paranormal activity: 10 Indian haunted locations that'll chill your bones"http://www.hindustantimes.com/ (ইংরেজি ভাষায়)। ২০১৬-০৭-১২। সংগ্রহের তারিখ ২০১৮-০১-২০  |সংবাদপত্র= এ বহিঃসংযোগ দেয়া (সাহায্য)
  3. Schmidt, Ron। "Aleya Ghost Lights in the marshes of West Bengal, India"। সংগ্রহের তারিখ ২০১৮-০১-২০ 
  4. Joris Roels & Willy Verstrae (২০০১)। "Biological formation of volatile phosphorus compounds" (PDF)Bioresource Technology। Elsevier। 79: 243–250। ডিওআই:10.1016/S0960-8524(01)00032-3পিএমআইডি 11499578। ১৯ সেপ্টেম্বর ২০০৬ তারিখে মূল (PDF) থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০ জানুয়ারি ২০১৮ 
  5. "আলেয়া - উইকিসংকলন একটি মুক্ত পাঠাগার"। সংগ্রহের তারিখ ২০১৮-০১-২০