বিষয়বস্তুতে চলুন

আলেপ্পির ছোট এলাচ

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে

আলেপ্পির ছোট এলাচ হল কেরলের ইদুক্কি জেলার এলাচ পাহাড়ে জন্মানো ও ভাঁটিতে শুকানো সবুজ রঙের একপ্রকার এলাচ বীজকোষ। এটি আলেপ্পির সবুজ এলাচ বা আলেপ্পি গ্রিন এলাচ নামেও পরিচিত।

ইতিহাস[সম্পাদনা]

এটি কেরলের আলেপ্পিতে জন্মায় বলেই এই এলাচের জাতটিকে আলেপ্পি এলাচ বলা হয় এমন নয়, বরং এই কারণে বলা হয় যে পূর্ববর্তী ত্রিবাঙ্কুরে এই এলাচ প্রক্রিয়াজাত করা হয়েছিল এবং আলেপ্পি ছিল তার প্রধান ভাণ্ডার।[১] [১] ব্রিটিশ ভারতের রাজাদের মধ্যে সমঝোতা, ত্রিবাঙ্কুর-ডাচ যুদ্ধ, ব্রিটিশ সহায়তায় মার্থান্দা বর্মার অধীনে ক্ষমতা একীভূতকরণ ইত্যাদি কারণেই এ জাতীয় একচেটিয়া আধিপত্য এসেছিল। যেকারণে ত্রিবাঙ্কুর রাজ্য এলাচির সমস্ত পণ্য আলেপ্পির রাজ্য ভাণ্ডারে বিক্রি করতে পেরেছিলেন। ততদিনে আলাপ্পুঝ হয়ে উঠেছিল ত্রিবাঙ্কুরের প্রধান বন্দর। এর ফলে আলেপ্পিতে এলাচি বাছাই এবং প্রক্রিয়াকরণের বিকাশ ঘটে। এই কারণেই এই অঞ্চল থেকে উৎপাদিত সর্বাধিক উচ্চমানের এলাচের নাম রাখা হয়েছিল আলেপ্পি গ্রিন এলাচ বাআলেপ্পি সবুজ এলাচ। যার অন্য নাম আলেপ্পির ছোট এলাচ। কোচির বাজার ও বন্দরের নির্মান, ভারতের স্বাধীনতা, ত্রিবাঙ্কুর-কোচিন একীভূত হওয়া ইত্যাদির পরে আলেপ্পিতে একটি বন্দরের প্রাসঙ্গিকতা আর ছিলনা এবং তাই এর অস্তিত্ব অতীতের বিষয় হয়ে দাঁড়িয়েছিল। বর্তমানে ইদুক্কিতে উন্নততর প্রক্রিয়াজাতকরণ সুবিধা, কাঁচামালের প্রাচুর্য, দক্ষ সস্তা শ্রম ও জড়িত অবকাঠামো ইত্যাদির বিকাশের ফলে প্রক্রিয়াকরণ শিল্পটিকে পুরোপুরি আলাপ্পুঝের বাইরে স্থানান্তরিত করা হয়েছে।

অবয়ব[সম্পাদনা]

আলেপ্পির ছোট এলাচের একটি স্বতন্ত্র গুণ রয়েছে। এটি ভাঁটিতে শুকানো হয় এবং এর উচ্চতর সংবেদক মান রয়েছে। এতে একইরকম সবুজ রঙের মাত্রা ও তিনটি কোণাযুক্ত শিরার উপস্থিতি রয়েছে।

ভৌগোলিক নির্দেশক (জিআই) অধিকার[সম্পাদনা]

আলেপ্পির ছোট এলাচ ২০০৫ সালে বৌদ্ধিক সম্পত্তি অধিকার সুরক্ষা (ইন্টেলেকচুয়াল প্রোপার্টি রাইট্স প্রোটেকশন) বা ভৌগোলিক নির্দেশকের (জিআই) মর্যাদা পেয়েছে।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "Archived copy"। ২০১৬-০৩-০৫ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০১৩-০১-২১