আরিয়ান সিগদেল

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
আর্য়ন সিগ্দেল
Aaryan Sigdel.JPG
জন্ম
হরিশ সিগডেল

(1981-08-04) আগস্ট ৪, ১৯৮১ (বয়স ৪০)
জাতীয়তানেপালি
অন্যান্য নামআরিয়ান, হরিশ
শিক্ষাবীরেন্দ্র সৈনিক মহাবিদ্যালয়
মাঙ্গোদয়া উচ্চ বিদ্যালয়
পিপলস কলেজ
পেশাঅভিনেতা
কর্মজীবন২০০৭–বর্তমান
সন্তানসপনা ভাণ্ডারী

আর্য়ন সিগ্দেল (জন্ম ৪ আগস্ট ১৯৮১), (নেপালি: आर्यन सिग्देल, এই শব্দ সম্পর্কেListen ) একজন নেপালি অভিনেতা যিনি নেপালি ভাষার চলচ্চিত্রগুলিতে অভিনয় করেন। তিনি নেপালি চলচ্চিত্রগুলিতে তাঁর বিস্তৃত ভূমিকার জন্য পরিচিত।

আর্য়ন সিগ্দেল কিসমত চলচ্চিত্রে অভিনয় করে অভিনয় জীবনে আত্মপ্রকাশ করেন এবং তারপর মেরো ইউতা সাথী চা নামে একটি রোমান্টিক প্রেম কাহিনী চলচ্চিত্রে প্রধান চরিত্রে অভিনয় করেন, যেখানে তাঁর একজন তরুণ বখে যাওয়া রাজকীয় সদস্যের ভূমিকা ছিল। এটি কোরিয়ান হিট চলচ্চিত্র আ মিলিয়নেয়ার ফার্স্ট লাভ দ্বারা অনুপ্রাণিত হয়ে নির্মাণ করা হয়েছিল। জয় শমশের জাঙ্গা বাহাদুর রানা তার চরিত্রে অভিনয়ের অত্যন্ত প্রশংশা করেছেন এবং এর জন্য একটি সমর্থক-গোষ্ঠী তৈরি হয়েছিল। তিনি তার ১৪ বছরের কর্মজীবনে আপ এবং পতন দেখেছেন।

জীবনের প্রথমার্ধ[সম্পাদনা]

আর্য়ন সিগ্দেলের জন্ম সুরক্ষেত জেলার গোথিকদায়। তার পরিবার পরে কাঠমান্ডুর থানকোটে চলে আসে। তিনি দীপেন্দ্র পুলিশ স্কুলে পড়াশোনা করেন এবং পরে মঙ্গলোদয়ে হাই স্কুল থানকোট থেকে তাঁর স্কুল শেষ করেন। তিনি স্কুলে খুব ভাল ছাত্র হিসেবে পরিচিত ছিলেন। আরিয়ান বীরেন্দ্র সৈনিক আওসিয়া মহাবিদ্যালয়, সল্লাঘড়ি, ভক্তপুরে পড়াশোনা করেন এবং পরবর্তীতে কাঠমান্ডুর রত্ন রাজ্য লক্ষ্মী ক্যাম্পাসে চলে আসেন। অভিনেতা হওয়ার আকাঙ্ক্ষায় তিনি অভিনয়ের পাঠ্য গ্রহণ শুরু করেন যার কারণে কলেজের পড়াশোনা শেষ করতে পারেননি। তিনি নেপালের পারিওয়াতান থেকে অভিনয়ের পাঠ গ্রহণ করেছিলেন এবং একটি থিয়েটারের দলের সাথে আরিয়ান বেশ কয়েকটি রাস্তার নাটকেও অংশ নিয়েছিলেন।

কর্মজীবন[সম্পাদনা]

আরিয়ান প্রথম মুখ্য ভূমিকায় অভিনয় করেন কিসমত চলচ্চিত্রে, বিরাজ ভট্ট রেখা থাপার বিপরীতে। কিসমত ছিল ওই বছরের সর্বোচ্চ উপার্জনকারী চলচ্চিত্র এবং এর জন্য পরিচালক উজওয়াল ঝিমিরে জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার পান। তাঁর দ্বিতীয় ভূমিকা ছিল মৌসামে, যা বক্স অফিসে গড় সাফল্য পায়। ২০০৯ সালে, তার তৃতীয় চলচ্চিত্র মেরো ইউটা সাথী চা মুক্তি পায় এবং এটি সমালোচক ও দর্শকদের কাছ থেকে ইতিবাচক সাড়া পেয়েছিলেন। এই চলচ্চিত্রটি আর্য়ন সিগ্দেলকে নেপালের একজন উল্লেখযোগ্য অভিনেতা করে তুলেছিল। ২০১০ সালের পরে তিনি রেখা থাপার বিপরীতে হিফাজত হিট-ট্রিক-এ অভিনয় করেছিলেন, মাল্টিস্টারার ফার্স্ট লাভ, দ্য ফ্ল্যাশ ব্যাক: ফারাকেরা হারদা চলচ্চিত্রে সুপারস্টার নিখিল উপ্রেতি এবং ইউনা আপ্রেটির বিপরীতে অভিনয় করেন।

ধুয়ার শুটিংয়ে আর্য়ন সিগ্দেল

২০১০ সালে তাঁর ছয়টি চলচ্চিত্র মুক্তি পেয়েছিল। তাঁর দুটি ছবি কোহি মেরো এবং বাঁধনি খুব একটা ভাল করতে পারেনি, যেখানে ষষ্ঠ মুক্তি পাওয়া চলচ্চিত্র রেখা থাপার বিপরীতে কাসলে চোরিও মিরো ম্যান বক্স অফিসে সমস্ত রেকর্ড ভেঙে নেপালি সিনেমার অন্যতম দুর্দান্ত হিট হয়ে ওঠে। যদিও এই জুটির মধ্যে পতনের গুজব বেশিরভাগ ক্ষেত্রে শোনা যায় তবে রাজেশ হামাল, কারিশমা মানন্দর এবং নিখিল উপ্রেটি, অরুনিমা লামসালের তুলনায় তাদের জুটি নেপালি ছবিতে সেরা অনস্ক্রিন জুটি বলে মনে করা হয়।

তাঁর বেশিরভাগ চলচ্চিত্রের ইংরেজি শিরোনাম রয়েছে। নেপালের মতো একটি ছোট শিল্পের স্ক্রিপ্টগুলি সম্পর্কে বেশি বাছাই করার জন্য তিনি বহুবার সমালোচিত হয়েছিলেন।

আরিয়ান নেপালি ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রিতে সর্বাধিক বেতনের অভিনেতা হিসাবে পরিচিত। তাঁর ছবি কে ই মায়া হো সফলভাবে বক্স অফিসে দুর্দান্ত একটি উদ্বোধন করেছে। কে ইয়ো মায়া হো পরিচালনা করেছেন সুদর্শন থাপা, তিনি মরো ইউটা সাথী চ ও পরিচালনা করেছিলেন।

আরিয়ান আবারও লোফার চলচ্চিত্রে তার প্রথম প্রযোজক ছাবি রাজ ওঝার সাথে যোগ দেন, যা একটি ব্যর্থ চলচ্চিত্র ছিল। তার চলচ্চিত্র দাবাব ২০১৩ সালে হিট হয়েছিল। আরিয়ানের পরবর্তী চলচ্চিত্র ছিল রোমান্টিক নাটক, নভেম্বর রেইন, যা তার আই অ্যাম সরি -এর পরিচালক দীনেশ রাউত দ্বারা পরিচালিত হয়, এটি ধারাবাহিকভাবে ব্যর্থ হওয়ায় পর তার কর্মজীবন সমালোচনামূলক হয়ে উঠে যা তাকে পুনরুজ্জীবিত করে তুলে।

চলচ্চিত্রের তালিকা[সম্পাদনা]

বছর চলচ্চিত্র ভূমিকা বক্স অফিস
২০০৭ কিসমত রাম সুপারহিট
২০০৭ সিন্দুর টেলি ফিল্ম
২০০৮ মৌসাম মানব গড়
২০০৮ জিন্দেগী : অলওয়়েজ কম্প্রোমাইজ (চিত্র চ্যানেল টেলিভিশন ধারাবাহিক) ইশান টেলি ফিল্ম
২০০৯ মেরো ইউটা সাথী চা জয় ব্লকবাস্টার
২০১০ হেফাজত রকি সুপারহিট
২০১০ ফাস্ট লাভ আয়ুষ সুপারহিট
২০১০ দ্য ফ্ল্যাশ ব্যাক: ফার্কেরা হারদা সিরিশ সুপারহিট
২০১০ কোহি মেরো অভি হিট
২০১০ বান্ধি হরিশ ব্যর্থ
২০১০ কাসলে চোরিও মেরো ম্যান আদি ব্লকবাস্টার
২০১১ কে যো মায়া হো রাম

হিট
২০১১ মেরো লাভ স্টোরি আভাশ গড়
২০১২ আই এম সরি গৌরব / যুবরাজ গড়
২০১২ কে মা টিমরো সাথী বান্না সচ্চু অঙ্কিত হিট
২০১২ ধুয়া যো নাশা আভি ব্যর্থ
২০১৩ কলিউড সাফল ব্যর্থ
২০১৩ মহাশুশ প্রেম গড়
২০১৩ ডাবব বিশাল ব্যর্থ
২০১৩ লোফার (২০১৩-এর চলচ্চিত্র) ইন্সপেক্টর সিগডেল ব্যর্থ
২০১৩ মধুমাস প্রেম গড়
২০১৪ নভেম্বর রেইন আয়ুষ সুপারহিট
২০১৪ সাপনা রাজ গড়
২০১৪ লজ্জা দায়া সুপারহিট
২০১৪ নাইকে গড়
২০১৪ মালা ব্যর্থ
২০১৪ আলভিদা ফারহান খান ব্যর্থ
২০১৪ পুনর্জনমা ব্যর্থ
২০১৪ আবেগ ব্যর্থ
২০১৪ সাথী আর্য ব্যর্থ
২০১৫ নাই নবভন্নু লা ৩ সুপারহিট
২০১৫ সুশ্রী ব্যর্থ
২০১৬ ক্লাসিক (২০১৬-এর চলচ্চিত্র) হিট
২০১৬ হোম ওয়ার্ক হিট
২০১৭ রুদ্রপ্রিয়া গড়
২০১৮ কইরা গড়
২০১৯ হাজার জুনি সামমা গড়
২০১৯ চা চা হুই ব্যর্থ

পুরস্কার[সম্পাদনা]

  1. সেরা অভিনেতার জন্য জাতীয় পুরস্কার (মৌসুম)
  2. সেরা অভিনেতার জন্য জাতীয় পুরস্কার (মেরো ইউটা সাথী ছা)
  3. সেরা অভিনেতা পুরস্কার, ডি সিনেমা পুরস্কার (কোহি মেরো)
  4. সেরা অভিনেতার পুরস্কার, নেফটা পুরস্কার (কাসলে চোরিও মরো ম্যান)আর্য়ন সিগ্দেল
বছর পুরস্কার বিভাগ চলচ্চিত্র ফলাফল
২০১৪ আইএনএফএ পুরস্কার (হংকং) সেরা অভিনেতা (পুরুষ) ২০১৪ মহাশুশ বিজয়ী[১][২]
২০১৫ নেফটা পুরস্কার ২০১৫ সেরা অভিনেতা নভেম্বর রেইন (২০১৪-এর চলচ্চিত্র) মনোনীত[৩]
২০১৫ নেফটা পুরস্কার বছরের জনপ্রিয় অভিনেতা (পুরুষ) নভেম্বর রেইন (২০১৪-এর চলচ্চিত্র) মনোনীত
২০১৬ ফান পুরস্কার সেরা অভিনেতা ক্লাসিক বিজয়ী[৪]
২০১৬ ডিসনি পুরস্কার সেরা অভিনেতা ক্লাসিক বিজয়ী[৫][৬]
২০১৬ এনএফডিসি পুরস্কার ২০১৬ সেরা অভিনেতা ক্লাসিক বিজয়ী[৭][৮]
২০১৬ কামনা চলচ্চিত্র পুরস্কার সেরা অভিনেতা ক্লাসিক প্রক্রিয়াধীন[৯]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "INFA award nomination full list"। Xnepali.net। 
  2. "Aaryan namrata win top infa film award"। khabarsite.net। ৪ মার্চ ২০১৬ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২৩ মার্চ ২০২১ 
  3. "Top 5 nomination nefta award 2015 full list"। xnepali.net। 
  4. "PASHUPATI PRASAD Wins 4 FAAN Awards, The Complete Winners List"। moviemandu.com। ২০১৬-০৭-০৬ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০১৬-০৭-০৭ 
  5. "'डी सिने अवार्ड'मा 'क्लासिक, प्रेमगीत र वडा नम्बर ६'को बर्चस्व(पूर्ण सूचीसहित)"। onlinekhabar.com। 
  6. "आर्यन र नम्रता फेरि उत्कृष्ट, 'क्लासिक' बर्षकै उत्कृष्ट चलचित्र(फोटाे फिचरसहित)"। onlinekhabar.com। 
  7. "क्लासिक र प्रेमगीतको चर्को भिडन्त, 'पशुपति प्रसाद र कबड्डी कबड्डी' पनि कम छैनन्"। onlinekhabar.com। 
  8. "एनएफडिसी अवार्डमा 'क्लासिक'को दबदबा,अवार्ड थापेपछी के भने त विजेताहरुले ? (भिडियो)"। rangakhabar.com। 
  9. "कामना अवार्डमा दयाहाङ, अनमोल, सौगात, खगेन्द्र र आर्यनविच उत्कृष्ट नायकको प्रतिस्पर्धा"। onlinekhabar.com। 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]