আবুবকর তামবাদউ

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
আবুবকর তামবাদউ
Abubacarr Tambadou speaks at the International Court of Justice (cropped).jpg
গাম্বিয়র বিচারমন্ত্রী ও অ্যাটর্নি জেনারেল
দায়িত্বাধীন
অধিকৃত কার্যালয়
৭ ফেব্রুয়ারি ২০১৭
রাষ্ট্রপতিআদামা ব্যারো
পূর্বসূরীমামা ফাতিমা সিংহাতেহ
ব্যক্তিগত বিবরণ
জন্মআবুবকর ম্যারি তামবাদউ
(1972-12-12) ১২ ডিসেম্বর ১৯৭২ (বয়স ৪৭)
নাগরিকত্বগাম্বিয়া
প্রাক্তন শিক্ষার্থীওয়ারউইক বিশ্ববিদ্যালয়
এসওএএস, লন্ডন বিশ্ববিদ্যালয়

আবুবকর ম্যারি তামবাদউ বা আবুবকর তামবাদু বা আবুবাকার তাম্বাদু (জন্ম ১২ ডিসেম্বর ১৯৭২), স্থানীয়ভাবে বা তামবাদউ নামে পরিচিত, হলেন একজন গাম্বিয়ান রাজনীতিবিদ, আইনজীবী যিনি ২০১৭ সালের ৭ ফেব্রুয়ারি থেকে গাম্বিয়র বিচারমন্ত্রী ও অ্যাটর্নি জেনারেল হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন। তিনি ২০১২ থেকে ২০১৬ সাল পর্যন্ত রুয়ান্ডা গণহত্যায় গঠিত আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনালে একজন কৌঁসুলি ছিলেন। এ ট্রাইব্যুনালে তিনি প্রসিকিউটরের বিশেষ সহাকারী হিসেবে কাজ করেন। ২০১৯ সালের ১১ নভেম্বর গাম্বিয়া তার নেতৃত্বে রোহিঙ্গা জনগোষ্ঠীকে নির্যাতন ও গণহত্যার অভিযোগে মায়ানমারের বিরুদ্ধে আন্তর্জাতিক ন্যায়বিচার আদালতে মামলা করে।[১][২]

প্রারম্ভিক জীবন[সম্পাদনা]

আবুবকর ১৯৭২ সালের ১২ ডিসেম্বর জন্মগ্রহণ করেন। তার পিতার নাম আলহাজি ম্যারি তামবাদউ ও তার ভাইয়ের নাম শেরিফ তামবাদউ।[৩] ১৯৮৭ থেকে ১৯৯২ সাল পর্যন্ত তিনি গাম্বিয়ার রাজধানী বাঞ্জুলের সেন্ট অগাস্টিন হাই স্কুলে শিক্ষা লাভ করেন। তিনি যুক্তরাজ্যের ওয়ারউইক বিশ্ববিদ্যালয় থেকে আইনবিদ্যায় স্নাতক সম্পন্ন করে ১৯৯৯ সালে লিংকন’স ইন বারে ব্যারিস্টার হিসেবে যোগ দেন। ২০০১ থেকে ২০০২ লন্ডন বিশ্ববিদ্যালযয়ের স্কুল অব অরিয়েন্টাল অ্যান্ড আফ্রিকান স্টাডিজ থেকে আন্তর্জাতিক মানবাধিকার বিষয়ে এলএলএম ডিগ্রি লাভ করেন।[৪]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "মিয়ানমারের বিরুদ্ধে আন্তর্জাতিক আদালতে মামলা"বিবিসি বাংলা (ইংরেজি ভাষায়)। ১১ নভেম্বর ২০১৯। সংগ্রহের তারিখ ১৩ ডিসেম্বর ২০১৯ 
  2. "রোহিঙ্গা গণহত্যার ন্যায়বিচারে গাম্বিয়াকে সমর্থনের আহ্বান"প্রথম আলো। সংগ্রহের তারিখ ১৩ ডিসেম্বর ২০১৯ 
  3. "Feared Disappearance Of Imam Sawaneh"Kairo News। ১৪ এপ্রিল ২০১৬। সংগ্রহের তারিখ ১০ ফেব্রুয়ারি ২০১৭ 
  4. "Justice Minister Ba Tambadou's Curriculum Vitae"Freedom Newspaper। ৭ ফেব্রুয়ারি ২০১৭। সংগ্রহের তারিখ ১০ ফেব্রুয়ারি ২০১৭