আবদুল বারী চৌধুরী

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
আবদুল বারী চৌধুরী
জন্ম১৮৭০
মৃত্যু২৩ এপ্রিল, ১৯৪৪
জাতীয়তাব্রিটিশ ভারতীয়
জাতিসত্তাবাঙালি
পরিচিতির কারণব্রিটিশ বিরোধী আন্দোলনের পুরোধা

আবদুল বারী চৌধুরী (জন্ম:১৮৭০ - মৃত্যু:২৩ এপ্রিল, ১৯৪৪) ছিলেন চট্টগ্রামের ব্যবসায়ী ও ব্রিটিশ বিরোধী আন্দোলনের অন্যতম পুরোধা।

জন্ম ও শিক্ষাজীবন[সম্পাদনা]

আবদুল বারী চৌধুরী ১৮৭০ সালে চট্টগ্রাম জেলার ফটিকছড়ি উপজেলার দৌলতপুর গ্রামে জন্ম গ্রহণ করেন। তার পিতার নাম নুর আলী চৌধুরী আর মাতার নাম সকিনা বিবি।[১] রেঙ্গুনের এক মিশনারী স্কুলে আবদুল বারী চৌধুরীর লেখাপড়ায় হাতেখড়ি। সেখান থেকেই তিনি এন্ট্রাস পাস করেন।

কর্মজীবন[সম্পাদনা]

আবদুল বারী চৌধুরী ছিলেন চট্টগ্রামের প্রথম কাতারের শিল্পোদ্যোগী। তিনি দৌলতপুর এবিসি (আবদুল বারী চৌধুরী) উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রতিষ্টাতা। এছাড়াও তিনি রাউজান আরআরএসি (রামগতি রামধন আবদুল বারী চৌধুরী) উচ্চ বিদ্যালয়ের ও অন্যতম প্রতিষ্টাতা।[২] ঔপনিবেশিক আমলের এই দু’টি প্রাচীন শিক্ষা প্রতিষ্টানের সাথে তাঁর নামের স্মৃতি বিজড়িত। আবদুল বারী চৌধুরীর প্রথমা কন্যা শামসুন নাহার বেগমের সাথে ১৯৩৫ সালে কলিকাতা হাইকোর্টের এডভোকেট থাকাকালীন একে খান বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হন।[৩][৪]

ব্রিটিশ বিরোধী মানসিকতায় উজ্জীবিত হয়ে এবং স্বদেশপ্রেমে উদ্বুদ্ধ হয়ে তিনি চট্টগ্রামে প্রথম বেঙ্গল স্টীম নেভিগেশন কোম্পানি প্রতিষ্ঠা করেন। সে সময়ে চৌধুরী সাহেবের জাহাজে চায়ের নিমন্ত্রণে এসেছিলেন ভারতের জাতীয়তাবাদী আন্দোলনের পুরোধা মোহনদাস করমচাঁদ গান্ধী। জেটিতে এসে জাহাজে বৃটিশ পতাকা দেখে তিনি থমকে দাঁড়িয়ে পড়েন। আব্দুল বারী চৌধুরী নিজে গিয়ে ব্রিটিশ পতাকা নামিয়ে দেন। পতাকা নামানোর পর মহাত্মা গান্ধী সিঁড়ি বেয়ে জাহাজের উপরে উঠেন। আব্দুল বারী চৌধুরীর প্রতিষ্ঠিত দু’টো লঞ্চের নাম ছিলো তাঁর মেয়ের নামে ‘নুর নাহার এবং সামশুন নাহার’।[১]

মৃত্যু[সম্পাদনা]

আবদুল বারী চৌধুরী ২৩ এপ্রিল ১৯৪৪ সালে ৭১ বছর বয়সে চট্টগ্রাম শহরস্থ বাস ভবনে মৃত্যুবরণ করেন।[১] ফটিকছড়ির দৌলতপুরের গ্রামের বাড়িতে তাকে সমাধিস্থ করা হয়।

আরো দেখুন[সম্পাদনা]

আবুল কাশেম খান

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. দৈনিক আজাদী[স্থায়ীভাবে অকার্যকর সংযোগ]
  2. "বাংলাপেডিয়া"। ১৮ মে ২০০৮ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২ জানুয়ারি ২০১৩ 
  3. "সোনার বাংলাদেশ ম্যাগাজিন"। ১৫ অক্টোবর ২০১২ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২ জানুয়ারি ২০১৩ 
  4. "বাংলাপেডিয়া"। ২৬ ডিসেম্বর ২০১৩ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২ জানুয়ারি ২০১৩