আই, মি অউর ম্যায়

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
আই, মি অউর ম্যায়
আই, মি অউর ম্যায় পোস্টার.jpg
থিয়েট্রিক্যাল রিলিজ পোস্টার
পরিচালককপিল শর্মা
প্রযোজকগোল্ডি বেল
সৃষ্ট বেল আর্য
শ্রেষ্ঠাংশেজন আব্রাহাম
প্রাচী দেশাই
চিত্রাঙ্গদা সিং
সুরকারফলক শাবির
শচীন-জিগর
গৌরব দাশগুপ্ত
রাঘব সাচার
পরিবেশকরিলায়েন্স এন্টারটেইনমেন্ট
মুক্তি
  • ১ মার্চ ২০১৩ (2013-03-01)
দৈর্ঘ্য১০৫ মিনিট
দেশভারত
ভাষাহিন্দি
আয়৮ কোটি টাকা[১]

আই, মি অউর ম্যায় হল একটি বলিউড রোম্যান্টিক কমেডি চলচ্চিত্র।[২] এটি পরিচালক কপিল শর্মা পরিচালিত প্রথম ছবি। এই ছবিতে মুখ্য ভূমিকায় অভিনয় করেন জন আব্রাহাম, প্রাচী দেশাইচিত্রাঙ্গদা সিং। ছবিটি মুক্তি পায় ২০১৩ সালের ১ মার্চ। বক্স অফিসে ছবিটি ফ্লপ ঘোষিত হয়।[৩][৪]

কাহিনি-সারাংশ[সম্পাদনা]

ঈশান (জন আব্রাহাম) হলেন মুম্বইয়ের একজন আকর্ষণীয়, সুদর্শন সংগীত প্রযোজক। তিনি তার মায়ের (জারিনা ওয়াহাব) নয়নের মণি। দিদি শিবানীর (মিনি মাথুর) সব সময় তাকে রক্ষা করেন। তিনি তার প্রেমিকা অনুষ্কার (চিত্রাঙ্গদা সিং) সঙ্গে থাকেন এবং বিনা প্রশ্নে তার সব কথা মেনে নেন। সম্পর্কের ব্যাপারে দায়িত্বহীনতার জন্য একদিন অনুষ্কা তাকে বাড়ি থেকে বের করে দেয়।

তার জীবনে আসেন তার নতুন প্রতিবেশিনী গৌরী (প্রাচী দেশাই)। তিনি গৌরীর প্রেমে পড়ে যান। যখন ঈশানকে চাকরি ছাড়তে বাধ্য করা হয়, সেই সময় গৌরী তাকে নিজস্ব মিউজিক কোম্পানি গড়ে তুলতে উৎসাহ দেয়। ঈশান যখন নিজের সংগীত জীবন নিয়ে মগ্ন, সেই সময় অনুষ্কার গর্ভে তার সন্তান আসে। কিন্তু দায়িত্বজ্ঞানহীন বলে অনুষ্কা সেই কথা ঈশানকে জানান না। কিন্তু কয়েকদিন বাদে ঈশান জানতে পারেন যে, তার প্রাক্তন প্রেমিকার গর্ভে তার সন্তান এসেছে। গৌরী প্যারিসে একটি স্কলারশিপ পান। ঈশান ও গৌরী ঠিক করেন তার একটি অ্যালবাম প্রকাশের পর তারা সেখানেই থাকবেন।

অ্যালবাম প্রকাশের দিন অনুষ্কার প্রসববেদনা ওঠে। নিজের দায়িত্বের কথা মনে করে ঈশান তাকে হাসপাতালে নিয়ে যান এবং অনুষ্কা এক কন্যা সন্তানের জন্ম দেন। পরিস্থিতি বুঝতে পেরে গৌরী প্যারিস চলে যান। আট মাস পর দেখা যায়, ঈশান ও তার কন্যা সন্তান দিয়া গৌরীর সঙ্গে কথা বলছেন। তিনি কিছুদিন পরেই দেশে ফিরবেন। অন্যদিকে অনুষ্কা অপর একজনকে বিয়ে করে সুখে জীবন কাটাচ্ছেন।

কলাকুশলী[সম্পাদনা]

মুক্তি[সম্পাদনা]

ছবিটি ২০১২ সালের ডিসেম্বরে মুক্তি পাওয়ার কথা ছিল। কিন্তু এটি মুক্তি পায় ২০১৩ সালের মার্চে।[৭] ২০১৩ সালের ২৮ জানুয়ারি ছবিটির থিয়েট্রিক্যাল ট্রেলার মুক্তি পায়।[৫][৬]

সমালোচকদের প্রতিক্রিয়া[সম্পাদনা]

আই, মি অউর ম্যায় সমালোচকদের থেকে মিশ্র প্রতিক্রিয়া লাভ করে। ইন.কম-এর আলিশা কোলহো ছবিটিকে পাঁচে ৩.৫ দিয়ে এটির প্রশংসাই করেন।[৮] রিডিফ.কম-এর নিশি তিওয়ারি ছবিটি ২/৫ দিয়ে ছবিটির আখ্যানভাগের দুর্বলতার কথা উল্লেখ করেন।[৯]

সাউন্ডট্র্যাক[সম্পাদনা]

আই, মি অউর ম্যায়
শচীন-জিগর কর্তৃক সাউন্ডট্র্যাক অ্যালবাম
মুক্তির তারিখ১ মার্চ, ২০১৩
ঘরানাচলচ্চিত্রের সাউন্ডট্র্যাক
সঙ্গীত প্রকাশনীটি-সিরিজ
প্রযোজকরিলায়েন্স এন্টারটেইনমেন্ট
শচীন-জিগর কালক্রম
জয়ন্তভাই কি লাভ স্টোরি
(২০১৩)
আই, মি অউর ম্যায়
(২০১৩)
গো গোয়া গান
(২০১২)

১৯৮৯ সালে মুক্তিপ্রাপ্ত শ্রীদেবী অভিনীত বলিউড কমেডি ছবির চালবাজ’’-এর “না জানে কাহাঁ সে আয়ি হ্যায়” গানটি এই ছবিতে পুনঃসৃজিত হয়। অ্যালবামে সাতটি ট্র্যাক আছে। এগুলির সুরকার শচীন-জিগর, গৌরব দাশগুপ্ত, পাকিস্তানি শিল্পী ফলক শাবিররাঘব সাচার

ট্র্যাক তালিকা[সম্পাদনা]

নং.শিরোনামগীতিকারসুরকারশিল্পী(বৃন্দ)দৈর্ঘ্য
১."না জানে" শচীন-জিগরনীরজ শ্রীধর, অনুষ্কা মনচন্দা৩:১১
২."সাজনা" ফলক শাবিরফলক শাবির৪:৪২
৩."সাজনা (আনপ্লাগড)" ফলক শাবিরফলক শাবির৫:০১
৪."ক্যাপুচিনো" শচীন-জিগরঅভিষেক নেহওয়াল৩:০৮
৫."দরবদর"ময়ূর পুরীশচীন-জিগরমোনালি ঠাকুর, সমবেত কণ্ঠে: দিব্যা কুমার, হর্ষিত চৌহান, আলতামাশ, শাদাব৩:২৬
৬."নশা নশা" রাঘব সাচারনেহা ভাসিন৩:৪৪
৭."মেরি জানিয়ে" গৌরব দাশগুপ্তশান, মোনালি ঠাকুর৪:৪২

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. http://www.bollywoodhungama.com/box-office/top-grossers=[স্থায়ীভাবে অকার্যকর সংযোগ]
  2. Ranawat, Purnima (১ মার্চ ২০১৩)। "Today's big releases: I, Me Aur Main and The Attacks of 26/11"NDTV 
  3. http://www.showbizbites.com/i-me-aur-main-8th-day-box-office-collections-again-poor-business/
  4. "Kapil Sharma to make his directorial debut"Times of India। ৪ আগস্ট ২০১১। সংগ্রহের তারিখ ৩ জানুয়ারি ২০১২ 
  5. "John with five beauties in 'I, Me Aur Main'"Mid-day। ৪ আগস্ট ২০১১। সংগ্রহের তারিখ ৩ জানুয়ারি ২০১২ 
  6. "Reliance Entertainment to release I Me Aur Main"। Indiantelevision.com। ৮ আগস্ট ২০১১। সংগ্রহের তারিখ ৩ জানুয়ারি ২০১২ 
  7. "Dubbing of I Me Aur Main"Box Office India। নভেম্বর ২০১১। সংগ্রহের তারিখ ৩ জানুয়ারি ২০১২ 
  8. Alisha Coelho। "Review: I Me Aur Main is a pleasant surprise"। in.com। ২ মে ২০১৩ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১ মার্চ ২০১৩ ৩.৫/৫ তারকা
  9. Nishi Tiwari। "Review: I Me Aur Main leaves a lot to be desired"। Rediff.com। সংগ্রহের তারিখ ১ মার্চ ২০১৩ ২/৫ তারকা

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]