অনিলেন্দ্রনাথ গঙ্গোপাধ্যায়

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
অনিলেন্দ্রনাথ গঙ্গোপাধ্যায়
জন্ম১৮৯২
মৃত্যু৬ সেপ্টেম্বর, ১৯৮২ (বয়স ৯০
জাতীয়তাভারতীয়
মাতৃশিক্ষায়তনকলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়
পেশাগণিতের অধ্যাপক
পিতা-মাতাদেবেন্দ্রনাথ গঙ্গোপাধ্যায় (পিতা)
পুরস্কারএমিনেন্ট টিচার অ্যাওয়ার্ড

অনিলেন্দ্রনাথ গঙ্গোপাধ্যায় (ইংরেজি: Anilendranath Gangopadhyay)( ১৮৯২ - ৬ সেপ্টেম্বর, ১৯৮২) খ্যাতনামা গণিতের অধ্যাপক। পাকিস্তানের নোবেলজয়ী পদার্থবিজ্ঞানী ডক্টর আবদুস সালামের গণিতের শিক্ষক। [১]

জন্ম ও শিক্ষা জীবন[সম্পাদনা]

অনিলেন্দ্রনাথ গঙ্গোপাধ্যায়ের জন্ম ১৮৯২ খ্রিস্টাব্দে বৃটিশ ভারতের কলকাতার ভবানীপুরে। পিতা দেবেন্দ্রনাথ গঙ্গোপাধ্যায় ছিলেন কলকাতার সাউথ সুবারবন স্কুলের অঙ্কের শিক্ষক। অনিলেন্দ্রনাথ ১৯০৮ খ্রিস্টাব্দে কলকাতার ভবানীপুরের লণ্ডন মিশনারি ইনস্টিটিউট থেকে প্রবেশিকা, ১৯১২ খ্রিস্টাব্দে স্কটিশ চার্চ কলেজ থেকে গণিতে অনার্স-সহ বি.এ এবং ১৯১৫ খ্রিস্টাব্দে কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে বিশুদ্ধ গণিতে (পিওর ম্যাথামেটিক্স) দ্বিতীয় স্থান অধিকার করে এম.এ পাশ করেন। আবার ১৯১৮ খ্রিস্টাব্দে ব্যবহারিক গণিতে (অ্যাপ্লায়েড ম্যাথামেটিক্স) প্রথম হয়ে দ্বিতীয়বার এম.এ পাশ করেন।

কর্মজীবন[সম্পাদনা]

১৯১১ খ্রিস্টাব্দে বৃটিশ ভারতের লাহোরে সনাতন ধর্ম কলেজে গণিতের অধ্যাপক হিসাবে তাঁর কর্মজীবন শুরু হয় এবং সেখানেই অধ্যাপনা করেন। ১৯৪৫ খ্রিস্টাব্দে দেশবিভাগের কিছুদিন পর পাকিস্তানের লাহোর থেকে চলে এসে কলকাতায় কাটান। পরে পাঞ্জাবের বর্তমানে হরিয়ানার আম্বালায় সনাতন ধর্ম কলেজ স্থানান্তরিত হয়ে এলে ১৯৪৯ খ্রিস্টাব্দে আবার সেই কলেজে যোগ দেন এবং ১৯৫৩ খ্রিস্টাব্দে সেখান থেকে অবসরগ্রহণ করে কলকাতায় স্থায়ীভাবে বসবাস শুরু করেন। কলকাতায় অবস্থান কালে চার বৎসর কলকাতার বঙ্গবাসী কলেজে অধ্যাপনা করেন। তিনি অকৃতদার ছিলেন। তাঁর ছাত্ররাই ছিল সন্তানতুল্য। পদার্থবিজ্ঞানে নোবেল পুরস্কার প্রাপ্ত পাকিস্তানের বিজ্ঞানী আবদুস সালাম তাঁর লাহোরে সনাতন ধর্ম কলেজের ছাত্রদের অন্যতম। ১৯৮১ খ্রিস্টাব্দে কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয় অধ্যাপক আবদুস সালামকে "দেবপ্রসাদ সর্বাধিকারী স্বর্ণপদক"-এ ভূষিত করতে চাইলে তিনি তাঁর শিক্ষক অনিলেন্দ্রনাথের যোগ্য সম্মান প্রদানের আগে সে পদক গ্রহণে অনিচ্ছা প্রকাশ করেন। অতঃপর এই ঘটনার পরিপেক্ষিতে কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয় "এমিনেন্ট টিচার অ্যাওয়ার্ড" প্রবর্তন করে। বিশ্ববিদ্যালয় ১৯৮১ খ্রিস্টাব্দে ২১ শে জানুয়ারি অনিলেন্দ্রনাথকে প্রথম এই পুরস্কার দিয়ে সম্মানিত করে। অসুস্থ অনিলেন্দ্রনাথের সাউথ চক্রবেড়িয়া রোডের বাসভবনে সমাবর্তন অনুষ্ঠিত হয় এবং সেই অনুষ্ঠানে ডক্টর আবদুস সালাম উপস্থিত হয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের পুরস্কার গ্রহণ করেন।

জীবনাবসান[সম্পাদনা]

বাংলার খ্যাতনামা গণিতের অধ্যাপক অকৃতদার অনিলেন্দ্রনাথ গঙ্গোপাধ্যায় ১৯৮২ খ্রিস্টাব্দের ৬ ই সেপ্টেম্বর ৯০ বৎসর বয়সে কলকাতায় নিজ বাসভবনে পরলোক গমন করেন।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. সুবোধচন্দ্র সেনগুপ্ত ও অঞ্জলি বসু সম্পাদিত, সংসদ বাঙালি চরিতাভিধান, প্রথম খণ্ড, সাহিত্য সংসদ, কলকাতা, আগস্ট, ২০১৬ পৃষ্ঠা ২৩ ও ২৪, আইএসবিএন ৯৭৮-৮১-৭৯৫৫-১৩৫-৬