অধিসায়া উলাগাম

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
অধিসায়া উলাগাম
অধিসায়া উলাগাম পোস্টার.jpg
থিয়েটার রিলিজ পোস্টার
পরিচালকশক্তি স্কট
প্রযোজকআর. বানুচিত্রা
রচয়িতাশক্তি স্কট
শ্রেষ্ঠাংশে
সুরকারশক্তি স্কট
চিত্রগ্রাহকসতিশ. জি
প্রযোজনা
কোম্পানি
  • তিট্টু প্রোডাকশনস
  • ড্রিমগেট অ্যানিমেশন
মুক্তি
  • ১০ আগস্ট ২০১২ (2012-08-10) (ভারত)
দৈর্ঘ্য৯৫ মিনিট
দেশভারত
ভাষাতামিল
নির্মাণব্যয়$২০,০০০
আয়$৯৩৫০

অধিসায়া উলাগাম (ইংরেজি: World of Wonders) শক্তি স্কট রচিত ও পরিচালিত এবং আর. বানুচিত্রার প্রযোজিত ২০১২ সালের সালের ভারতীয় তামিল কল্পবিজ্ঞান নিয়ে তৈরি একটি চলচ্চিত্র। চলচ্চিত্রটিতে অভিনয় করেছেন জে. লিভিংস্টন, শ্রী লক্ষ্মী, মান্নান পৃথ্বিবরাজ, আনন্দ খানান ও লতা রাও। ভারতের প্রথম থ্রিডি চলচ্চিত্র যেখানে ডাইনোসর নিয়ে তৈরি লাইভ অ্যানিমেশনসহ অ্যাকশন চলচ্চিত্র।[১][২] চলচ্চিত্রটি বাংলা ভাষায় গডজিলা আমার সাথী নামে জি বাংলা সিনেমা চ্যানেলে প্রচার করা হয়। [৩]

কাহিনী[সম্পাদনা]

অধ্যাপক নেয়েলকান্তান (জে. লিভিংস্টন) একজন যাযাবর ভারতীয় বিজ্ঞানী এবং যিনি একটি সময় মেশিনকে আবিষ্কার করেন এবং তার উন্নতি সাধন করেন এবং এটি দিয়ে পরীক্ষা শুরু করেন। তিনি বুঝতে পেরেছিলেন যে তার মেশিনটিকে কাজ করানোর জন্য একটি স্বীকৃত "বস্তু" প্রয়োজন এবং তাই তিনি এমন একটি বস্তু সনাক্ত করতে চায় যা তার মেশিনের মাধ্যমে সময় প্রেরণ করতে পারে। তিনি মজা করে তার পোষা কুকুরকে বলে যে তিনি এটিকে "বস্তু" হিসাবে ব্যবহার করবেন। বর্ষা (শ্রীলক্ষ্মী এন. নায়ার) এবং বিকশ (পৃথিবী) নিলকান্তানের দুষ্টু নাতি-নাতনী যারা তাদের পিতামাতার সাথে বসবাস করে এবং পিতামহের খুব পছন্দের। একটি সফরকালে, দুই শিশু তার অনুপস্থিতিতে নিলকান্তানের পরীক্ষাগারে প্রবেশ করে এবং কুকুর সঙ্গে খেলতে শুরু করে। বর্ষার ছোঁড়া বল যা টাইম মেশিনের নিয়ন্ত্রণ পর্দায় আঘাত করে এবং ঘটনাক্রমে ডিভাইসটি সক্রিয় হয়ে ওঠে , যা স্থানান্তরযোগ্য "বস্তু" হিসাবে বর্ষা এবং বিকাশকে স্বীকৃতি দেয়। নিলকান্তান রুমে প্রবেশ করে এবং মেশিনের অবস্থা দেখে প্রচণ্ড ধাক্কা পায়, কিন্তু তখন খুব দেরি হয়ে গেছে। তিনি বাচ্চাদের রক্ষা করতে চেষ্টা করেন, তিনিও মেশিন দ্বারা একটি "বস্তু" হিসাবে স্বীকৃত হন। এবং তার নাতি-নাতি এবং তিনি দুর্ঘটনাক্রমে ডাইনোসরের যুগে চলে যান। নিলকান্তান এবং তার নাতি-নাতি প্রাগৈতিহাসিক যুগের বিপজ্জনক ডাইনোসরগুলির বিভিন্ন প্রজাতি ও বিলুপ্ত প্রাণীদের মুখোমুখি। প্রথমে তারা ভয় পায় এবং কী করতে হবে তা বোঝার জন্য সংগ্রাম করে। কিন্তু, ধীরে ধীরে তারা ডাইনোসরাসের সাথে বন্ধু হওয়ার চেষ্টা করে। তারা আধুনিক সময়ের কাছে ফিরে আসতে চায়, কিন্তু এর জন্য তাদের বিদ্যুত উৎসের প্রয়োজন হবে, যা প্রাগৈতিহাসিক সময়ে তাদের কাছে ছিল না। কিভাবে তারা তাদের পরিস্থিতিতে বেঁচে থাকে এবং অবশেষে তাদের নিজেদের যুগে ফিরে আসে যা চলচ্চিত্রের প্রধান কাহিনী।

অভিনয়ে[সম্পাদনা]

চলচ্চিত্র মুক্তি এবং অভ্যর্থনা[সম্পাদনা]

পেশাদারী পর্যালোচনা
পর্যালোচনা স্কোর
উৎস রেটিং
দ্য টাইমস অব ইন্ডিয়া ১/৫ তারকা
এখন চলমান ০.৫/৫ তারকা

এই চলচ্চিত্রটি ২০১২ সালের ১০ আগস্ট ভারতে মুক্তি পায়। এটার মুক্তির আগে, শক্তি স্কট এই চলচ্চিত্রে "বিস্ময়কর উপাদান" এর প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. উদ্ধৃতি ত্রুটি: অবৈধ <ref> ট্যাগ; OneIndia নামের সূত্রের জন্য কোন লেখা প্রদান করা হয়নি
  2. Hurtado, J (২৯ ফেব্রুয়ারি ২০১২)। "WTF Is ADHISAYA ULAGAM? Dinosaurs, Talking Dogs, & Time Machines in 3D! Thank You India!"Twitch Film। ৮ মে ২০১৪ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১৮ সেপ্টেম্বর ২০১৩ 
  3. "GODZILLA AMAR SATHI"জি বাংলা সিনেমা (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ১০ জুন ২০২০ 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]