হোয়াট’স ইটিং গিলবার্ট গ্রেপ

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
হোয়াট’স ইটিং গিলবার্ট গ্রেপ
What's Eating Gilbert Grape poster.jpg
থিয়েট্রিক্যাল পোস্টার
পরিচালক Lasse Hallström
প্রযোজক David Matalon
Bertil Ohlsson
Meir Teper
রচয়িতা Peter Hedges
অভিনেতা জনি ডেপ
জুলিয়েট লিউইস
লিওনার্ডো ডিক্যাপ্রিও
Darlene Cates
Mary Steenburgen
Laura Harrington
Mary Kate Schellhardt
Kevin Tighe
John C. Reilly
Crispin Glover
সুরকার Alan Parker
Björn Isfält
চিত্রগ্রাহক Sven Nykvist
সম্পাদক Andrew Mondshein
বণ্টনকারী Paramount Pictures (USA)
মুক্তি December 17, 1993
দৈর্ঘ্য 118 min.
দেশ United States
ভাষা English
আয় $10m (USA) [১]

হোয়াট’স ইটিং গিলবার্ট গ্রেপ (ইংরেজি: What’s Eating Gilbert Grape অর্থাৎ "গিলবার্ট গ্রেইপকে খাচ্ছে কী?") সুয়েডীয় পরিচালক লাসে হালস্ত্রোম Lasse Hallström (লাসে হাল্‌স্ত্র্যম্‌) পরিচালিত ইংরেজি ভাষার মার্কিন নাট্য চলচ্চিত্র। ১৯৯৩ সালে মুক্তিপ্রাপ্ত এই ছবিতে অভিনয় করেছেন জনি ডেপলিওনার্ডো ডিক্যাপ্রিওপিটার হেজেস রচিত একই নামের উপন্যাস থেকে ছবিটি নির্মীত হয়েছে। ছবির শ্যুটিং হয়েছে টেক্সাসের ম্যানরে।

কাহিনী সূত্র[সম্পাদনা]

গিলবার্ট গ্রেইপ (জনি ডেপ) পরিবার সামলাতে খুব ব্যস্ত। তার বাবা নিরুদ্দেশ, মা অত্যধিক মোটা হয়ে পড়ায় স্বাভাবিকভাবে চলাচল করতে পারেন না, ছোট ভাই আর্নি (ডিক্যাপ্রিও) মানসিকভাবে অসুস্থ। বড় বোন এমি ঘরের সব কাজ করে, ছোট বোন এলেন অন্যান্য আট-দশটি কিশোরীর মতই উচ্ছল জীবন যাপন করে। গিলবার্ট একটি মুদির দোকানে কাজ করে। নিজের ভাইয়ের প্রতি তার টানই ছবিতে মুখ্য হয়ে উঠেছে। এর পাশাপাশি সামাজিক ও পারিবারিক সম্পর্কের অনেক দিকই এতে সুন্দরভাবে উঠে এসেছে।

অভিনয়ে[সম্পাদনা]

  • জনি ডেপ - গিলবার্ট গ্রেইপ
  • লিওনার্ডো ডিক্যাপ্রিও - আর্নি গ্রেইপ (গিলবার্টের ছোট ভাই)
  • ডার্লিন কেইট্‌স - বনি গ্রেইপ (মা)
  • লরা হ্যারিংটন - এমি গ্রেইপ (বড় বোন)
  • মেরি কেইট শেলহার্ড - এলেন গ্রেইপ (ছোট বোন)
  • হুলিয়েট লুইস - বেকি
  • মেরি স্টিনবার্গেন - বেটি কার্ভার

প্রতিক্রিয়া[সম্পাদনা]

বক্স অফিসে সিনেমাটি বেশি আয় করতে পারে নি (মাত্র ১০,০৩২,৭৬৫ ডলার)। কিন্তু সমালোচকদের কাছে বিপুল প্রশংসিত হয়েছে। মুক্তি পরই এ ছবির একটি ফ্যান গোষ্ঠী তৈরি হয়েছে। রটেন টম্যাটোস-এ ছবিটির রেটিং ৮৯%। ৩৬টি রিভিউয়ের মধ্যে ৩২টি তেই ছবির প্রশংসা করা হয়েছে।

পুরস্কার[সম্পাদনা]

এ ছবির জন্য লিওনার্ডো ডিক্যাপ্রিও মাত্র ১৯ বছর বয়সে সেরা পার্শ্ব অভিনেতা হিসেবে একাডেমি পুরস্কার এবং গোল্ডেন গ্লোব অ্যাওয়ার্ড মনোনয়ন লাভ করেন। এটাই ডিক্যাপ্রিওর প্রথম অস্কার ও গোল্ডেন গ্লোব মনোনয়ন। প্রাপ্ত পুরস্কারগুলো হচ্ছে:

  • ন্যাশনাল বোর্ড অফ রিভিউয়ের সেরা পার্শ্ব অভিনেতা পুরস্কার - লিওনার্দো ডিক্যাপ্রিও
  • সেরা বিদেশী চলচ্চিত্র - গিল্ড অফ জার্মান আর্টহাউজ সিনেমাস (১৯৯৫)

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]