সুমাত্রা

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
সুমাত্রা
Sumatra Topography.png
সুমাত্রার ভৌগোলিক মানচিত্র
ভূগোল
অবস্থান দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়া
ভৌগলিক স্থানাংক ০০° উত্তর ১০২° পূর্ব / ০° উত্তর ১০২° পূর্ব / 0; 102স্থানাঙ্ক: ০০° উত্তর ১০২° পূর্ব / ০° উত্তর ১০২° পূর্ব / 0; 102
দ্বীপপুঞ্জ বৃহত্তর সুন্দা দ্বীপপুঞ্জ
আয়তন ক্রম ৬ষ্ঠ
সর্বোচ্চ বিন্দু কিরিন্সি পর্বত
দেশ
Indonesia
প্রদেশ আচে, বেঙ্কুলু, জাম্বি, লাম্পুং, রিয়াউ, পশ্চিম সুমাত্রা, উত্তর সুমাত্রা, দক্ষিণ সুমাত্রা
বৃহত্তম শহর মেদান (pop. ২১,০৯,৩৩০ (২০১০ সালের হিসাব অনুযায়ী))
জনপরিসংখ্যান
জনসংখ্যা ৫,০৩,৬৫,৫৩৮ (as of ২০১০)
জাতিগত গোষ্ঠীসমূহ আচেনিজ, বাতাক, মিনাংকাবাউ, মালয়ী, তিয়ংহোয়া

সুমাত্রা ইন্দোনেশিয়ার পশ্চিমে অবস্থিত একটি দ্বীপ। এককভাবে ইন্দোনেশিয়ার দ্বীপ হিসেবে সুমাত্রা বৃহত্তম (এ অঞ্চলে বোর্নিও আর নিউগিনি সুমাত্রার চেয়ে বড় হলেও এসব দ্বীপে অন্য দেশের অংশ রয়েছে)। সুমাত্রার আয়তন ৪,৭৩,৪৮১ বর্গ কিলোমিটার এবং পৃথিবীর দ্বীপগুলোর মধ্যে এটি আয়তনের দিক থেকে ৬ষ্ঠ। সংশ্লিষ্ট ছোটখাটো দ্বীপের অধিবাসীসহ সুমাত্রার জনসংখ্যা প্রায় পাঁচ কোটি।[১]

ভারত মহাসাগর সুমাত্রার উত্তর-পশ্চিম, দক্ষিণ-পশ্চিম ও সমগ্র পশ্চিমাঞ্চল ঘিরে রেখেছে। উত্তর-পূর্বে দ্বীপটি মূল ভূখণ্ড মালয় উপদ্বীপ থেকে মালাক্কা প্রণালীর মাধ্যমে বিচ্ছিন্ন হয়েছে। দক্ষিণ-পূর্বে সুন্দা প্রণালীর মাধ্যমে জাভা থেকে এটি পৃথক হয়ে গেছে। দ্বীপটির উত্তর মাথায় আন্দামান দ্বীপপুঞ্জ অবস্থিত। এর পূর্বে জাভা সাগর আর গুটিকয়েক ছোট ছোট দ্বীপ অবস্থিত। বুকিত বারিসান পর্বতমালা দ্বীপটির প্রায় সমগ্র পশ্চিম দিক জুড়ে রয়েছে। এ পর্বতমালা অসংখ্য জীবন্ত আগ্নেয়গিরি ধারণ করে আছে। উত্তর-পশ্চিমাঞ্চলে অসংখ্য নদীনালার জটিল বিন্যাস নিম্নভূমি, জলাভূমি আর প্যারাবন সৃষ্টি করেছে। বিষুব রেখা এ দ্বীপের উপর অবস্থিত এবং এর ফলে এর জলবায়ু বিষুবীয়, উষ্ণ এবং আর্দ্র। এ অঞ্চলে প্রাধান্য বিস্তার করেছে বিষুবীয় রেইনফরেস্ট।

সুমাত্রায় মানব বসতির শুরু খ্রিস্টপূর্ব ৫০০ অব্দে। ১২৯২ সালে বিখ্যাত পর্যটক মার্কো পোলো সুমাত্রা ভ্রমণ করেন। এ দ্বীপের প্রায় ৮৭% মানুষ মুসলিম। ইন্দোনেশিয়ার মোট জনসংখ্যার ২২ শতাংশের বাস এখানে। সুমাত্রার জীববৈচিত্র্য বিস্ময়করভাবে সম্বৃদ্ধ। কিন্তু বিগত ৩৫ বছরে এখানকার ৫০ শতাংশ বনভূমি ধ্বংস হয়ে গেছে। সুমাত্রার বাঘ, সুমাত্রার গন্ডার, সুমাত্রার ওরাংওটাংসহ অসংখ্য প্রাণী বর্তমানে বিলুপ্তির দ্বারপ্রান্তে।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "Sumatra"। Encyclopaedia Britannica। সংগৃহীত 6 July, 2013 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]