ব্যবসা

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে

অর্থশাস্ত্রের পরিভাষায় ব্যবসা এক ধরনের সামাজিক কর্মকাণ্ড (বা বিজ্ঞান) যেখানে নির্দিষ্ট সৃষ্টিশীল ও উৎপাদনীয় লক্ষ্যকে সামনে রেখে বৈধভাবে সম্পদ উপার্জন বা লাভের উদ্দেশ্যে লোকজনকে সংগঠিত করা হয় ও তাঁদের উৎপাদনীয় কর্মকাণ্ড রক্ষণাবেক্ষণ করা হয়। ব্যক্তির মুনাফা পাওয়ার আশায় পণ্যদ্রব্য ও সেবাকর্ম উৎপাদনের মাধ্যমে উপযোগ সৃষ্টি এবং মানুষের বস্তুগত ও অবস্তুগত অভাব পূরণের লক্ষে সেগুলো বণ্টন এবং এর সহায়ক সবরকম বৈধ, ঝুঁকিবহুল ও ধারাবাহিক কার্যকে ব্যবসায় বলে।

আইনানুসারে, ব্যবসায় বলতে সেই সংগঠনকে বুঝায় যা অর্থের বিনিময়ে ভোক্তাকে পণ্য বা সেবা কিংবা দুটো সুবিধাই প্রদান করে। পুঁজিবাদ অর্থনীতিতে ব্যবসায় লক্ষণীয় ভাবে বিদ্যমান এবং গুরুত্বপূর্ণ ভুমিকা রেখেছে। এখানে প্রায় সব ব্যবসায় প্রতিষ্ঠান ব্যক্তিমালিকানায় পরিচালিত হয় যা গঠন করা হয় মূলত মুনাফা অর্জন করে মালিকের পুঁজি বৃদ্ধির জন্যে। ব্যবসায় মুনাফার জন্য ব্যক্তি মালিকানার ব্যবসায় প্রতিষ্ঠান গুলোর মালিক বা পরিচালকবৃন্দের মূল উদ্দেশ্যের মধ্যে একটি হলো, ঝুঁকি গ্রহণ ও কার্যের বিপরীতে বিনিয়োগকৃত পুঁজি ফেরত পাওয়া। মুনাফাবিহীন বা রাষ্ট্র মালিকানার অধীনেও ব্যবসায় করা যায়।

"ব্যবসায়" শব্দ টি ইংরেজি "business" শব্দের পারিভাষিক প্রতিশব্দ। "business" শব্দের আক্ষরিক অর্থ হচ্ছে "ব্যস্ত থাকা" অর্থাৎ হয় ব্যাক্তিগত ভাবে অথবা সমষ্টিগত ভাবে বানিজ্যিক ভাবে সমর্থনযোগ্য ও লাভজনক কাজে ব্যস্ত থাকা। সুবিধামত "ব্যবসায়" শব্দটির কমপক্ষে তিনটি ব্যবহার রয়েছে -

  • একটি নির্দিষ্ট কোম্পানি বা প্রতিষ্ঠানকে বুঝাতে একক ভাবে ব্যবহার হয়
  • একটি নির্দিষ্ট পণ্য বা সেবার বাজার ক্ষেত্র বুঝাতে সাধারনত ব্যবহার হয়; যেমন - ফুলের ব্যবসায়
  • মিশ্র অর্থে, বা বৃহৎ অর্থে পণ্য ও সেবার সরবরাহ করার জন্যে সকলপ্রকার কার্য সম্পাদন করে এমন দল বা গোষ্ঠীকে বুঝায়।

ব্যবসায়ের ধরন[সম্পাদনা]

ব্যবসায় মূলত চার ধরনের হয়:

একমালিকানা ব্যবসায় (Sole proprietorship):

অংশীদারী ব্যবসায় (Partnership):

কোম্পানি (Corporation)

সমবায় সমিতি (Cooperative)