দাউদ

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
হযরত দাউদ [আ.]
রাজত্বকাল প্রায় ১০১০ - ১০০৩ খ্রীষ্টপূর্বাব্দ জুদাহ; জুদাহ এবং ইসরায়েল প্রায় ১০০৩ - ৯৭০ খ্রীষ্টপূর্বাব্দ।
পূর্বসূরি হযরত লুত [আ.]
উত্তরসূরি হযরত সুলায়মান [আ.]
রয়েল হাউস হযরত দাউদ [আ.]-এর বাড়ি

হযরত দাউদ [আ.] বা জনাব দাউদ [আ.] (আরবি: دَاوُۥدَ‎, Dāwud; হিব্রু ভাষায়: דָּוִד, আধুনিক হিব্রু: David, তিবেরিয়ান: dɔwið, "beloved"; গ্রিক: Δαβιδ) কুরআনের বর্ণনা অনুসারে, তিনি ছিলেন একজন নবী এবং রাসূল। তাঁর উপর যাবুর ধর্মগ্রন্থটি অবতীর্ণ হয়। বাইবেল এবং কুরআনে দাউদ [আ.] সংক্রান্ত বিভিন্ন কাহিনী বর্ণিত আছে। জনাব দাউদ [আ.], জনাব ইয়াকুবের [আ.] পুত্র, ইয়াহুদার অধঃস্তন বংশধর । তাঁর পিতার নাম ঈসা। অনেক পুত্র সন্তানের মধ্যে দাউদ [আ.] ছিলেন পিতার কনিষ্ঠ সন্তান। তাঁর উপর ১৫০টি সূরা সম্বলিত 'যাবুর' নামক আসমানী কিতাব অবতীর্ণ হয়।

কুরআনে উল্লেখ[সম্পাদনা]

আল্লাহ তা'আলা পবিত্র কুরআনে বলেন,

আল্লাহ দাউদকে বাদশাহী এবং নবুয়ত দান করলেন এবং তিনি যা চেয়েছেন তা শিক্ষা দিয়েছেন। (সূরা বাকারা)
হে দাউদ ! আমি আপনাকে পৃথিবীর বুকে খলীফা নির্ধারণ করেছি। (সূরা ছোয়াদ)
আমি [দাউদ ও সুলায়মান] প্রত্যেককে রাজত্ব ও জ্ঞান দান করেছি। (সূরা আম্বিয়া)

বাইবেল এবং ইহুদী বিশ্বাসে বর্ণিত দাউদ[সম্পাদনা]

বাইবেলের পুরানো নিয়মে (ওল্ড টেস্টামেন্ট) দাউদকে [আ.] বলা হয়েছে সেন্ট লুইস ডেভিড। দাউদের [আ.] মাজার এখনও আছে যা ইহুদীরা সংরক্ষণ করে রেখেছেন। সে মাজারের গেটে এখনও লেখা আছে 'কিং সেন্ট ডেভিড'।

বিশেষ গুণাবলী[সম্পাদনা]

  • বোখারী শরীফে আছে যাবুর কিতাব জনাব দাউদ [আ.] অতিদ্রুত তেলাওয়াত বা আবৃত্তি করতে পারতেন। এমনকি তিনি ঘোড়ার পিঠের গদী বাঁধতে যতটুকু সময় লাগতো, এসময়ের মধ্যেই যাবুর আবৃত্তি করে শেষ করতে পারতেন।
  • সূরা আম্বিয়া: ৭১ নম্বর আয়াতে আল্লাহ এই বর্ণনা দিয়েছেন,
আল্লাহপাক পাহাড়-পর্বত ও পশু-পাখিকে জনাব দাউদের [আ.] অনুগত করে দিয়েছিলেন। তারা তাঁর সাথে তসবিহ পাঠ করতো বা ঈশ্বরের স্মরণসূচক আবৃত্তি করতো। বৃক্ষ, পাথর ও শিলাখন্ড থেকেও তাসবিহ ধ্বনিত হতো।
এবং আমি দাউদকে আমার তরফ থেকে মর্যাদা দিয়েছি। আর আমি আদেশ করেছি যে, হে পাহাড় ও পক্ষীকূল! তোমরা দাউদের সাথে মিলে তাসবিহ পাঠ ও পবিত্রতা বর্ণনা কর।