জয়ন্ত বিষ্ণু নারলিকর

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
জয়ন্ত বিষ্ণু নারলিকর
জন্ম (১৯৩৮-০৭-১৯) ১৯ জুলাই ১৯৩৮ (বয়স ৭৫)
কোলাপুর, মহারাষ্ট্র, ব্রিটিশ ভারত
বাসস্থান পুনা, ভারত
জাতীয়তা ভারতীয়
কর্মক্ষেত্র জ্যোতির্পদার্থবিদ্যা, পদার্থবিদ্যা, কসমোলজি
প্রতিষ্ঠান কেমব্রিজ বিশ্ববিদ্যালয়
টাটা ইনস্টিটিউট অফ ফান্ডামেন্টাল রিসার্চ
ইন্টার-ইউনিভার্সিটি সেন্টার ফর অ্যাস্ট্রোনমি অ্যান্ড অ্যাস্ট্রোফিজিক্স
প্রাক্তন ছাত্র বেনারস হিন্দু বিশ্ববিদ্যালয়
কেমব্রিজ বিশ্ববিদ্যালয়
পিএইচডি উপদেষ্টা ফ্রেড হয়েল
পরিচিতির কারণ স্থিতাবস্থা তত্ত্ব

জয়ন্ত বিষ্ণু নারলিকর (জন্ম: ১৯ জুলাই, ১৯৩৮ - ) (মারাঠি: जयंत विष्णू नारळीकर) একজন ভারতীয় মারাঠি জ্যোতির্পদার্থবিজ্ঞানীবেনারস হিন্দুকেমব্রিজ বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রাক্তনী ও মুম্বাইয়ের টাটা ইনস্টিটিউট অফ ফান্ডামেন্টাল রিসার্চে কর্মরত এই বিজ্ঞানী স্থিতাবস্থা তত্ত্বের অন্যতম প্রবক্তা। নারলিকর ইংরেজিমারাঠি উভয় ভাষায় একাধিক বিজ্ঞান বিষয়ক গ্রন্থের রচয়িতা এবং ভারতের এক বিশিষ্ট কল্পবিজ্ঞান লেখক। মাতৃভাষা মারাঠিতে রচিত তাঁর কল্পবিজ্ঞান কাহিনিগুলি বিভিন্ন ভাষায় অনূদিত হয়েছে।

শিক্ষাজীবন[সম্পাদনা]

জয়ন্ত বিষ্ণু ১৯৫৭ সালে বেনারস হিন্দু বিশ্ববিদ্যালয় থেকে গণিতে বিএসসি এবং ১৯৬০ সালে ক্যাম্ব্রিজ বিশ্ববিদ্যালয় থেকে গণিতে বিএ ডিগ্রি অর্জন করেন। ক্যাম্ব্রিজে তার সহপাঠী ছিলেন জামাল নজরুল ইসলাম[১]। ১৯৬৩ সালে ফ্রেড হয়েলের তত্ত্বাবধানে ডক্টরেট ডিগ্রি লাভ করেন। ১৯৬৪ সালে তিনি গণিতে এমএ ডিগ্রি অর্জন করেন। ১৯৭৬ সালে তিনি গণিতে ডিএসসি (ডক্টর অব সায়েন্স) ডিগ্রি অর্জন করেন।

কর্মজীবন[সম্পাদনা]

ডক্টরেট ডিগ্রি অর্জনের পর জয়ন্ত বিষ্ণু ১৯৭২ সাল পর্যন্ত ক্যাম্ব্রিজ বিশ্ববিদ্যালয়ের কিংস কলেজের বেরি র‍্যামজে ফেলো হিসেবে কাজ করেন। ১৯৬৬ থেকে ১৯৭২ সাল পর্যন্ত তিনি ক্যাম্ব্রিজ বিশ্ববিদ্যালয়ের ইনস্টিটিউট অব থিওরেটিক্যাল অ্যাস্ট্রোনমিতে প্রতিষ্ঠাকালীন সদস্য হিসেবে কাজ করেছেন।

পুরস্কার ও সম্মাননা[সম্পাদনা]

ক্যাম্ব্রিজে বিএ ডিগ্রিতে অসাধারণ ফলাফলের জন্য টাইসন মেডেল লাভ করেন। ১৯৬২ সালে তিনি স্মিথ'স প্রাইজ লাভ করেন। ১৯৬৫ সালে তিনি ভারতের তৃতীয় সর্বোচ্চ অসামরিক সম্মান পদ্মভূষণ লাভ করেন। ১৯৬৭ সালে অ্যাডাম'স প্রাইজ লাভ করেন। ২০০৪ সালে তিনি ভারতের দ্বিতীয় সর্বোচ্চ অসামরিক সম্মান পদ্মবিভূষণ লাভ করেন। ২০১১ সালে তিনি মহারাষ্ট্র সরকারের সর্বোচ্চ অসামরিক সম্মান মহারাষ্ট্র ভূষণ লাভ করেন।

রচনাবলি[সম্পাদনা]

গদ্যরচনা[সম্পাদনা]

  • Current Issues in Cosmology, 2006
  • A Different Approach to Cosmology : From a Static Universe through the Big Bang towards Reality, 2005
  • Fred Hoyle's Universe, 2003
  • Scientific Edge: The Indian Scientist from Vedic to Modern Times, 2003
  • An Introduction to Cosmology, 2002
  • Quasars and Active Galactic Nuclei : An Introduction, 1999
  • From Black Clouds to Black Holes, 1996
  • Seven Wonders of the Cosmos, 1995
  • Philosophy of Science: Perspectives from Natural and Social Sciences, 1992
  • Highlights in Gravitation and Cosmology, 1989
  • Violent Phenomena in the Universe, 1982
  • The Lighter Side of Gravity, 1982
  • Physics-Astronomy Frontier (co-author Sir Fred Hoyle), 1981
  • The Structure of the Universe, 1977
  • Creation of Matter and Anomalous Redshifts, 2002
  • Absorber Theory of Radiation in Expanding Universes, 2002
  • आकाशाशी जडले नाते (আকাশাশী জডলে নাতে), (মারাঠি ভাষায়)

কথাসাহিত্য[সম্পাদনা]

ইংরেজিতে
  • The Return of Vaman, ১৯৯০
  • The Adventure
মারাঠিতে
  • यक्षाची देणगी (যক্ষাচী দেণগী)
  • प्रेषित (প্রেষিত)
  • वायरस (ভাইরাস)
  • वामन परत न आला (বামন পরত ন আলা)
  • अभयारण्य (অভয়ারণ্য)

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. http://arts.bdnews24.com/?p=346

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]